BREAKING NEWS

১৯ আষাঢ়  ১৪২৭  রবিবার ৫ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

সাধন পাণ্ডেকে দল থেকে তাড়াতে রাস্তায় ১৫ হাজার লোক নামানোর হুমকি পরেশ পালের

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: May 29, 2020 12:38 pm|    Updated: May 29, 2020 4:37 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের মন্ত্রী সাধন পাণ্ডের বিরুদ্ধে সুর চড়ালেন বেলেঘাটার তৃণমূল বিধায়ক পরেশ পাল। হুঁশিয়ারি দিলেন, সাধন পাণ্ডেকে দল থেকে তাড়াতে লকডাউন খুললেই ১৫ হাজার লোক নিয়ে রাস্তায় নামবেন তিনি। দু’দিন আগেই আমফান মোকাবিলা নিয়ে কলকাতা পুরসভার প্রশাসক তথা রাজ্যের পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের কড়া সমালোচনা করেছিলেন সাধন। তারপর থেকেই দলের অন্দরে তাঁকে নিয়ে ক্ষোভ বাড়ছে।

[আরও পড়ুন: পরিযায়ীদের জন্য কোয়ারেন্টাইন সেন্টার তৈরিতে আপত্তি, বিক্ষোভ উঃ ২৪ পরগনার বিভিন্ন প্রান্তে]

রাজ্য রাজনীতিতে সাধন বনাম পরেশ লড়াই নতুন কিছু নয়। থেকে থেকেই একে ওপরের বিরুদ্ধে সুর চড়িয়েছে দু’পক্ষই। এবার আমফান নিয়ে সমালোচনা করে সাধন কালীঘাটের রোষের মুখ পড়তেই নয়া মোর্চা খুলেছেন পরেশ। ক্রেতা সুরক্ষামন্ত্রীকে দল থেকে তাড়ানোর দাবি তুলে রীতিমতো সাংবাদিক সম্মেলন করলেন বেলেঘাটার তৃণমূল বিধায়ক। শুধু তাই নয়, চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পরেশের অভিযোগ, নিজের মেয়েকে সিবিআই, ইডির হাত থেকে বাঁচাতে বিজেপির সঙ্গে বোঝাপড়া করে তৃণমূলের ক্ষতি করছেন সাধন। প্রসঙ্গত, রোজভ্যালি মামলায় একাধিকবার ইডি তলব করেছিল সাধনকন্যা শ্রেয়া পাণ্ডেকে। সুর চড়িয়ে পরেশ আরও বলেন, শশী পাঁজা, অতীন ঘোষ, সাংসদ শান্তনু সেন-সহ দলের অনেকেরই সঙ্গে সংঘাত রয়েছে সাধনের।

উল্লেখ্য, আমফান পরবর্তী পরিস্থিতি সামলাতে ‘ব্যর্থ’ কলকাতা পুরসভা। শহরের বিধায়কদের মতামত নেননি দায়িত্বে থাকা পুরসভার প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম। এমনটাই তোপ দেগেছেন সাধন। তা নিয়ে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় পর্যন্ত টুইট করে লেখেন, রাজ্যের দুই মন্ত্রী যেভাবে প্রকাশ্যে বিতন্ডা করছেন তা দেখলেই বোঝা যাচ্ছে পরিস্থিতি কী। তারপরই প্রকাশ্যে সংবাদমাধ্যমে এমন তোপ দাগার জেরে দলীয় শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে শোকজ করা হয় রাজ্যের মন্ত্রী সাধন পাণ্ডেকে। দলের শীর্ষ নেতৃত্বের নির্দেশে উত্তর কলকাতা জেলা তৃণমূল সভাপতি সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় বুধবার দলের মানিকতলা কেন্দ্রের বিধায়ককে শোকজ করেন। প্রবীণ দলীয় নেতা হয়েও কেন তিনি দলীয় ফোরামে নিজের মতামত না জানিয়ে প্রকাশ্যে দলের মন্ত্রী তথা প্রশাসকদের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন তা জানতে চেয়েছে তৃণমূল।

[আরও পড়ুন: মুর্শিদাবাদ থেকে গ্রেপ্তার কুখ্যাত জেএমবি জঙ্গি আবদুল করিম]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement