BREAKING NEWS

২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৪ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

বিজেপির নবান্ন অভিযানে ধুন্ধুমার, গুরুতর অসুস্থ রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়, ভরতি হাসপাতালে

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: October 8, 2020 1:54 pm|    Updated: October 8, 2020 6:23 pm

An Images

ফাইল ছবি।

রূপায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়: নবান্ন অভিযানে নেতৃত্ব দিতে গিয়ে পুলিশ-বিজেপি খণ্ডযুদ্ধে গুরুতর অসুস্থ রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়। বাইপাসের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে তাঁকে। শুরু হয়েছে চিকিসা।

Raju Banerjee

একাধিক ইস্যু নিয়ে আজ, বৃহ্স্পতিবার নবান্ন অভিযানের ডাক দিয়েছিল বিজেপি। সকাল ১১ টায় চার প্রান্ত থেকে মিছিল শুরু হয় নবান্নের উদ্দেশ্যে। বিভিন্ন জায়গায় পুলিশি বাধার মুখে পড়ে মিছিল। লাঠিচার্জ করে পুলিশ, ছোঁড়া হয় জলকামান। সাঁতরাগাছি থেকে মিছিল শুরু করে সাঁতরাগাছি ব্রিজের কিছুটা দূরে পুলিশের বাধার মুখে পড়ে রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় (Raju Banerjee), সায়ন্তন বসুদের মিছিল। সেখানে জলকামান ও কেমিক্যাল স্প্রে করা হয় বলে অভিযোগ। সেই রাসায়নিকেই অসুস্থ হয়ে পড়েন বিজেপি নেতা রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়।

chemical

শুরু হয় রক্তবমি। পরিস্থিতি ক্রমশ খারাপ হতে থাকায় সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় বাইপাসের ধারের হাসপাতালে। অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বিজেপি নেতা তাপস ঘোষ (Tapas Ghosh)। আহত অরবিন্দ মেনন, সায়ন্তন বসু ও জ্যোতির্ময় মাহাতো।

Tapas-ghosh

[আরও পড়ুন: বসছে না স্টল, জমায়েত-আড্ডায় নিষেধাজ্ঞা! পুজোয় নিয়ম মেনেই জনসংযোগ চায় তৃণমূল]

বিজেপির নবান্ন অভিযানকে কেন্দ্র করে সকাল থেকেই রণক্ষেত্রের চেহারা নিয়েছে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত। সাঁতরাগাছিতে আহত হন একাধিক নেতা-নেত্রী। দিলীপ ঘোষের (Dilip Ghosh) নেতৃত্বে একটি মিছিল হাওড়া ব্রিজে উঠতেই বাধা দেয় পুলিশ। শুরু হয় লাঠিচার্জ। দিলীপ ঘোষের অভিযোগ, তাঁর উপরও লাঠিচার্জ করা হয়। পড়ে যান তিনি। জখম হন বেশ কয়েকজন কর্মী। ইতিমধ্যেই তাঁদের পাঠানো হয়েছে হাসপাতালে। অন্যদিকে পুলিশের কিয়স্ক ভাঙচুর চালানো হয় হাওড়া ময়দানে। বোমাবাজিও করা হয় বলে অভিযোগ। ধুন্ধুমার পরিস্থিতি তৈরি হয় সেখানেও। খিদিরপুরে বিজেপি (BJP) কর্মীদের লক্ষ্য করে ইটবৃষ্টির অভিযোগ উঠেছে। লকেট চট্টোপাধ্যায়ের (Locket Chatterjee) অভিযোগ, বিজেপি নেতা রাকেশ সিংয়ের মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়েছে।

[আরও পড়ুন:উৎসবের মরশুমে শিকেয় দূরত্ববিধি, করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির আশঙ্কায় প্রস্তুতি স্বাস্থ্যদপ্তরের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement