BREAKING NEWS

০৮ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  মঙ্গলবার ২৪ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

অসভ্যতার অভিযোগ মহিলা যাত্রীর, নিরাপত্তারক্ষীর বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থার আশ্বাস রেলের

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: September 12, 2019 7:40 pm|    Updated: September 12, 2019 7:40 pm

GRP stuff allegedly molested lady passenger in darjeeling mail

সুব্রত বিশ্বাস: রক্ষকই তবে ভক্ষক হয়ে উঠছে! বুধবার রাতে শিয়ালদহগামী দার্জিলিং মেলে এক মহিলা যাত্রীর সঙ্গে অভব্য আচরণের অভিযোগ উঠল জিআরপির এক এএসআইয়ের বিরুদ্ধে। মহিলার স্বামী শিলিগুড়ি জিআরপির ওই এএসআই দীপঙ্কর দে-এর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন শিয়ালদহ রেল পুলিশ থানায়। পালটা ওই এএসআইও মহিলা এবং তাঁর স্বামীর বিরুদ্ধে সরকারি কাজে বাধা ও ইচ্ছাকৃত ঝামেলার অভিযোগ দায়ের করেছেন।

[আরও পড়ুন: ‘জীবিত অবস্থাতেই NRC দেখে যেতে হবে মমতাকে’, হুঁশিয়ারি দিলীপের]

জানা গিয়েছে, বেহালার বাসিন্দা মণিমালা মিত্র ও তাঁর স্বামী সন্দীপ কুমার সাউ দার্জিলিং মেলে করে শিয়ালদহে আসছিলেন। বি-৪ কামরার যাত্রী ছিলেন তাঁরা। রাত সাড়ে এগারোটা নাগাদ মণিমালদেবী শৌচালয়ে যান। সেসময় এসকর্ট বাহিনীর কর্মীরা শৌচালয়ের সামনে দাঁড়িয়ে থাকায় তিনি সরে যাওয়ার অনুরোধ করেন। এরপরই ওই কর্মীরা আচমকা উত্তেজিত হয়ে তাঁর সঙ্গে বচসা শুরু করে দেন। এমনকী সরার সময় মণিমালাদেবীকে ইচ্চাকৃতভাবে ধাক্কা মারেন ওই এএসআই। বিষয়টিকে কেন্দ্র করে ফের শুরু হয় ঝামেলা।

এএসআই দাবি করেন, তাঁকে কলার ধরে হয়রান করা হয়েছে। পরিস্থিতি এতটাই গরম হয়ে ওঠে যে এসকর্ট বাহিনীর কর্মীরা ওই এএসআইকে অন্য কামরায় সরিয়ে নিয়ে যান। ওই মহিলা যাত্রীর স্বামী পুলিশকে লিখিত অভিযোগে জানিয়েছেন, ফের গভীর রাতে ওই এএসআই মণিমালার বার্থের সামনে আসেন। ইচ্ছাকৃতভাবে উঁকিঝুঁকি মারতে থাকেন। তখন তিনি প্রতিবাদ করলে শুরু হয় ঝামেলা। মহিলা ও তাঁর স্বামী চরম ক্ষোভ মারমুখী হয়ে পড়েন। অন্য যাত্রীরাও ক্ষিপ্ত হন। পরিস্থিতি এতটাই খারাপ হয়ে পড়ে যে কামরার অন্য যাত্রীরা রাতে ঘুমোতেই পারেননি। বর্তমানে শিয়ালদহ জিআরপিতে অভিযোগ ও পালটা অভিযোগ হলেও ঘটনাস্থল মালদহ জিআরপির বারহারোয়া অঞ্চলে হওয়ায় অভিযোগ দুটি সেখানে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

[আরও পড়ুন: ফের বউবাজার বিপর্যয়ের জের, হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যু বৃদ্ধের ]

এখন যাত্রীদের কাছে যে এই প্রশ্নটাই বড় হয়ে উঠেছে, নিরাপত্তার ব্যবস্থা যাদের করার কথা তাঁরাই যদি এরকম করেন তবে যাত্রীরা কী করবেন। সপ্তাহখানেক আগে বাড়ি ফেরার পথে নামখানা লোকালে আরপিএফের এসকর্ট বাহিনীর হাতে শ্লীলতাহানির শিকার হন এক অভিনেত্রী। এই ঘটনায় দুই আরপিএফ সাময়িকভাবে বরখাস্ত ও গ্রেপ্তার হন। যাত্রী নিরাপত্তার রেল বেশি গুরুত্ব দিলেও নিরাপত্তারক্ষীদের এহেন লালসার শিকার হচ্ছেন মহিলা যাত্রীরা। তবে মালদহ রেল পুলিশ জানিয়েছে, বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। দোষী চিহ্নিত হলে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে ওই এএসআইয়ের বিরুদ্ধে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে