২১ শ্রাবণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ৬ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

কুকুর নিধনের প্রতিবাদ চলাকালীন পশুপ্রেমীদের উপর পুলিশের লাঠিচার্জ

Published by: Tanujit Das |    Posted: January 23, 2019 2:49 pm|    Updated: January 23, 2019 2:51 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এনআরএস হাসপাতালে কুকুর হত্যাকাণ্ডে মূল দুই অভিযুক্তের কঠোর শাস্তির দাবিতে মঙ্গলবার স্বাস্থ্য ভবনের সামনে প্রতিবাদে বসেছিলেন একদল পশুপ্রেমী৷ অভিযোগ, রাতের অন্ধকারে ওই প্রতিবাদী পশুপ্রেমীদের বেধড়ক মারধর করেছে পুলিশ৷ মারধরের অভিযোগে বিধাননগর থানার বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন প্রতিবাদীরা৷ পুলিশের মারে গুরুতর জখম হয়েছেন বেশ কয়েকজন পশুপ্রেমী৷ আর জি কর-সহ বিভিন্ন শহরের হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তাঁরা৷ বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নজরে আনতে তাঁরা যোগাযোগেরও চেষ্টা করছেন। দিয়েছেন আরও বৃহত্তর প্রতিবাদের ডাক৷

এনআরএস হাসপাতালে কুকুর নিধন কাণ্ডের তদন্ত কমিটির দেওয়া রিপোর্টে অভিযুক্ত হিসাবে উঠে এসেছে দুই নার্সিং পড়ুয়া মৌটুসি মণ্ডল ও সোমা বর্মনের নাম৷ এদের কঠোর শাস্তির দাবিতেই মঙ্গলবার স্বাস্থ্য ভবনের সামনে প্রতিবাদে বসেছিলেন পশুপ্রেমীরা৷ প্রতিবাদীদের দাবি ছিল, যতক্ষণ না অভিযুক্তরা শাস্তি পাচ্ছেন, ততক্ষণ সেখানেই আন্দোলন চালিয়ে যাবেন তাঁরা৷ অভিযোগ, মঙ্গলবার রাত একটা নাগাদ সেখানে হাজির হন বিধাননগর থানার পুলিশ কর্মীরা৷ প্রথমে ধমকে-চমকে প্রতিবাদীদের সেখান থেকে হটানোর চেষ্টা করেন তাঁরা৷ নাছোড় প্রতিবাদীদের সরাতে ব্যর্থ হয়ে, তাঁদের উপর এলোপাথাড়ি লাঠিচার্জ করে পুলিশ৷ যাতে গুরুতর চোট পেয়েছেন প্রতিবাদীদের অনেকে৷ তাঁদের ভরতি করা হয় আর জি কর হাসপাতালে৷

মঙ্গলবারের ওই প্রতিবাদে যোগ দিয়েছিলেন অভিনেত্রী তথা পশুপ্রেমী দেবলীনা দত্ত মুখোপাধ্যায়৷ তিনি বলেন, ‘‘আমরা শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ করছিলাম। স্লোগানিং করছিলাম। হঠাৎই আমাদের সঙ্গে তর্কাতর্কি শুরু করেন পুলিশকর্মীরা। আমারা প্রতিবাদ করলে মারধর শুরু করে পুলিশ। মাটিতে ফেলে লাথি,ঘুষি মারা হয় আমাদের৷ রক্ষা পাননি মহিলারাও। এক মহিলাকে ঠেলে নর্দমায় ফেলে দেওয়া হয়।’’ এমনকি পুলিশের মারধরে অভিনেত্রীও হাতে চোট পেয়েছেন বলে জানান। এই ঘটনার প্রতিবাদে সোশ্যাল মিডিয়াতেও সরব হয়েছেন পশুপ্রেমীরা৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement