BREAKING NEWS

৭ মাঘ  ১৪২৮  শুক্রবার ২১ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

বিবেকানন্দ উড়ালপুল-কাণ্ড: গাফিলতি স্বীকার দুই ইঞ্জিনিয়ারের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 29, 2016 4:50 pm|    Updated: October 27, 2018 5:37 pm

Engineer accept negligence at Vivekananda Uralpul case

স্টাফ রিপোর্টার: পোস্তায় উড়ালপুল ভেঙে পড়ার ঘটনায় গাফিলতির অভিযোগ স্বীকার করলেন ধৃত দুই কেএমডিএ-র ইঞ্জিনিয়ার প্রিয়তোষ ভট্টাচার্য ও শান্তনু মণ্ডল৷ মঙ্গলবার রাতে লালবাজারে গোয়েন্দা পুলিশের জেরার মুখে এক্সিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার শান্তনু মণ্ডল স্বীকার করেন যে, গত ৩০ মার্চ রাত ও ৩১ মার্চ সকালে ফ্লাইওভারে ঢালাইয়ের কাজ চলার সময় সেখানে তিনি উপস্থিত ছিলেন না৷

পোস্তায় বিবেকানন্দ উড়ালপুল প্রকল্পের দায়িত্বে ছিলেন কেএমডিএ-র তৎকালীন চিফ ইঞ্জিনিয়ার(এডি সেক্টর) প্রিয়তোষ ভট্টাচার্য ও এক্সিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার (এডি সেক্টর) শান্তনু মণ্ডল৷ নিয়ম অনুযায়ী, ঢালাইয়ের মতো গুরুত্বপূর্ণ কাজের সময় কেএমডিএ-র ইঞ্জিনিয়ার ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকার কথা৷ শান্তনুবাবুর তত্ত্বাবধানেই ফ্লাইওভার তৈরির কাজ চলার কথা ছিল৷কিন্তু তিনি ছিলেন না বলে এদিন স্বীকার করে নেন৷

৩১ মার্চের স্মৃতি এখনও শহরবাসীর মনে টাটকা৷ মধ্য কলকাতার গণেশ টকিজে হঠাৎ ভেঙে পড়ে বিবেকানন্দ ফ্লাইওভার৷ মৃত্যু হয় কমপক্ষে ২৬ জনের৷ ঘটনায় নির্মাতা সংস্থা আইভিআরসিএল-এর ধৃত দশজন কর্তার বিরু‌দ্ধে চার্জশিট দাখিল করে কলকাতা পুলিশ৷ একই দিনে ওই দুই কেএমডিএ কর্তাকে গ্রেফতার করেন লালবাজারের গোয়েন্দারা৷ উল্লেখ্য, ঘটনার পর পরই দু’জনকে সাসপেন্ড করেছিল কেএমডিএ৷ বুধবার ধৃত দু’জনকেই ব্যাঙ্কশাল আদালতে তোলা হবে৷

মঙ্গলবার রাতে পুলিশকে প্রিয়তোষবাবু জানান যে, তিনি জানতেন যে ৩০ এপ্রিল রাতে গণেশ টকিজে ৪০ নম্বর পিলারের উপর ঢালাইয়ের কাজ হবে৷ কিন্তু সেখানে তিনি বা শান্তনুবাবু কেউই যাননি৷ ধৃত দুই ইঞ্জিনিয়ারের যে গাফিলতি ছিল, তার প্রমাণ মিলেছে বলে দাবি গোয়েন্দা পুলিশের৷

পুলিশের অভিযোগ, নিম্নমানের ও চওড়ায় কম জেনেও উড়ালপুলের ইস্পাত তাঁরা বাতিল না করে পরবর্তী পরীক্ষার জন্য পাঠান৷ শেষ পর্যন্ত ওই মানের ইস্পাতের পাত তাঁরা ব্যবহার করার অনুমতি দেন৷ উল্লেখ্য, ইস্পাতের মান দেখার দায়িত্বও প্রকল্পের দায়িত্বে থাকা কেএমডিএর কর্তাদের উপরও বর্তায়৷ দুই ইঞ্জিনিয়ারের ব্যাঙ্কের অ্যাকাউন্টগুলি খতিয়ে দেখা হবে৷ তাঁদের সম্পত্তির পরিমাণও দেখবেন গোয়েন্দারা৷ উড়ালপুল নির্মাণসংস্থার কোন কর্তাদের সঙ্গে কাজ ছাড়াও তাঁরা যোগাযোগ রাখতেন, তা জানতে দু’জনের মোবাইল ফোনের কল লিস্টও খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে