২৭ আশ্বিন  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৫ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাস্তায় নেমেছে অতিরিক্ত বাস। চলছে অটো-ট্যাক্সি-ক্যাব। রয়েছে বিশেষ ট্রাম ও জলযানও। বাম এবং কংগ্রেসের ডাকা ধর্মঘটকে ব্যর্থ করে জনজীবন সচল রাখতে সমস্ত দিক থেকে প্রস্তুত পরিবহণ দপ্তর। কলকাতা এবং জেলায় সরকারের তরফে নামানো হয়েছে অতিরিক্ত বাস। ভোর থেকেই শহরের প্রত্যেক গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে রয়েছেন পরিবহণ দপ্তরের আধিকারিকরা। খোলা হয়েছে কন্ট্রোল রুম। রাস্তায় বেরিয়ে সাধারণ মানুষ যাতে সমস্যায় না পড়েন, সেদিকে নজর রেখে হাওড়া-শিয়ালদহ-এয়ারপোর্টে থাকছে বিশেষ বাস। পরিষেবা স্বাভাবিক রাখতে সমস্ত কর্মীর ছুটি বাতিল করা হয়েছে পরিবহণ দপ্তরের তরফে। সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি বাস-মিনিবাস মালিকরাও জানিয়েছেন, আজ অন্য দিনের মতোই পরিষেবা স্বাভাবিক রাখবেন তাঁরা। রাস্তায় নেমেছে অটো-ট্যাক্সি-ক্যাবও। একইসঙ্গে ধর্মঘট রুখতে রেলের তরফেও সমস্ত রকম বন্দোবস্ত করা হয়েছে। কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে প্রতি স্টেশনেই রাখা হয়েছে বাড়তি আরপিএফ। রেলের সম্পত্তি ভাঙচুর করা হলে তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে রেলের তরফে জানানো হয়েছে। মেট্রো স্টেশনেও মোতায়েন অতিরিক্ত বাহিনী।

[জ্বালানি জ্বালা মেটাতে পথে রাহুল, ‘বনধের বন্ধক’ জনতা ]

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যে ক্ষমতায় আসার পরই কর্মনাশা বনধকে গুডবাই জানিয়েছেন। তাই পেট্রোপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে কংগ্রেস-সিপিএমের ডাকা আজকের ধর্মঘটকে ব্যর্থ করে রাজ্য সচল রাখতে সমস্তরকম আয়োজন করেছেন প্রশাসনের কর্তারা। রাজ্যের পরিবহণ ও পরিবেশমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর নির্দেশে ডব্লুবিটিসি, এসবিএসটিসি এবং এনবিএসটিসি ভোর থেকে রাত পর্যন্ত বিশেষ পরিষেবা দেবে বলে জানানো হয়েছে। আজকের ধর্মঘটের মোকাবিলায় শনিবার পরিবহণ দপ্তরের কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন তাঁরা। ধর্মঘটে বাস ভাঙচুর হলে বিমার ব্যবস্থাও করা হয়েছে সরকারের তরফে। ধর্মঘটের দিন বাসে হামলা হলে অভিযোগ করার ৭২ ঘণ্টার মধ্যে বিমার টাকা দেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে।

পরিবহণ দপ্তর সূত্রে খবর, সাধারণ দিন ডব্লুবিটিসি-র বাস রাস্তায় নামে ১০০০টি। আজ সেই সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১২০০। এসবিএসটিসি-র ৬৩৩টি বাস চলে সাধারণ দিনে, আজ সেই সংখ্যা বাড়িয়ে ৭২১ করা হয়। অন্যদিকে এনবিএসটিসিও বাসের সংখ্যা বৃদ্ধি হয়েছে আজ। সাধারণ দিনে ৬০০ বাস চললেও আজ ৬৫০-৬৮০ টি চালানো হচ্ছে। অন্যদিকে বেসরকারি বাস-অটো, ট্যাক্সি মালিক এবং অ্যাপ ক্যাব সংস্থার আধিকারিকরাও জানিয়েছেন, অন্যদিনের মতোই আজ গাড়ি নামিয়েছেন তাঁরা। বাস-মিনিবাস সমন্বয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক রাহুল চট্টোপাধ্যায়ও শনিবার বলেছিলেন, “বাস সাধারণ দিনের মতোই রাস্তায় থাকবে। সাধারণ মানুষের যাতে সমস্যা না হয়, তা দেখা হবে।” আইএনটিটিইউসি-র অটো সংগঠনের তরফে জানানো হয়েছিল, সকাল থেকেই স্ট্যান্ডে অটো পাবেন যাত্রীরা। কোনও সমস্যা হবে না। 

[বনধে অশান্তির হুমকি, রাজ্যের ঘাড়ে দায় চাপাতে মরিয়া সূর্য]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং