BREAKING NEWS

১৭  আষাঢ়  ১৪২৯  শনিবার ২ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

ডেবিট কার্ড জালিয়াতির আতঙ্কে লম্বা লাইন এটিএমে

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: October 24, 2016 9:02 am|    Updated: January 10, 2020 7:17 pm

Govt seeks report from banks, asks citizens 'not to panic'

স্টাফ রিপোর্টার: আমার টাকা আমার আছে তো? উধাও হয়ে যায়নি তো তিল তিল করে জমানো টাকা?

সকাল থেকে কলকাতা-সহ সমস্ত জেলার ব্যাঙ্কের এটিএমের বাইরে লম্বা লাইন গ্রাহকদের৷ যে লাইন থেকে বাদ পড়েননি শিক্ষক বা সেলিব্রিটিরাও৷ এটিএম, ই-কাউন্টারে পাসবই আপডেট করানোর জন্য ব্যাঙ্ক খোলার আগেই গেটের বাইরে ভিড় করেছিল জনতা৷ পাসবই আপডেট করে গায়ক শ্রীকান্ত আচার্য হাঁফ ছেড়েছেন, “চারিদিকে যা আতঙ্ক৷ সকাল সকাল তাই আপডেট করিয়ে নিলাম৷”

বেশ কয়েকদিন ধরেই একের পর এক ডেবিট কার্ড জালিয়াতির ঘটনায় আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন সাধারণ মানুষ৷ মাসের চতুর্থ শনিবার এসবিআইয়ের শাখা বন্ধ থাকায় ব্যাঙ্কে যেতে পারেননি গ্রাহকরা৷ এটিএমে গিয়ে ব্যালেন্স দেখতেও ভরসা পাচ্ছিলেন না৷ সারারাত দু’চোখের পাতা এক না করে রবিবার সকাল থেকেই তাই রাজ্যের প্রতিটি ব্যাঙ্কের বাইরে সর্পিল লাইন৷ পাস বইয়ে জমা রাশি ঠিক আছে দেখে কপালে হাত ঠেকিয়েছেন অনেকে৷ কেউ বা ব্রাঞ্চ ম্যানেজারের কাছে হাতজোড় করেছেন, “এটাই সারা জীবনের সঞ্চয়৷ একটু দেখবেন৷” সমস্ত ক্ষেত্রেই গ্রাহকদের আশ্বস্ত করেছেন ম্যানেজাররা৷ কোনও অপিরিচিত ফোনে কোনও রকম তথ্য দিতে বারণ করেছে ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ৷

এদিকে ডেবিট কার্ডের তথ্য পাচারের জেরে নতুন কার্ড দেওয়ার কথা ভাবছে ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ৷ সে সময় ঘোলা জলে মাছ ধরতে গ্রাহকদের জন্য নতুন জাল সাজিয়েছে প্রতারকরা৷ একাধিক গ্রাহককে তারা ফোন করে, আধার কার্ড অথবা ডেবিট কার্ডের তথ্য জানতে চাইছে৷ বলছে কার্ড ব্লক হয়ে যাবে এখনই কার্ডের তথ্য দিন৷ এই কায়দায় দক্ষিণ দিনাজপুরের অবসরপ্রাপ্ত গৃহশিক্ষক অশ্বিনীকুমার রায়ের অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা লুঠ করেছে দুষ্কৃতীরা৷ অশ্বিনীবাবুর কথায়, “শনিবার একটি অপরিচিত নম্বর থেকে ফোন আসে৷ বলে ব্যাঙ্ক থেকে বলছি, ডেবিট কার্ড লক হয়ে যাবে৷ সিভিভি নম্বরটি দিতে বলে৷” এর পরেই তাঁর অ্যাকাউণ্ট থেকে কয়েক হাজার টাকা গায়েব হয়ে যায়৷ স্টেট ব্যাঙ্কের ওয়েস্ট বেঙ্গল সার্কেলের সিজেএম পার্থপ্রতিম সেনগুপ্ত কিন্তু এদিনও বলেছেন, “কোনও ভুয়া ফোনের জবাব দেবেন না৷ মাথায় রাখবেন, ব্যাঙ্ক কখনও ফোন করে কোনও তথ্য জানতে চায় না৷” এদিকে একের পর এক ডেবিট কার্ড জালিয়াতির ঘটনায় ব্যাঙ্ককেই সুরক্ষা মজবুত করতে বলেছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া৷

গত কয়েকদিনে রাজ্যের একাধিক জায়গা থেকে খবর এসেছে ডেবিট কার্ড জালিয়াতির৷ উত্তর ২৪ পরগনার দেগঙ্গার অম্বিকানগরে মাথায় হাত ব্যবসায়ী তপন পালের৷ শনিবার এটিএমে গিয়ে ব্যালেন্স চেক করতে গিয়ে তিনি দেখেন পনেরো হাজার টাকা উধাও হয়ে গিয়েছে৷ দিন দশেক আগে তাঁর মোবাইলে একটি ফোন আসে৷ ডেবিট কার্ডের তথ্য চাওয়া হয়৷ সিভিভি নম্বর দিতেই উধাও হয়ে গিয়েছে টাকা৷ কলকাতার সিঁথি থানা এলাকাতেও অতনু দাস নামে এক ব্যক্তির অ্যাকাউন্ট থেকে উধাও হয়ে গিয়েছে ১৫ হাজার টাকা৷ মুর্শিদাবাদের পুর ইঞ্জিনিয়ার সুধাকর মণ্ডলের জমানো টাকাও লুঠ হয়ে গিয়েছে বেমালুম৷ বহরমপুরের কান্দি মহকুমার সালারে ফেলু শেখের অ্যাকাউন্ট থেকে ৬৭ হাজার টাকা তুলে নিয়েছে দুষ্কৃতীরা৷ কয়েকদিন আগেই নতুন এটিএমের আবেদন করেছিলেন ফেলু শেখ৷ এরপরেই অচেনা নম্বর থেকে ফোন আসে তাঁর মোবাইলে৷ ফেলু শেখ জানিয়েছেন, “ ওই ব্যক্তি নিজেকে কলকাতার ব্যাঙ্কের শাখার ম্যানেজার পরিচয় দিয়ে পিন নম্বর জানতে চান৷” সে নম্বর দিতেই উধাও হয়ে গিয়েছে টাকা৷ জালিয়াতদের নজর থেকে বাদ পড়েনি উত্তরবঙ্গও৷ মংপংয়ের গৃহবধূ কুন্তী প্রধানের স্বামী কর্মসূত্রে থাকেন কাতারে৷ কয়েকদিন আগে এটিএম-এ টাকা তুলতে গিয়ে অচেনা এক ব্যক্তির সাহায্য নিয়েছিলেন কুন্তী দেবী৷ কিছুদিন পরে ফের এটিএমে টাকা তুলতে এসে দেখেন সাফ হয়ে গিয়েছে পুরো অ্যাকাউন্ট৷ পাসবই আপডেট করে দেখেন আড়াই লক্ষ টাকা বেশ কয়েকটি লেনদেনের মাধ্যমে তুলে নিয়েছে কেউ৷ প্রতিটি ঘটনারই তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ৷ ইতিমধ্যেই খবর এসেছে ৩২ লক্ষ ডেবিট কার্ডের তথ্য বেহাত হয়ে গিয়েছে৷

স্বাভাবিক ভাবেই আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন সাধারণ মানুষ৷ এর সুযোগ নিয়েই গ্রাহকদের ফোন করছেন দুষ্কৃতীরা৷ নিজেদের ব্যাঙ্ক কর্মী পরিচয় দিয়ে কার্ডের তথ্য চাইছেন৷ প্রতিটি অভিযোগের তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ৷ প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ভুয়া ফোনে তথ্য জানতে চাইলে দ্রুত থানায় অভিযোগ জানান৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে