৫ মাঘ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১৯ জানুয়ারি ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

কলকাতায় চিরস্থায়ী ‘অপুর সংসার’, সৌমিত্রর স্মৃতি আঁকড়ে ধরে রাখতে অভিনব উদ্যোগ হিডকোর

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: November 23, 2020 1:21 pm|    Updated: November 23, 2020 1:23 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: তাঁকে যত শ্রদ্ধার্ঘ্যই অর্পণ করা হোক না কেন, তা তুচ্ছই মনে হবে সর্বদা। বিরাট কর্মসমুদ্রের মাঝে বিন্দু বিন্দু জলকণা যেন। তবু প্রিয় মানুষের প্রতি শ্রদ্ধার্ঘ্য জানানোর আবেগ, ইচ্ছা তো কখনওই ফুরনোর নয়। সদ্যপ্রয়াত বিশিষ্ট অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় (Soumitra Chatterjee) তেমনই একজন প্রিয় মানুষ, আমবাঙালির কাছে। নশ্বর জীবনের ওপারে তাঁকে আপন করে রাখতে নানা উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। তার মধ্যে নয়া ঘোষণা করল হিডকো (HIDCO)। জানানো হল, নিউটাউনে গড়ে উঠবে ‘অপুর সংসার’। সৌমিত্র স্মরণে তৈরি পার্কের নামকরণ হবে তাঁরই অবিস্মরণীয় ছবির নামে।

প্রবাদপ্রতিম অভিনেতার প্রয়াণের পর থেকেই তাঁকে শ্রদ্ধাঞ্জলি দেওয়ার পালা চলছে। গত সপ্তাহে চারদিন ধরে হিডকোর উদ্যোগে নিউটাউনের নজরুল তীর্থে চলে সৌমিত্র স্মরণ। ‘জীবন জুড়ে সৌমিত্র’ নামাঙ্কিত অনুষ্ঠানটি শেষ হয়েছে রবিবারই। আর শেষদিনই তাঁর নামে পার্ক তৈরির কথা ঘোষণা করলেন হিডকো চেয়ারম্যান দেবাশিস সেন। জানালেন, সত্যজিৎ রায়ের সৃষ্ট কাহিনি, চরিত্রদের নামে পার্ক রয়েছে। ‘সোনার কেল্লা’ পার্ক ইতিমধ্যেই তৈরি হয়ে গিয়েছে। ‘প্রফেসর শঙ্কু’র নামে পার্কের কাজ চলছে। একইভাবে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়কে শ্রদ্ধা জানিয়ে ‘অপুর সংসার’ পার্ক করা হবে।

[আরও পড়ুন: ৫ লক্ষ টাকার অস্ত্রোপচার নামমাত্র খরচে, নিয়ম ভেঙেই বাংলাদেশি তরুণীর প্রাণ বাঁচালেন চিকিৎসক]

বৃহস্পতি থেকে রবিবার পর্যন্ত হিডকোর ওই অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন বহু বিশিষ্টজন। চিত্রপরিচালক শতরূপা স্যান্যাল, সুদেষ্ণা রায় ছাড়াও অন্যান্য ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত ব্যক্তিরা বাংলার শেষ ম্যাটিনি আইডল সম্পর্কে নিজেদের অনুভূতির কথা তুলে ধরেন এই মঞ্চে। হিডকোর সিদ্ধান্ত, তাঁদের সেসব বক্তব্য গ্রন্থ আকারে প্রকাশ করা হবে। এমনিতে বিখ্যাত মণীষীদের নামে কলকাতায় পথঘাট কিংবা পার্ক নতুন কিছু নয়। সম্প্রতি নোবেলজয়ী বঙ্গসন্তান অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নামে উদ্যান তৈরি হয়েছে বাঘাযতীনে। এবার সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের প্রয়াণের পরও তাঁর সঙ্গ অনুভব করতে হিডকোর এই উদ্যোগ প্রশংসনীয় বলে মত নিউটাউনবাসীর।

[আরও পড়ুন: ইতিহাসে প্রথম, সরকারি চাকরি পেতে ‘দক্ষতা’র মাপকাঠি কোভিডে মৃতের দেহ দাহ করা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement