৩০ চৈত্র  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১৩ এপ্রিল ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

প্রোমোটিং নিয়ে বিবাদের জেরে রণক্ষেত্র রাজাবাজার, একজনকে কুপিয়ে খুনের চেষ্টা

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: December 21, 2020 8:53 am|    Updated: December 21, 2020 8:56 am

An Images

অর্ণব আইচ: বেআইনি নির্মাণ ঘিরে দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষে রণক্ষেত্র হয়ে উঠল রাজাবাজার (Rajabazar) এলাকা। এক গোষ্ঠীর সদস্যরা ধারালো অস্ত্র নিয়ে অপর গোষ্ঠীর একজনকে কুপিয়ে খুনের চেষ্টা করে বলে অভিযোগ। আক্রান্তের নাম সেলিম। হামলার পর তড়িঘড়ি তাঁকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, সেলিমের অবস্থা আশঙ্কাজনক। অন্য গোষ্ঠীর ওয়াসিম ও সায়েকের অভিযোগ, তাঁদের উপর হামলা চালানো হয়েছে। ভাঙচুর করা হয়েছে গাড়ি ও একটি হোটেল। এ নিয়ে বেশ রাত পর্যন্ত উত্তেজনা জারি ছিল এলাকায়।

পুলিশ সূত্রে খবর, রবিবার প্রোমোটিং বিবাদকে কেন্দ্র করেই এক গোষ্ঠী অন্য গোষ্ঠীর উপর হামলা চালায় বলে অভিযোগ। হামলা ও পালটা হামলার খবর পেয়ে উত্তর কলকাতার আমহার্স্ট স্ট্রিটে থানার পুলিশবাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছয়। পূর্ব কলকাতা থেকেও পুলিশবাহিনী পৌঁছয় ঘটনাস্থলে। এলাকায় র‍্যাফ (RAF) নামানো হয়। গোলমাল ঘিরে অবরুদ্ধ হয়ে যায় রাস্তা। কয়েকটি বাড়িতেও হামলা ও ভাঙচুর চালানো হয় বলে অভিযোগ। রাতে দুই গোষ্ঠী একে অপরের বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ জানায়।

[আরও পড়ুন: মাথায় আঘাত করে বিড়াল খুন ঘিরে তোলপাড়, প্রতিবেশীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের মহিলার]

এলাকার বাসিন্দা ওয়াসিমের অভিযোগ, তাঁর বাড়ির কাছে বেআইনি নির্মাণ ও প্রোমোটিংয়ের কাজ চলছিল। তিনি তার প্রতিবাদ করেছিলেন। সেই কারণেই তাঁর উপর চড়াও হয় বিরুদ্ধে গোষ্ঠীর জাহাঙ্গির, গুড্ডু, সালু, আলমরা। বাড়িতে ঢুকে তাঁকে প্রচণ্ড মারধর করা হয়। তাঁর গাড়ি ও একটি হোটেল ভাঙচুর চালানো হয়। তার ভাগ্নে সায়েককেও ব্যাপক মারধর করা হয় বলে তাঁর অভিযোগ। এদিকে, আহত সেলিমের ভাই ্ত্রণেসাজিদের পালটা অভিযোগ, প্রোমোটিং নিয়ে গোলমালের জেরেই সায়েকের লোকেরা তাঁর ভাই সেলিমের উপর হামলা চালায়। তাঁকে চপার দিয়ে আঘাত করে। সেলিমের শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাত লাগে। রক্তাক্ত অবস্থায় সেলিমকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক।

[আরও পড়ুন: মমতাকে ফোন শরদ পওয়ারের, বিজেপি বিরোধী লড়াইয়ে পাশে থাকার বার্তা NCP সুপ্রিমোর]

বেশ রাত পর্যন্ত রাজাবাজার জুড়ে পরিস্থিতি ছিল উত্তপ্ত। তা নিয়ন্ত্রণে ঘটনাস্থলে যান পুলিশকর্তারা। তাঁদের হস্তক্ষেপে রাতে অবস্থা অনেকটাই আয়ত্তে আসে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, এলাকায় প্রোমোটিং ও নির্মাণের কাজ ঘিরে তোলাবাজি চলছে। অনেক সময় সিন্ডিকেটের মধ্যেও নির্মাণের জিনিস সরবরাহ করা নিয়ে গোলমাল হয়। এদিনের এই সংঘর্ষ ঠিক কী কারণে, তার তদন্ত শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement