১২ মাঘ  ১৪২৮  বুধবার ২৬ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

মদেও ভেজাল! খাস কলকাতায় তল্লাশি চালিয়ে গ্রেপ্তার দালাল চক্রের ৫ পাণ্ডা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 13, 2018 9:39 pm|    Updated: June 13, 2018 9:41 pm

Excise depertment arrested five dossy alcohol trafficker

অর্নব আইচ: ‘ডিউটি ফ্রি’ বিদেশি মদে ভেজাল মিশিয়ে তা বিক্রির অভিযোগ উঠল খোদ শহর কলকাতায়। এর পিছনে থাকা চক্রের সন্ধান পেয়ে, পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করল রাজ্য আবগারি দপ্তর৷ গত দু’দিন ধরে মধ্য ও উত্তর কলকাতার বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি চালিয়ে তাদের পাকড়াও করা হয়। উদ্ধার হয় ২০টি বিদেশি ‘ডিউটি ফ্রি’ মদের বোতল।

[সেন্ট্রাল জেলে মাদক পাচার মামলায় জামিন মঞ্জুর কলেজ ছাত্রীর]

অভিযোগ, ধৃতদের মধ্যে একজন শুল্ক দপ্তরের অস্থায়ী কর্মী। কিছুদিন আগেই শহরের একটি নামী হোটেলে ‘ডিউটি ফ্রি’ বিদেশি মদের সঙ্গে দেশি হুইস্কি মিশিয়ে বিক্রির অভিযোগ উঠেছিল। উদ্ধার হয় বেশ কিছু বিদেশি মদের বোতল৷ আবগারি দপ্তরের আধিকারিকরা সতর্ক করে জানিয়েছেন, এই ধরনের ‘ডিউটি ফ্রি’ বিদেশি মদ কম দামে বিক্রি করলেও তার মধ্যে ভেজাল মেশানোর শঙ্কা বেড়ে চলেছে। তাই দালালচক্রের মাধ্যমে না কিনে দোকান থেকে বিদেশি মদ কেনা উচিত।

আবগারি দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, গত কয়েকদিন ধরেই শহরে চলছিল এই নজরদারি। গোপন সূত্রে  গোয়েন্দারা খবর পান, দেশ ও বিদেশের বিভিন্ন বিমানবন্দরে ‘ডিউটি ফ্রি’ বিদেশি মদ দোকান থেকে বেরিয়ে আসছে৷ একটি দালালচক্র বিমানযাত্রীদের নাম ব্যবহার করেই তুলছে এই মদের বোতল। একেকজন বিমানযাত্রীর নামে দু’লিটার করে মদের বোতল তোলা হচ্ছে। এজেন্ট মারফৎ তা চলে আসছে বাইরে। কলকাতা ও তার আশপাশের কিছু জায়গায় সেই বিদেশি মদের বোতল বেআইনিভাবে মজুত করছে অন্য এক এজেন্ট। সে সরাসরি অথবা অন্য লোকের মাধ্যমে বিক্রি করছে বাইরে।

[প্রথমবার মহিলাদের ইফতারের ব্যবস্থাপনায় কলকাতার টিপু সুলতান মসজিদ]

খদ্দের সেজে গোয়েন্দারা এক এজেন্টের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। ওই ব্যক্তি সস্তায় বিদেশি মদের বোতল জোগাড় করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়। তিনটি বিদেশি মদের বোতল, যার দাম বাজারে ১৭ হাজার টাকা, সেগুলি ১২ হাজার ৩০০ টাকায় বিক্রি করতে রাজি হয় ওই এজেন্ট। হাতেনাতে ওই এজেন্টকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের সুত্র ধরে, ধর্মতলাসহ মধ্য কলকাতা ও উত্তর কলকাতার বেশ কিছু জায়গায় থেকে পাকড়াও করা হয় বাকি চারজন এজেন্ট ও সাব এজেন্টকে। অভিযোগ, উদ্ধার হওয়া কয়েকটি মদের বোতলের সিল আংশিকভাবে ভেঙে তাতে মেশানো হয়েছে একই রঙের দেশি হুইস্কি। সেগুলি পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। কয়েক মাস আগে ইঞ্জেকশনের সিরিঞ্জ ব্যবহার করে বিদেশি মদের বোতলে মেশানো হয় ভেজাল মদ। এই চক্রের বাকিদের সন্ধান চলছে বলে জানিয়েছে আবগারি দপ্তর।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে