৯ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

সিপিএম-কংগ্রেসের সম্পর্কে ফাটল ধরিয়ে দিল তৃণমূল!

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 23, 2016 11:32 am|    Updated: June 23, 2016 11:32 am

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: জোট থাকবে কি না তা নিয়ে যখন বিতর্ক তুঙ্গে, ঠিক সেই সময়ই সিপিএম-কংগ্রেসের সম্পর্কে ফাটল ধরিয়ে দিল তৃণমূল৷ মূল কাজটা করলেন বরানগরের তৃণমূল বিধায়ক তথা বিধানসভার সরকারি ডেপুটি চিফ হুইপ তাপস রায়৷ বিধানসভায় তথ্য তুলে ধরে দাবি করলেন, বাম-কংগ্রেসের জোট বলে কিছুই ছিল না৷ পুরোটাই ছিল চমকের রাজনীতি৷ আর রাজ্যের মানুষ জোটকে তো গ্রহণ করেনইনি৷ উল্টে তৃণমূলের প্রতি আস্থা আরও বাড়িয়ে দিয়েছেন৷

গত তিন দিন ধরে সিপিএম-কংগ্রেসের সম্পর্ক নিয়ে রাজনৈতিক মহলে তুমুল আলোচনা চলছে৷ বিশেষত সিপিএমের কেন্দ্রীয় কমিটির রিপোর্টের পর কংগ্রেসকে বাদ দিয়েই কর্মসূচি নিচ্ছে বামফ্রণ্ট৷ এই অবস্থায় বিধানসভার ভিতরেও রাজ্যপালের ভাষণের উপর আলোচনায় বারবার ঘুরেফিরে এসেছে জোট প্রসঙ্গ৷ তৃণমূল বিধায়ক তাপস রায় বলেন, “সিপিএম-কংগ্রেসের মধ্যে প্রেম আগে ছিল গোপনে৷ পরে হয় প্রকাশ্যে৷ এখন আলাদা হতে চাইছে৷ যা পরিস্থিতি তাতে বিচ্ছেদ অনিবার্য৷” তাপসবাবু উল্লেখ করেন, “দেবতা আর গণদেবতার মাঝে আছেন মমতা৷ পশ্চিমে সূর্য অস্ত গিয়েছে৷ আর বুবাবু মালাবদলের পর ঘরে ঢুকে গিয়েছেন৷ মানুষ থেকে কেন বিচ্ছিন্ন সেটা অনুধাবন না করে শুধু ভোটে জেতার জন্য জোট করেছিল সিপিএম৷” তাপসবাবুর বক্তব্যের মাঝেই ওয়াকআউট করে বামেরা৷ তাদের যুক্তি, ফাটা বাঁশে আটকে গিয়েছে, নির্লজ্জ-বেহায়ার মতো একাধিক অশ্লীল শব্দ ব্যবহার করেছেন তৃণমূল বিধায়ক৷ স্পিকারের কাছে তৃণমূল বিধায়কের নামে অভিযোগও জানান বাম পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তী৷ এদিন জোটকে কটাক্ষ করেন বিধায়ক সব্যসাচী দত্ত৷

বামেদের দেখাদেখি কংগ্রেসও একই সময়ে ওয়াকআউট করে অধিবেশন৷ সেই সময় অধিবেশন কক্ষে ছিলেন না বিরোধী দলনেতা আবদুল মান্নান৷ ক্ষুব্ধ মান্নান মিনিট পনেরো পরে ফের কংগ্রেস বিধায়কদের নিয়ে অধিবেশন কক্ষে ঢোকেন৷ তাতেই স্পষ্ট হয়ে যায় বাম-কংগ্রেসের জোটে ফাটলের ছবি৷ এ বিষয়ে বিরোধী দলনেতা আবদুল মান্নানের যুক্তি, “আমরা শুধু তাপস রায়ের বক্তব্যের সময় ওয়াকআউট করেছিলাম৷ পরে আবার ফিরে এসেছি আমাদের দু’জন বিধায়কের বক্তব্য বাকি ছিল৷” তৃণমূল বিধায়ক সৌরভ চক্রবর্তীর বক্তব্যেও ধরা পড়েছে কেন অপ্রাসঙ্গিক জোট৷

বিধানসভার ভিতরে যখন জোটের ভাঙন, বাইরে তখন একই অবস্থা৷ এদিনই মূল্যবৃদ্ধি ইস্যুতে বামেদের কর্মসূচিতে ডাকা হয়নি কংগ্রেসকে৷ আবার ২৫ জুন কংগ্রেসের মিছিলে সিপিএম রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্রকে ডাকা হলেও তিনি যাচ্ছেন না বলেই খবর৷ কংগ্রেসের কর্মসূচিতে আদৌ যাওয়া হবে কি না, তা নিয়ে বাম বিধায়কদের সঙ্গে কথা বলে ঠিক করবেন সুজন চক্রবর্তী৷ যদিও বাজেটের আলোচনার দিনে কংগ্রেসের কর্মসূচি নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে৷ ২৪ জুন, শুক্রবার বেলা চটোয় বিধানসভায় বাজেট পেশ করবেন রাজ্যের অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র৷ শনিবার থেকে শুরু হবে বাজেট নিয়ে আলোচনা৷ সিপিএম-কংগ্রেসের এখন যা অবস্থা, তাতে জোট আদৌ থাকবে কি না, সেটাই বড় প্রশ্ন!

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement