BREAKING NEWS

১২ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  রবিবার ২৯ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

Kolkata Municipal Election 2021: পুরভোটে সমস্ত বুথেই রাখতে হবে সিসিটিভি, রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে নির্দেশ কলকাতা হাই কোর্টের

Published by: Paramita Paul |    Posted: December 14, 2021 1:37 pm|    Updated: December 14, 2021 1:49 pm

Calcutta HC directs West Bengal Election Commission to put CCTV in all booths for Kolkata Municipal Election 2021 | Sangbad Pratidin

শুভঙ্কর বসু: কলকাতা পুরসভার (Kolkata Municipal Election 2021) ভোটে সমস্ত বুথেই সিসিটিভি রাখতে হবে। সিসিটিভি রাখতে হবে স্ট্রং রুমেও। এক জনস্বার্থ মামলার ভিত্তিতে মঙ্গলবার এমন রায় দিল কলকাতা হাই কোর্ট। পাশাপাশি, পুরভোটে কেন্দ্রীয় বাহিনী চেয়ে আদালতের দ্বারস্থ হল বিজেপি। এদিন দুপুরেই সেই মামলার শুনানি।

পুরভোটে স্পর্শকাতরতার নিরিখে ২৫ শতাংশ বুথে সিসিটিভি (CCTV) বসানোর পরিকল্পনা নিয়েছিল রাজ্য নির্বাচন কমিশন (West Bengal Election Commission)। এর প্রেক্ষিতে কলকাতা হাই কোর্টে জনস্বার্থ মামলা হয়। মামলাকারীর দাবি, গত বিধানসভা ভোটে রাজ্যের বিভিন্ন অংশে অশান্তির ঘটনা ঘটেছে। চলেছে গুলিও। এমনকী, কলেজে নির্বাচনেও অশান্তি হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন মামলাকারী। তাঁর আরও দাবি, ইভিএমের সঙ্গে ভিভিপ্যাট থাকছে না। ফলে নিরাপত্তার জন্য সিসিটিভি থাকা দরকার। এমন পরিস্থিতিতে আগত পুরভোটে পুলিশবাহিনী বৃদ্ধি ও সমস্ত বুথে সিসিটিভি লাগানোর আবেদন জানিয়ে জনস্বার্থ মামলা হয়।

[আরও পড়ুন: Virat Kohli: প্রকাশ্যে বোর্ড-বিরাট বিবাদ? দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ওয়ানডে সিরিজ থেকে সরছেন কোহলি!]

এদিন সেই জনস্বার্থ মামলার শুনানি ছিল প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব এবং বিচারপতির রাজর্ষি ভরদ্বাজের ডিভিশন বেঞ্চে। শুনানি শেষে বিচারপতিরা কলকাতা পুরভোটে ৪ হাজার ৪৮২টি বুথ এবং ৩৬৫টি অতিরিক্ত বুথে সিসিটিভি লাগানোর নির্দেশ দিন। পাশাপাশি স্ট্রং রুমেও সিসিটিভি লাগানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে নির্বাচন কমিশনকে। রায়ের প্রেক্ষিতে কমিশনের আইনজীবী জানিয়েছেন, সমস্ত বুথে সিসিটিভি লাগাতে আপত্তি নেই।

প্রসঙ্গত,  কলকাতা পুরভোটে (KMC Election 2021) কেন্দ্রীয় বাহিনী চেয়ে শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিল বঙ্গ বিজেপি। সোমবার তাদের আবেদন শোনেনি শীর্ষ আদালত (Supreme Court)। উলটে হাই কোর্টের দ্বারস্থ হওয়ার পরামর্শ দেন বিচারপতিরা। বলেছিলেন, বিচারপতি এল নাগেশ্বর রাও বলেন, “ভোটে কেন্দ্রীয় বাহিনী নিয়োগ সম্পর্কে আমরা কোনও সিদ্ধান্ত নিতে পারি না। এই পরিস্থিতিটা ভাল বুঝবে হাই কোর্ট।” ফলে শীর্ষ আদালত থেকে আবেদন প্রত্যাহার করে নেয় বিজেপি। এদিন সেই মতো এদিন হাই কোর্টে মামলা দায়ের করেছে।  

[আরও পড়ুন: হিন্দু ধর্মের বিরুদ্ধে হেঁটে বিয়ে আয়োজনের অভিযোগ, চলল গুলি, মৃত এক]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে