২১  আষাঢ়  ১৪২৯  বুধবার ৬ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

রাজস্ব আদায়ে নয়া রেকর্ড! মশার লার্ভা ‘পুষে’ জরিমানা বাবদ কলকাতা পুরসভার আয় তিরিশ লক্ষ টাকা

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: March 22, 2022 10:33 am|    Updated: March 22, 2022 10:33 am

KMC bags Rs 30 lakh as fine from those who avoided of taking care of mosquitoes breeding | Sangbad Pratidin

কৃষ্ণকুমার দাস: অজান্তেই বাড়িতে মশার লার্ভা ‘পুষে’ লক্ষ লক্ষ টাকা জরিমানা গুনলেন মহানগরবাসী। শুধু সাধারণ নাগরিকরা নন, আদালতের নির্দেশে মাত্র দু’মাসে (ডিসেম্বর-জানুয়ারি) প্রায় ২৫ লক্ষ টাকা পুরসভার কোষাগারে জমা দিতে বাধ্য হচ্ছে শহরের সরকারি ও বেসরকারি সংস্থাও। ডেঙ্গু, ম্যালেরিয়ার জীবাণু বাহক এডিস মশার লার্ভা থাকার জেরে দু’দফায় কলকাতা পুরসভা (KMC) সতর্ক করার পরেও ‘হুঁশ’ না ফেরায় চলতি মার্চ মাসের প্রথম দশদিনে জরিমানা আদায় হয়েছে সাড়ে চার লক্ষ টাকার বেশি।

পুর আইনের ৪৯৬এ ধারা প্রয়োগে এই জরিমানা চালুর জেরে একদিকে যেমন ডেঙ্গু (Dengue), ম্যালেরিয়ার জীবাণু বিস্তার কিছুটা বন্ধ হয়েছে, তেমনই অন্যদিকে কোষাগারে প্রায় তিরিশ লক্ষ টাকা আসায় আর্থিক সংকট সামাল দেওয়ার ক্ষেত্রে কিছুটা হলেও স্বস্তিতে পুরসভার রাজস্ব বিভাগ। ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে ডেপুটি মেয়র তথা বিধায়ক অতীন ঘোষ (Atin Ghosh) জানান, “মহানগরের জনস্বাস্থ্যের স্বার্থে পুরসভা বছরভর ডেঙ্গু ও ম্যালেরিয়া নিয়ে নজরদারি চালিয়ে আসছে। তার অংশ হিসাবে পুর আইনের ৪৯৬এ ধারা প্রয়োগে বিপুল পরিমাণ অর্থের জরিমানা আদায় হচ্ছে। এর আগে কখনও লার্ভার জন্মানোর দায়ে এত বিপুল পরিমাণ আদায় হয়নি। পুরসভার ক্ষেত্রে এটা রেকর্ড।”

[আরও পড়ুন: ভাঙল অতীত রেকর্ড, দোল উৎসবের চারদিন রাজ্যে বিক্রি হল ২০০ কোটি টাকার মদ]

জনস্বাস্থ্যকে গুরুত্ব দিয়েই রাজ্যের সরকার পরিবর্তনের পর কলকাতা পুরসভার তৃণমূল পুরবোর্ডের সুপারিশে ক্ষতিকারক লার্ভা জন্মানো রুখতে ১৯৮০ সালের পুরআইনের ৪৯৬ ধারার সংশোধন করা হয়। মুখ্যমন্ত্রীর সম্মতিতে সংশোধিত ৪৯৬এ ধারা চালু হতেই এবার নাগরিক স্বার্থে বাড়ি, অফিস, কারখানায় ক্ষতিকারক লার্ভা জন্মাতেই পুরসভা সক্রিয় হয়ে কড়া ব্যবস্থা নিতে শুরু করে।

[আরও পড়ুন: ঝুলন্ত বাবা, বিছানা ও মেঝেয় পড়ে মা-মেয়ের দেহ, একই পরিবারের তিন সদস্যের রহস্যমৃত্যুতে চাঞ্চল্য]

ডেপুটি মেয়রের কথায়, “বাড়ি বা অফিসে নজরদারির সময় স্বাস্থ্যকর্মীরা লার্ভা দেখতে পেলে সাতদিন অন্তর নোটিস দিয়ে সতর্ক করা হচ্ছে। ১৫ দিনের মাথায় দ্বিতীয় নোটিস দেওয়ার পর মিউনিসিপ্যাল ম্যাজিস্ট্রেটের এজলাসে জরিমানা ধার্য করে ফৌজদারি মামলা করা হচ্ছে।” পুরসভা সূত্রে খবর, ৪৯৬এ/৬১০ দুই ধারায় মামলা দায়ের করে শুধুমাত্র গত ডিসেম্বর ও জানুয়ারি মাসেই ২৪ লক্ষ ৯৩ হাজার ৩৬০ টাকা জরিমানা ধার্য করেছে মিউনিসিপ্যাল ম্যাজিস্ট্রেটের এজলাস। এছাড়াও গত ১ মার্চ থেকে ১০ মার্চ পর্যন্ত সময়ে লার্ভা থাকার অপরাধ প্রমাণ হওয়ায় পুরসভার কোষাগারে জরিমানা বাবদ জমা হয়েছে ৪ লক্ষ ৫৫ হাজার টাকা। স্বাস্থ্যদপ্তরের কর্তারা আশাবাদী, মশার লার্ভা জন্মাতে দেওয়ার অভিযোগ প্রমাণ হওয়ায় এমন জরিমানা আদায়ের জেরে শহরে জনসচেতন কর্মসূচি আরও বৃদ্ধি পাবে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে