২৯ চৈত্র  ১৪২৭  সোমবার ১২ এপ্রিল ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

EXCLUSIVE Interview of Dilip Ghosh: 'অভিনয় ছেড়ে রাজনীতিতে এলে রগড়ে দেব', বিরোধী তারকাদের হুঁশিয়ারি দিলীপের

Published by: Suparna Majumder |    Posted: April 3, 2021 8:36 pm|    Updated: April 3, 2021 9:44 pm

An Images

গৌতম ভট্টাচার্য: কোনও কেন্দ্রের প্রার্থী নন। তবে ভোটের (West Bengal Election) মরশুমে বঙ্গ রাজনীতির অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ চরিত্র তিনি। বিতর্ক তাঁর নিত্যসঙ্গী। সেই ধারা সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটালের ফেসবুক লাইভেও অব্যাহত থাকল। এক্কেবারে ‘রগড়ে দেওয়া’র মেজাজে ছিলেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)।

মার্চের শেষেই ‘নিজেদের মতে, নিজেদের গান’ নামের একটি মিউজিক ভিডিও প্রকাশ করা হয়েছিল। যার মূল কথা “আমি অন্য কোথাও যাব না, আমি এই দেশেতেই থাকব।” অনির্বাণ ভট্টাচার্যর (Anirban Bhattacharya) লেখা সেই গানের ভিডিও তৈরি করেন ঋদ্ধি সেন ও ঋতব্রত মুখোপাধ্যায়। আর তাতে অভিনয় করেছেন পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়, সব্যসাচী চক্রবর্তী, অরুণ মুখোপাধ্যায়, রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্ত, কৌশিক সেন, রাহুল অরুণোদয় বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতো একঝাঁক টলিউড তারকা।

এই গানের প্রসঙ্গেই দিলীপ ঘোষের মতামত জানতে চাওয়া হয়েছিল। উত্তর দিতে গিয়ে রাজ্য বিজেপির সভাপতি বলেন, “শিল্পীদের বলছি আপনারা নাচুন, গান। ওটা আপনাদের শোভা পায়। রাজনীতি করতে আসবেন না। ওটা আমাদের ছেড়ে দিন। না হলে রগড়ে দেব।”
রগড়ে দেব বলতে কী বলতে চাইছেন? সেই প্রশ্নের উত্তরে আবার বলেন, “ওরা জানে আমি কীভাবে রগড়াই।”

[আরও পড়ুন:  টাকার অভাবে চিকিৎসা বন্ধ মেয়ের, নিরুপায় বাবা-মা ছুটে গেলেন তৃণমূল প্রার্থীর মিছিলে]

শনিবার বঙ্গভূষণ ও বঙ্গবিভূষণ পুরস্কার নিয়েও কথা বলেন দিলীপ ঘোষ। জানান, যাঁরা পুরস্কার পান কিছু না কিছু কৃতিত্ব তো থাকে। কিন্তু এর নেপথ্যে রাজনৈতিক কারণও থাকে। আবার পাইকারি দরেও বিলি করা হয়। অনেকে আবার পুরস্কার ফেরত দেন। কিন্তু পুরস্কারের অর্থ ফেরত দেন না বলেও শুনেছেন বিজেপি নেতা।

কথায় কথায় প্রয়াত কিংবদন্তি সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের শেষকৃত্যের প্রসঙ্গ উঠে আসে। তা নিয়ে কথা বলতে গিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন, “আমরা ডেডবডি হাইজ্যাক করি না।” তিনি জানান, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সিদ্ধান্ত শংকর রায়, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, সুচিত্রা সেন কাউকে ছাড়েননি। বিজেপি এই ধরনের রাজনীতি করেন না বলেও দাবি করেন দিলীপ ঘোষ। পাশাপাশি, বুদ্ধিজীবীদেরও এদিন একহাত নেন বিজেপি নেতা (BJP Leader)। তাঁর মতে, বুদ্ধিজীবী শব্দটিই ঠিক নয়। এঁরা হঠাৎ করে আসেন, আবার হঠাৎ করে গায়েব হয়ে যায়। এই নির্বাচনেও কোথাও গায়েব হয়ে গিয়েছেন। সিপিএমের আমদানি করা বুদ্ধিজীবীদের শুধু সমালোচনা করার অধিকার রয়েছে, কিন্তু কিছু করার দায়িত্ব নেই। সমস্যা হলে আবার আবার জামা বদলান বলেও দাবি করেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি।

দেখুন ভিডিও – 

[আরও পড়ুন: বড় সমস্যা বেকারত্ব, কর্মসংস্থানের প্রতিশ্রুতি দিয়েই ভোট বৈতরণী পার করার লক্ষ্যে সব পক্ষ ]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement