BREAKING NEWS

২৭ আষাঢ়  ১৪২৭  রবিবার ১২ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

করোনাকে হারানো যায়, হাসপাতালে গিয়ে জীবনযুদ্ধের মন্ত্র শেখাবেন কোভিড জয়ীরা

Published by: Paramita Paul |    Posted: June 29, 2020 5:24 pm|    Updated: June 29, 2020 6:06 pm

An Images

ধ্রুবজ্যোতি বন্দ্যোপাধ্যায়: কোভিড জয়ীদের (Corona Warriors) নিয়ে নয়া পরিকল্পনা রাজ্যের। করোনাকে হারিয়ে ফিরে এসেছেন অনেকেই। মৃত্যুকে খুব কাছ থেকে দেখেছেন। বুঝেছেন, করোনাকেও জয় করা যায়। অথচ সেই মহামারীর আতঙ্কে কাঁটা অনেকেই। এমনকী, করোনা রোগীদের অস্পৃশ্য করে দিচ্ছেন কেউ কেউ। এবার রাজ্যবাসীর মন থেকে সেই ভয় কাটাতে ও করোনা আক্রান্তদের মনোবল বাড়াতে বড় ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Bannerjee)। জানালেন, করোনা জয়ীদের নিয়ে জেলায়-জেলায় তৈরি হচ্ছে ‘কোভিড ওয়ারিয়ার্স ক্লাব’ (Covid Warriors Club)। অর্থাৎ যাঁরা করোনাকে হারিয়ে ফিরে এসেছেন, তাঁরা এবার করোনা রোগীদের মনোবল বাড়াবেন। হাসপাতালে-হাসপাতালে গিয়ে কাজ করবেন তাঁরা। সোমবার নবান্নে সাংবাদিক বৈঠক করে ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

রাজ্যে করোনাকে হারিয়ে সুস্থ জীবনে ফিরে এসেছেন বহু মানুষ। ১০ হাজার পেরিয়ে গিয়েছে এই সংখ্যাটা। তাঁদের এবার কাজে লাগানোর কথা ভাবছে রাজ্য সরকার। করোনা রোগীদের মনোবল বাড়াতে বিভিন্ন হাসপাতালে গিয়ে গিয়ে করোনা রোগীদের সঙ্গে কথা বলবেন তাঁরা। এমনকী, খাবার পৌঁছে দেওয়ার মতো কাজ করতে পারবেন। যাঁরা স্বেচ্ছায় এগিয়ে আসবেন তাঁদের স্বাগত জানানো হবে। তাঁরা বিভিন্ন জেলায় নাম নথিভুক্ত করতে পারবে।  প্রসঙ্গত, চিকিৎসকরা আগেই জানিয়েছেন, যাঁরা একবার করোনাকে জয় করে ফিরে এসেছেন, তাঁদের দ্বিতীয়বার করোনা আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা অনেকটাই কম। উপরন্তু যাঁরা করোনাকে কাছ থেকে দেখেছেন তাঁদের সঙ্গে কথা বললে করোনা আক্রান্তরা অনেকটাই আশ্বস্ত হবেন বলে মনে করেন মুখ্যমন্ত্রী। তবে এ ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট নিয়ম-কানুন মানা হবে বলেই জানিয়েছেন তিনি।  ওই কোভিড জয়ীদের সাম্মানিক অর্থ ও থাকা-খাওয়া রাজ্যের তরফেই দেওয়া হবে।

[আরও পড়ুন : রাজ্যে এবার এক ফোনেই চিকিৎসা পাবেন অসুস্থরা, বড়সড় ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর]

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, ইতিমধ্যে বহরমপুর থেকে এই ক্লাব তৈরির কাজ শুরু হয়েছে। সেখানে ৬০ জন নাম লিখিয়েছেন। তাঁধের মধ্যে ১০ জন মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল, ১০ জন মালদা মেডিক্যাল ও বাকি ৪০ জন কলকাতার বিভিন্ন হাসপাতালে কাজ করবেন। মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, “দেশের বিভিন্ন রাজ্য এই কাজটা করার পরিকল্পনা করছিল। বাংলা সবচেয়ে প্রথম এই ক্লাব তৈরি করল।” 

[আরও পড়ুন : COVID যোদ্ধাদের কুর্নিশ রাজ্য সরকারের, ১ জুলাই রাজ্যে সাধারণ ছুটি ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement