১৭  শ্রাবণ  ১৪২৯  সোমবার ৮ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

শোভনহীন পরিবেশ দপ্তরের কমিটি থেকে পদত্যাগ করলেন বৈশাখি

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 15, 2018 8:59 pm|    Updated: June 15, 2018 8:59 pm

Baisakhi Banerjee resigned from the state committee's

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাজ্য পরিবেশ দপ্তরের গুরুত্বপূর্ণ কমিটি থেকে পদত্যাগ করলেন বৈশাখি বন্দ্যোপাধ্যায়৷ আজ শুক্রবার বর্তমান পরিবেশ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর কাছে নিজের পদত্যাগপত্র পাঠান বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়৷ শোভনবাবু পরিবেশমন্ত্রী থাকাকালীন পরিবেশ দপ্তরের পূর্ব কলকাতা জলাভূমি ব্যবস্থাপনা পর্ষদের গুরুত্বপূর্ণ কমিটির মাথায় ছিলেন তিনি৷ পরিবেশ দপ্তর সূত্রের খবর, শোভন চট্টোপাধ্যায়ের পদত্যাগের পর পরিবেশ দপ্তরের কমিটি থেকে অধ্যাপিকা বৈশাখি বন্দ্যোপাধ্যায়ের পদত্যাগ নিয়ে জল্পনা শুরু হয়৷

[মুশকিল আসান হোয়াটসঅ্যাপ, স্মৃতিশক্তি হারানো বৃদ্ধকে বাড়ি ফেরাল পুলিশ]

জানা গিয়েছে, গত বছর বর্ষার আগে পূর্ব কলকাতা জলাভূমি ব্যবস্থাপনা পর্ষদের নতুন বোর্ডের বৈঠক হয়৷ পর্ষদের ওই বৈঠকে বিশেষজ্ঞ সদস্য হিসেবেই বৈশাখি বন্দ্যোপাধ্যায়ের আনা হয়৷ সূত্রের খবর, তৎকালীন পরিবেশ মন্ত্রীর নির্দেশেই তাঁকে এই পদে বসানো হয়৷ পরিবেশ মন্ত্রীর সুপারিশ মেনেই বোর্ড তার কাজ করে থাকে৷ মূলত, দপ্তরের কাজ দেখভাল করার কাজ এই কমিটির৷ অভিযোগ, পরিবেশ মন্ত্রীর ইচ্ছার সৌজন্যে দপ্তরের আমলাদের সঙ্গে বৈশাখি এই বোর্ডে মাথায় বসেন৷ কিন্তু, দপ্তরের মন্ত্রী বদল হতেই ইস্তফা দেন বৈশাখি৷ এমনটাই জল্পনা পরিবেশ দপ্তরের কর্মীমহলে৷ এদিনের এই ইস্তফা প্রসঙ্গে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে বৈশাখি বন্দ্যোপাধ্যায় মন্তব্য করেন, ‘‘সঠিক সময় হলে সরে যেতে হয়৷’’

[প্রশ্ন বিভ্রাটের জেরে বন্ধ কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতার পরীক্ষা]

বর্তমানে মিল্লি আমিন কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্বে রয়েছেন বৈশাখি বন্দ্যোপাধ্যায়৷ এক সময়ে কলেজ শিক্ষকদের সংগঠন ওয়েবকুটার সদস্য থাকলেও ২০১৪-তে তিনি যোগ দেন তৃণমূল প্রভাবিত শিক্ষক সংগঠন ওয়েবকুপায়৷ সেখান থেকেই মন্ত্রী ও সংবাদমাধ্যমে ওঠাবসা বাড়ে৷ আকাশ ছুঁয়ে যায় অধ্যাপিকার প্রভাব-প্রতিপত্তিও৷ শোনা যায়, এর পর থেকেই মেয়রের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা জমতে শুরু করে৷ শোভন-বৈশাখির ঘনিষ্ঠতা নিয়ে শুরু হয় জলঘোলা৷ ‘মৃত্যু হলে’ও স্ত্রীর কাছে না ফিরে বৈশাখির পাশে থাকার বার্তাও দেন শোভন৷ রত্নাদেবীর সঙ্গে ঘর ভাঙার জেরে দলের অন্দরেও চাপে পড়েন মেয়র৷ পরে শোভনের থেকে মন্ত্রিত্ব ছিনিয়ে নেন মুখ্যমন্ত্রী৷ শোভনের হাত থেকে পরিবেশ দপ্তর নিয়ে নিতেই গুরুত্বপূর্ণ কমিটি থেকে ইস্তফা দেন বৈশাখি৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে