BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

অবশেষে যাদবপুরে অবস্থান-বিক্ষোভ প্রত্যাহার পড়ুয়াদের, বাড়ি ফিরলেন উপাচার্য

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 17, 2018 3:52 am|    Updated: January 17, 2018 3:52 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  প্রায় ৩৩ ঘণ্টা ঘেরাওমুক্ত হলেন যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, সহ-উপাচার্য-সহ অন্যান্য অধ্যাপক। ফোরাম গঠনের শর্তে মঙ্গলবার গভীর রাতে অবস্থান বিক্ষোভ প্রত্যাহার করে নিলেন পড়ুয়ারা। বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফে জানানো হয়েছে, অধ্যাপক, শিক্ষাকর্মী ও পড়ুয়াদের নিয়ে এই ফোরাম গঠন করা হবে। বুধবার দুপুর তিনটের সময়ে বৈঠকে বসবেন ফোরামের সদস্যরা। পড়ুয়াদের দাবির ভিত্তিতে একটি খসড়া তৈরি করে সরকার কাছে পাঠানো হবে। প্রয়োজনে শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকও করবে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

[ছাত্র কাউন্সিল বাতিলের দাবিতে যাদবপুরে উপচার্য, সহ উপাচার্যকে রাতভর ঘেরাও]

ছাত্রভোটে অশান্তি এড়াতে রাজ্যের প্রতিটি কলেজে অরাজনৈতিক ছাত্র কাউন্সিল তৈরি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। বিলও পাশ হয়ে গিয়েছে বিধানসভায়। সরকারের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ক্ষোভে ফুঁসছেন যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা। তাঁদের দাবি, অরাজনৈতিক ছাত্র কাউন্সিল নয়, বিশ্ববিদ্যালয়ে রাজনৈতিক ছাত্র সংসদ ব্যবস্থাই বহাল রাখতে হবে। আগস্ট মাসে নির্দেশিকা জারির পরই একদফা বিক্ষোভ দেখিয়েছিলেন পড়ুয়া। সোমবার এই ইস্যুতে ফের বৈঠকে বসেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মসমিতির সদস্যরা। বৈঠকে হাজির ছিলেন ছাত্র সংসদের প্রতিনিধিরাও। কিন্তু, দফায় দফায় বৈঠকেও কোনও সমাধান সূত্র বেরোয়নি। এরপরই সন্ধ্যা থেকে উপাচার্যের ঘরের সামনে অবস্থান বিক্ষোভে বসে পড়েন পড়ুয়ারা। উপাচার্য, সহ-উপাচার্য-সহ অন্যন্য অধ্যাপকদের ঘেরাও করে রাখেন তাঁরা।

[[যাদবপুরে মুখ্যমন্ত্রীর পোস্টারে বিকৃতি, কড়া পদক্ষেপের ইঙ্গিত শিক্ষামন্ত্রীর]]

প্রায় ৩৩ ঘণ্টা ধরে চলে ঘেরাও। শেষপর্যন্ত পড়ুয়াদের দাবি মেনে ফোরামে গঠনের সিদ্ধান্ত নেয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এরপরই মঙ্গলবার রাত একটা নাগাদ অবস্থান তুলে নেন পড়ুয়ারা। বাড়ি ফেরেন উপাচার্য, সহ-উপাচার্য ও অন্যন্য অধ্যাপকরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফে জানানো হয়েছে, অধ্যাপক, শিক্ষাকর্মী ও পড়ুয়াদের প্রতিনিধি নিয়ে এই ফোরাম তৈরি করা হবে। দুপুরে বৈঠকে বসছেন ফোরামের সদস্যরা। পড়ুয়াদের দাবির ভিত্তি খসড়া তৈরি করে, সরকারের কাছে পাঠানো হবে। প্রয়োজনে সরকারের সঙ্গে আলোচনায় বসতেও রাজি যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এদিকে, আপাতত অবস্থান বিক্ষোভ প্রত্যাহার করে নিলেও, এখনই আন্দোলন থেকে সরতে নারাজ যাদবপুরের পড়ুয়ারা। তাঁদের সাফ কথা, ফোরামের বৈঠকে সিদ্ধান্ত জানার পরই আন্দোলনের পরবর্তী রূপরেখা তৈরি করা হবে।

[দাউদাউ করে জ্বলছে দাঁড়িয়ে থাকা ২ টি গাড়ি, আতঙ্ক পদ্মপুকুরে]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement