BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

রাজভবনের চা-চক্রে কেন গরহাজির রাজ্যের প্রশাসনিক কর্তারা? প্রশ্ন তুললেন সুজন চক্রবর্তী

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: August 16, 2020 7:23 pm|    Updated: August 16, 2020 8:04 pm

An Images

বুদ্ধদেব সেনগুপ্ত: স্বাধীনতা দিবসে রাজভবনের চা-চক্রে রাজ্যের প্রশাসনিক আধিকারিকরা কেন অনুপস্থিত থাকলেন তা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন বাম পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী। সময়ের অনেক আগেই মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে রাজভবনে গিয়ে তাঁরা তৃণমূলের দলীয় কর্মীর মতো আচরণ করছেন বলে অভিযোগ তাঁর।

স্বাধীনতা দিবসের দিন রাজভবনের চা-চক্র একটি পরম্পরা। মুখ্যমন্ত্রী ছাড়াও রাজ্যের শীর্ষ প্রশাসনিক আধিকারিকরা সেখানে উপস্থিত থাকেন। আমন্ত্রিত থাকেন বিরোধী রাজনৈতিক দলের শীর্ষনেতৃত্ব ও গণ্যমান্যরাও। শনিবার বিকেল পাঁচটায় এই অনুষ্ঠান হওয়ার কথা থাকলেও অনেক আগেই রাজভবনে গিয়ে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর সঙ্গে ছিলেন প্রশানের শীর্ষ কয়েকজন আধিকারিক। করোনা আবহে ভির এড়াতেই তিনি সময়ের আগেই এসেছেন বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু প্রশাসনের শীর্ষ আধিকারিকরা কেন রাজ্যপালের চা-চক্র এড়িয়ে গেলেন তা নিয়ে সরব হলেন বাম পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী।

[আরও পড়ুন: ৩০ বছরের ছায়াসঙ্গীর প্রয়াণ, দিলীপ গিরিকে হারিয়ে নিঃসঙ্গ বিমান বসু]

তাঁর অভিযোগ, প্রশাসনিক কর্তারা যে আচরণ করেছেন তা দৃষ্টিকটু। কেন মুখ্যসচিব বা স্বরাষ্ট্রসচিব, ডিজিপি বা পুলিশ কমিশনার অনুপস্থিত থাকলেন তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তিনি। আধিকারিকরা মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে গিয়ে দলীয় বাহিনীর মতো আচরণ করেছেন। এতে প্রমাণ হয় রাজ্যে প্রশাসন বলে কিছু নেই। যারা আছেন তারা ভেকধরা পার্টি। স্বাধীন প্রশাসনিক কোনও মনোভাব নেই। এই ঘটলা দুর্ভাগ্যজনক বলে মন্তব্য তরেন তিনি। করোনা আহবে মুখ্যমন্ত্রী সবসময় রাজনৈতিক মনোভাব নিয়ে চলছেন বলে অভিযোগ সুজনের। এটা আড্ডার সময় নয়। মুখ্যমন্ত্রী দুপুরে গিয়েছিলেন রাজনীতি করতে বলে অভিযোগ তাঁর।

[আরও পড়ুন: ‘ফাঁকা চেয়ার অনেক কথা বলে!’ রাজভবনে চা-চক্রে মমতার অনুপস্থিতিতে রুষ্ট ধনকড়]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement