২১ চৈত্র  ১৪২৬  শনিবার ৪ এপ্রিল ২০২০ 

Advertisement

এবার শহরের বাসস্ট্যান্ডেও করা যাবে শৌচকর্ম, অভিনব উদ্যোগ পুরসভার

Published by: Avirup Das |    Posted: February 15, 2020 6:02 pm|    Updated: February 15, 2020 8:19 pm

An Images

অভিরূপ দাস: যা কলকাতা মেট্রো স্টেশনে নেই। তা চালু হয়ে যাচ্ছে বাসস্ট্যান্ডে। বাস ধরার জন্য দীর্ঘক্ষণ ঠায় দাঁড়িয়ে যাত্রী। আচমকাই প্রস্রাব পেয়ে গেলে আর চিন্তায় পড়তে হবে না। কলকাতা পুরসভার উদ্যোগে শহরের বাসস্ট্যান্ডে বসতে চলেছে বায়ো টয়লেট। তৈরি হয়ে গিয়েছে। মেয়র ফিরহাদ হাকিমের নির্দেশ পেলেই তা বসানো শুরু হবে। আপাতত পে অ্যান্ড ইউজ হিসেবে ব্যবহৃত হবে এই টয়লেটগুলি।

মেট্রো স্টেশনে শৌচালয় না থাকায় বেজায় সমস্যার সম্মুখীন হন যাত্রীরা। কলকাতা মেট্রোর ২৪টি স্টেশনে যাত্রীদের জন্য কোনও শৌচালয় নেই। সম্প্রতি নোয়াপাড়া, শোভাবাজার, বেলগাছিয়া, শহীদ ক্ষুদিরামে শৌচালয় হলেও কবি সুভাষ থেকে দমদম পর্যন্ত মেট্রোর সিংহভাগ স্টেশনে শৌচালয় না থাকায় জরুরী অবস্থায় নাকাল হতে হয় যাত্রীদের। যাত্রীরা অনেক সময়েই বলেন, এভাবে মেট্রোয় ভ্রমণ করা অত্যন্ত কষ্টসাধ্য। প্রশ্ন উঠছে, শহরের অন্যতম লাইফলাইনে তবু কেন তৈরি হল না শৌচালয়? মেট্রো কর্তৃপক্ষ নানা সময়েই জানিয়েছেন, মেট্রোর পরিকাঠামো অত্যন্ত পুরনো এবং জটিল। ফলে সেখানে বাথরুম তৈরি করতে গেলে যে ধরনের নিকাশি ব্যবস্থার দরকার তা অত্যন্ত খরচ এবং সময় সাপেক্ষ। মেট্রো যাত্রীদের ভোগান্তি না কাটলেও এবার সেই সমস্যা মিটিয়ে ফেলল কলকাতা পুরসভা।

মেয়র পারিষদ তারক সিং জানিয়েছেন, বায়ো টয়লেট তৈরি। হাজার হাজার নিত্যযাত্রীদের আর সমস্যায় পড়তে হবে না। মেয়র ফিরহাদ হাকিম বললেই তা বসানো শুরু হবে। পুরসভা সূত্রে খবর, প্রাথমিকভাবে ব্যস্ততম বাসস্ট্যান্ডেই বসানো হবে এই টয়লেটগুলি। ধাপে ধাপে সমস্ত বাসস্ট্যান্ডেই তা বসবে। এন্টালি ওয়ার্কশপে তৈরি করা হয়েছে এই টয়লেটগুলি। স্টিলের তৈরি দশ ফুট উঁচু টয়লেটের মধ্যে রয়েছে কমোড, বেসিন, আয়না। সৌরচালিত আলো রয়েছে ভিতরে। টয়লেটের মাথায় রয়েছে ছোট্ট জলের ট্যাঙ্ক। ২২৫ লিটার জল ধরবে সেগুলিতে। মেয়র পারিষদ তারক সিংয়ের অনুমাণ, রাস্তায় যত্রতত্র প্রসাব করার প্রবণতা কমবে এই বায়োটয়লেট বসানোর পর।

সম্প্রতি মেয়রের কাছে ফোন করে কলকাতার এক নাগরিক জানান, বাসস্ট্যান্ডে শৌচালয়ের ব্যবস্থা থাকলে নিত্যযাত্রীদের সুবিধে হয়। পুরভোটের আগেই তা বসানোর প্রক্রিয়া শুরু হওয়ায় খুশি তিলোত্তমার নাগরিকরা। 

[আরও পড়ুন: লক্ষ্য পুরভোট, রুপোলি পর্দার অভিনেত্রীদের বেশি করে দলে চান ফিরহাদ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement