BREAKING NEWS

৩ বৈশাখ  ১৪২৮  শনিবার ১৭ এপ্রিল ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

‘খেলবই না’, তৃণমূলের ‘খেলা হবে’ স্লোগানকে তাচ্ছিল্য বিজেপি প্রার্থী বাবুল সুপ্রিয়র

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: March 14, 2021 9:03 pm|    Updated: March 14, 2021 9:43 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: একুশের ভোটের আগে বঙ্গ রাজনীতিতে ‘খেলা হবে’ স্লোগান এখন প্রায় সর্বজনীন। তৃণমূলের ছাত্রনেতার তৈরি স্লোগানটি এখন নানা রাজনৈতিক শিবির নানাভাবে কাজে লাগাচ্ছে। কিন্তু এই ধ্বনিকে এতটুকুও গুরুত্ব দিতে রাজি নন টালিগঞ্জে (Tollygunge) হেভিওয়েট বিজেপি প্রার্থী বাবুল সুপ্রিয় (Babul Supriya)। ‘সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল’-এর ফেসবুক লাইভে তিনি কার্যত তাচ্ছিল্য হয়েই বললেন, ”খেলবই না। ওরা যে খেলার কথা বলছে, তা তো যুদ্ধের ডাক। মানুষের জীবন নিয়ে এরকম খেলা করা যায় না।” তৃণমূলের অত্যন্ত শক্ত ঘাঁটি টালিগঞ্জ জয়ের ব্যাপারে বেশ আত্মবিশ্বাসী শোনাল কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। বললেন, ”টালিগঞ্জের সমর্থন আমিই পাব।”

বিকেলেই দ্বিতীয় দফার প্রার্থী ঘোষণা করেছে বিজেপি (BJP)। জল্পনা সত্যি করে টালিগঞ্জের মতো গুরুত্বপূর্ণ বিধানসভা কেন্দ্রে আসানসোলের সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়কে সৈনিক করেছে গেরুয়া শিবির। নতুন লড়াইয়ে নামার আগে ফেসবুক লাইভে ‘সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল’-এর মুখোমুখি হলেন তিনি। অকপটে বললেন অনেক কথাই। টালিগঞ্জ কেন্দ্র অর্থাৎ মূলত টলিপাড়ার নিয়ন্ত্রণ বর্তমানে রাজ্যের মন্ত্রী তথা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ অরূপ বিশ্বাস ও তাঁর ভাই স্বরূপ বিশ্বাসের উপর, এমনই বিস্ফোরক অভিযোগ তুলে এদিন থেকেই নিজের প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানালেন বাবুল। প্রসঙ্গত, টালিগঞ্জ কেন্দ্রের তাঁর মূল প্রতিদ্বন্দ্বী অরূপ বিশ্বাস। বাবুলের কথায়, ”কন্ট্রোল বাটনটাই তুলে দেওয়া উচিত। ওঁরা নিজেদের মতো সব নিয়ন্ত্রণ করেন। পছন্দ না হলে যে কোনও শিল্পীকে শুটিং থেকে বের করে দেন, টেকনিশিয়ানদের প্রতি পক্ষপাত করেন। কেন এমন হবে?” এরপরই ‘খেলা হবে’ স্লোগান নিয়ে তাচ্ছিল্যের সুরে তাঁর মন্তব্য, ‘খেলবই না’।

[আরও পডুন: কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে বন্ধ অস্ত্রোপচার, বেজায় বিপাকে রোগীরা]

একুশের ভোটে লড়তে কেন গেরুয়া শিবিরের এতজন সাংসদকে মাঠে নামাতে হচ্ছে? আজকের দিনে রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বীর সঙ্গে স্বাভাবিক সৌজন্যের ছবিটাই বা কেমন? সব প্রশ্নের উত্তর দিলেন বাবুল সুপ্রিয়। কখনও গানের অনুসঙ্গে, কখনও আবার ধারালো রাজনৈতিক যুক্তি দিয়ে। সাংসদদের বিধানসভা ভোটের ময়দানে নামানো নিয়ে তাঁর উত্তর, ”বিজেপি একটা শৃঙ্খলাবদ্ধ দল। এখানে যোগ্য মনে করলে ভোটের টিকিট দেওয়া হয়। কাউকে ব্যক্তিগত পছন্দ বা অপছন্দের ভিত্তিতে প্রার্থী করা হয় না। ফলে দলের সবাই মিলে যা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তাই হয়েছে।” প্রতিদ্বন্দ্বী অরূপ বিশ্বাসের সঙ্গে কি সৌজন্যের সম্পর্ক? না, মোটেই তেমনটা নয়। রাখঢাক না রেখেই তিনি সাফ জানালেন, ”একসঙ্গে কফি খাওয়ার সৌজন্যটুকুও নেই। আমিও কোনও চায়ের আসরে ওঁকে ডাকব না, উনিও ডাকবেন না। তবে টালিগঞ্জের কাজে কোনও বৈঠকে ডাকলে অবশ্যই যাব।”

[আরও পডুন: প্রার্থী তালিকা নিয়ে অসন্তোষ, বিজেপির সঙ্গে সম্পর্ক ছেদ শোভন-বৈশাখীর]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement