২৮ কার্তিক  ১৪২৬  শুক্রবার ১৫ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এতদিন আড়ালে আবডালে বলছিলেন দলের নেতারা। এবার সরাসরি রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়কে তোপ দাগলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নাম না করে রাজ্যপালকে বিজেপি নেতা বলে দাগিয়ে দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জানিয়ে দিলেন, বিজেপির ‘পার্টিম্যান’কে নিয়ে প্রশ্নের জবাব দিতে তিনি বাধ্য নন।


সদ্যই রাজ্যে আয়ুষ্মান প্রকল্প লাগু না করা নিয়ে সরকারকে তোপ দেগেছেন রাজ্যপাল। তিনি বলেন, “আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্প গোটা বিশ্বে স্বীকৃতি পেয়েছে। অথচ, এরাজ্যের মানুষ তার পরিষেবা পাচ্ছে না। এটা যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোতে হওয়া ঠিক নয়। কোন প্রকল্পের টাকা কোথা থেকে আসছে, সেটা দেখার বিষয় নয়। মানুষের জন্য যে টাকাই আসুক, তার যথাযোগ্য ব্যবহার হওয়া প্রয়োজন। রাজভবনে আসার ১০০ দিনের মধ্যেই বাংলার নানা প্রান্ত থেকে প্রায় তিন হাজার আরজি পৌঁছেছে আমার কাছে। আর এসবই হচ্ছে চিকিত্‍সার খরচ বহন করতে না পেরে আবেদন। স্বাস্থ্যসাথীতে কাজ হচ্ছে না। ” রাজ্যপাল আরও বলেন, এখানে সমস্ত কিছু নিয়েই রাজনীতি করা হয়। সবকিছুর উর্ধ্বে উঠে গিয়েছে রাজনীতিকরণ। যা একেবারেই কাম্য নয়।

[আরও পড়ুন: শিক্ষক আন্দোলনে নেতৃত্ব দেওয়ার জের, যাদবপুরে গ্রেপ্তার নেত্রী পৃথা বিশ্বাস]

উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্প ঘোষণা পরার পরও এরাজ্যে এই প্রকল্প চালু হয়নি। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই প্রকল্প রাজ্যে কার্যকর না করার সিদ্ধান্ত নেন। বদলে বাংলার স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পেই জোর দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। এদিন, রাজ্যপাল মুখ্যমন্ত্রীর সেই সিদ্ধান্তকেই তোপ দাগেন। বুধবার দলের বিধায়কদের নিয়ে তৃণমূল ভবনে বৈঠক করেন মু্খ্যমন্ত্রী। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন তিনি। সেখানে তাঁকে রাজ্যপালের মন্তব্য নিয়ে প্রশ্ন করা হলে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “বিজেপির পার্টি ম্যানকে নিয়ে আমাকে কোন প্রশ্ন করবেন না। আমি কোনও উত্তর দেব না। উনি বিজেপির লোক।”

[আরও পড়ুন: বৃদ্ধ মা-বাবার দায়িত্ব না নিলে ৩ মাস পর্যন্ত জেল, নতুন পদক্ষেপ কলকাতা পুলিশের ]

রাজ্য-রাজ্যপালের সংঘাত অবশ্য এই প্রথম নয়। এর আগেও একাধিক ইস্যুতে এখই পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। এর আগে একাধিক তৃণমূল নেতাও রাজ্যপালকে এর আগে কটাক্ষ করেছেন।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং