BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

উত্তম অধ্যায়ের অবসান, সুপ্রিয়া দেবীর প্রয়াণে শোকাহত মুখ্যমন্ত্রী

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 26, 2018 4:36 am|    Updated: January 26, 2018 7:32 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: উত্তম নেই। সুপ্রিয়াও চলে গেলেন। ‘দাদা’র সঙ্গে কি আবার আর দেখা হবে? এই আলোচনার উত্তর না মিললেও বাংলা চলচ্চিত্র জগতে সুপ্রিয়া দেবীর অবদান কেউ ভুলতে পারবে না।

[প্রয়াত বাংলা চলচ্চিত্রের স্বর্ণযুগের প্রখ্যাত অভিনেত্রী সুপ্রিয়া দেবী]

সুপ্রিয়া দেবীর প্রয়াণে তাঁর সহকর্মী এবং শিল্পীদের কথায় ঘুরে-ফিরে এলে দীর্ঘশ্বাস। দীর্ঘ দিন সুপ্রিয়া দেবীর সঙ্গে কাজ করেছেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। প্রবীণ অভিনেতা জানান, খুবই কষ্টের। তাঁর বয়স হয়েছিল, সবই ঠিক। তবুও মানা যায় না। ষাট বছরের বন্ধুত্বর কথা বারবার মনে পড়ছে সৌমিত্রবাবুর। আর এক সহ অভিনেত্রী মাধবী মুখোপাধ্যায়ও বড় দুঃখ পেয়েছেন। শেষবেলায় সুপ্রিয়াদেবীর জীবন নিয়ে তিনি জানান কিছুটা একাকীত্বে ভুগতেন। ওনার বাড়িতে মাধবীদেবী গেলে তাঁকে থাকতে বলতেন। সেই দিদিকে যেন হারালেন মাধবীদেবী। অভিনেত্রী সন্ধ্যা রায়ের মুখেও একই কথা। যেন দিদি চলে গেলেন। আর এক সহকর্মী সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায় তাঁর মৃত্যুসংবাদ যেন বিশ্বাস করতে পারছেন না। সুপ্রিয়া দেবীর সঙ্গে নিয়মিত তাঁর যে কথা হত। মানবেন কী করে। পরিচালক তরুণ মজুমদারের অনুভূতি অনেকটা এক। তাঁর মতে একটা যুগ শেষ হয়ে গেল। এটা ট্র্যাজেডির। অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় এই খবরে মর্মাহত। ফেসবুকে লেখেন তাঁর অনেক স্মৃতি রয়েছে সুপ্রিয়াদেবীর সঙ্গে। কিংবদন্তি শিল্পী। তাঁর অবদান সবাই মনে রাখবে। পরিবারকে সমবেদনা জানান। পরিচালক গৌতম ঘোষ জানান, তাঁর মৃত্যুতে বাংলা চলচ্চিত্র জগতে বিরাট ক্ষতি হয়ে গেল। উত্তম কুমার প্রতিষ্ঠিত শিল্পী সংসদে সুপ্রিয়া দেবী বেশ কিছু দিন সভাপতি ছিলেন। সংসদের বর্তমান সদস্যরা জানান মানুষের সঙ্গে এই অভিনেত্রী একেবারে মিশে গিয়েছিলেন। মানুষের গভীরের অন্তঃস্থলে তিন পৌঁছে যেতেন। শিল্পী সংসদের তরফে তাঁর মরদেহ রবীন্দ্র সদনে রাখার জন্য রাজ্য সরকারের কাছে আবেদন জানানো হয়েছে। ওখানে যাতে তাঁর গুণমুগ্ধরা শ্রদ্ধা জানাতে পারেন তার জন্য এই উদ্যোগ। সংসদের কর্মীদের কথায়, অভিনয় কিংবা শুটিংয়ের কথা বলে তিনি উৎসাহ বোধ করতেন। শেষ দিন পর্যন্ত কাজ নিয়ে আগ্রহ ছিল।

 

[পদ্ম সম্মানে উজ্জ্বল ৫ বঙ্গসন্তান, সম্মানিত ধোনি]

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে তাঁর অন্তরঙ্গ সম্পর্ক ছিল। গভীর শোক প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। খবর পেয়েই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় খোঁজ নেন। তিনি জানান, বাংলা চলচ্চিত্র জগতের অপূরণীয় ক্ষতি হল। সুপ্রিয়া দেবীর মৃত্যু উত্তম অধ্যায়ের অবসান হিসাবেই দেখছেন তিনি। রেড রোডের অনুষ্ঠানের পর বালিগঞ্জ সার্কুলার রোডের বাড়িতে শ্রদ্ধা জানাতে যান মুখ্যমন্ত্রী।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement