BREAKING NEWS

২৩ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  রবিবার ৭ জুন ২০২০ 

Advertisement

দিনে ৪ হাজার টাকা ঘর ভাড়া, রোমানীয় জালিয়াতদের শৌখিন জীবনযাপনে পুলিশের চোখ কপালে

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: December 11, 2019 9:18 am|    Updated: December 11, 2019 9:19 am

An Images

অর্ণব আইচ: মঙ্গলবার আলিপুর আদালতে তোলা হয় এটিএম জালিয়াতি কাণ্ডে ধৃত সিলভিউ ফ্লোরেন স্পিরিডনকে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জেরেই উঠে আসে বেশ কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য।

দিল্লিতে দিনে চার হাজার টাকার বিনিময়ে ঘর ভাড়া নিয়েছিল রোমানীয় এটিএম জালিয়াতরা, জেরায় সেকথাই জানায় সিলভিউ ফ্লোরেন। শুধু এটিএম জালিয়াতির জন্যই মাসে ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকা ঘর ভাড়া দিয়ে বিলাসবহুল জীবন যাপন করত তারা। তদন্ত শুরু করে লালবাজারের গোয়েন্দারা তৌসিফ মৌরারু নামে আরও এক রোমানীয় জালিয়াতের সন্ধান পেলেন। 

কলকাতায় এটিএমে স্কিমার বসিয়ে ৭০টি জালিয়াতির অভিযোগে সোমবার দিল্লি থেকে রোমানীয় জালিয়াত সিলভিউ ফ্লোরেন স্পিরিডনকে গ্রেপ্তার করেছেন লালবাজারের গোয়েন্দারা। মঙ্গলবার তাকে আলিপুর আদালতে তোলা হলে তাকে ২০ ডিসেম্বর পর্যন্ত পুলিশ হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেয় আদালত। এটিএম জালিয়াতির কিনারা করার পরিপ্রেক্ষিতে লালবাজারের গোয়েন্দা বিভাগের ব্যাংক জালিয়াতি দমন শাখার আধিকারিকদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন পুলিশ কমিশনার। এটিএম জালিয়াতি রোধে একটি শর্ট ফিল্মও তৈরি করেছে লালবাজার।

[আরও পড়ুন: সোনার দোকানের আড়ালেই পাচারচক্র, কলকাতা-সহ দেশজুড়ে তল্লাশিতে গ্রেপ্তার ১০ ]

পুলিশ জানিয়েছে, অবৈধভাবে দিল্লিতে থাকার জন্য তৌসিফ নামে ওই রোমানীয়কে দিল্লি পুলিশ গ্রেপ্তার করে। যদিও দিল্লি পুলিশ জানত না যে, এটিএম জালিয়াতির এক বড় মাথা সে। ধৃত সিলভিউকে জেরা করে তারই সঙ্গী তৌসিফের সন্ধান মেলে। তাদের সঙ্গী আরও ৩ জালিয়াতের নাম পাওয়া গিয়েছে। পুলিশ সূত্রের খবর, ওই রোমানীয়কে দিল্লির তিহার জেল থেকে রোহিনী জেলে নিয়ে আসা হয়েছে। জেলে গিয়েই পুলিশ তাকে জেরা করার প্রস্তুতি নিচ্ছে। 

গোয়েন্দারা জানিয়েছেন, অন্য একটি রোমানীয় জালিয়াত টিম গত বছর দিল্লি বিমানবন্দরে বিমান সংস্থার ওয়েবসাইট হ্যাক করে লক্ষ লক্ষ টাকা তুলে নিয়েছিল। এর পাশাপাশি এও জানা গিয়েছে যে ধৃত সিলভিউয়ের ল্যাপটপ থেকে বহু গ্রাহকের এটিএমের তথ্য মিলেছে। তাই সে নিজেই কলকাতায় এসে স্কিমার বসিয়েছে বলে সন্দেহ পুলিশের। যখন তাকে অটো করে তাড়া করা হয়েছিল, তখনই সে নিজের পাসপোর্টটি রাস্তায় ফেলে দেয়। পুলিশের মতে, নিজেদের দেশে রোমানীয়রা এত আরামে থাকতে পারে না। তাই এই দেশে এসে এটিএম জালিয়াতির রোজগারে তারা বিলাসবহুল জীবন যাপন করে। এই চক্রের বাকি তিনজনের সন্ধানে তল্লাশি চলছে। 

[আরও পড়ুন: ‘রাজ্যপাল জনগণের পাহারাদার’, বিল বিতর্কে রাজ্যকে কটাক্ষ ধনকড়ের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement