১৪ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বুধবার ১ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

চাকরির টোপে সৌদি আরবে ‘দাস’ বাঙালি ইঞ্জিনিয়ার

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: November 10, 2016 7:44 pm|    Updated: November 10, 2016 7:44 pm

Bengali Engineer sold as slave in Saudi Arabia!

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চাকরির টোপে সৌদি আরবে গিয়ে বিপাকে বাঙালি যুবক৷ অভিযোগ, অটোমোবাইল সংস্থায় ভাল চাকরির বদলে উট খামারে দাসবৃত্তি করতে হয়েছে কলকাতার জয়ন্ত বিশ্বাসকে৷ জয়ন্তকে উদ্ধার করতে বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের কাছে আবেদন জানাল তাঁর পরিবার৷

পরিবারের কথা অনুযায়ী, অটোমোবাইলে ইঞ্জিনিয়ারিং পাশ করে চাকরির খোঁজে ছিলেন জয়ন্ত৷ সেই সময় দিল্লির এক এজেন্টের সঙ্গে পরিচয় হয় তাঁর৷ এক লক্ষ টাকার বিনিময়ে সৌদি আরবের অটোমোবাইল সংস্থায় চাকরির প্রস্তাব দেয় সে৷ সেই টাকা এজেন্টকে দিয়েও দেয় জয়ন্তর পরিবার৷ এরপর পর্যটক ভিসায় জয়ন্তকে রিয়াধে নিয়ে যাওয়া হয় ওই এজেন্টের সংস্থার পক্ষ থেকে৷ বলা হয় তিন মাস ওখানে থেকে কাজ করলেই ওয়ার্কিং ভিসা পাওয়া যায়৷

কিন্তু রিয়াধে জয়ন্তকে নিয়ে গিয়ে এক বিত্তবান সৌদি নাগরিকের হাতে বেচে দেওয়ার বলে অভিযোগ তাঁর দিদি গৌরী বিশ্বাসের৷ তাঁর কথায়, সেখানে জয়ন্তকে উটের খামারে কাজ করতে বাধ্য করা হয়৷ মাত্র একবেলা খেতে দেওয়া হত তাঁকে৷ কোনওক্রমে সেখান থেকে পালিয়ে ভারতীয় দূতাবাসে যোগাযোগও করেছিলেন জয়ন্ত৷ কিন্তু, যার কাছে তাঁকে বিক্রি করা হয়েছিল সেই সৌদি নাগরিক জয়ন্তর বিরুদ্ধে ১০,০০০ রিয়্যাল চুরির অভিযোগ আনে৷ রিয়াধ পুলিশ তাঁকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়৷ সেখান থেকে বাড়িতে যোগাযোগ করে জয়ন্ত৷ উদ্বিগ্ন পরিবার সেই এজেন্টের সঙ্গে যোগাযোগ করে৷ কিন্তু, এজেন্টের সংস্থার তরফে জানানো হয় ৩৫,০০০ টাকা দিলে ছাড়িয়ে আনা হবে তাঁকে৷ ২৭ অক্টোবর জেল থেকে ছাড়াও পান বাঙালি যুবক৷ কিন্তু এরপর থেকেই তাঁর কোনও খবর পরিবারের কাছে নেই বলে জানিয়েছেন জয়ন্তর দিদি৷

পুরো ঘটনা কেন্দ্রীয় বিদেশমন্ত্রকে জানিয়েছেন জয়ন্তর বাবা রবীন্দ্রনাথ বিশ্বাস৷ বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের কাছে বিদেশ মুলুক থেকে ছেলেকে উদ্ধার করে আনার আর্জি জানিয়েছেন তিনি৷ যদিও এখনও পর্যন্ত বিদেশমন্ত্রকের তরফে এবিষয়ে কোনও প্রতিক্রিয়া জানানো হয়নি৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে