BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বইমেলায় শিশুদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা, ছোটদের জন্য পরিচয়পত্র

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 30, 2018 6:26 am|    Updated: January 30, 2018 6:26 am

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: বইমেলায় নাবালকদের জন্য পরিচয়পত্রের ব্যবস্থা করল পুলিশ। মেলায় ঢোকার মুখে মে আই হেল্প ইউ ডেস্ক থেকে তা সংগ্রহ করতে হবে। ভিড়ে হারিয়ে যাওয়া শিশুদের খুঁজে পেতে যাতে সমস্যা না হয় তার জন্য এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে বিধাননগর কমিশনারেট। বুধবার বিকেলে করুণাময়ীতে সল্টলেক মেলা গ্রাউন্ডে আন্তর্জাতিক কলকাতা বইমেলা ২০১৮-র উদ্বোধন করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তারপর বুধবার থেকে দর্শকদের জন্য বইমেলা খুলে দেওয়া হবে। মেলা চলবে ১১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

[১৫০ বছর পর ‘সুপার ব্লু ব্লাড মুন’, রক্তাভ চাঁদে পড়বে গ্রহণের ছায়া]

বইমেলা উপলক্ষে দু’টি অ্যাপ তৈরি করা হয়েছে। একটি করেছে পাবলিশার্স অ্যান্ড বুকসেলার্স গিল্ড। অন্যটি করেছে বিধাননগর পুরনিগম। গিল্ডের অ্যাপটিতে স্টলের অবস্থান ছাড়াও অন্যান্য প্রয়োজনীয় তথ্য থাকবে। পুরনিগমের অ্যাপটি পার্কিং সংক্রান্ত। মেলা উপলক্ষে বাড়তি ২০০ টি সরকারি বাসের ব্যবস্থাও করেছে পরিবহণ দপ্তর। কারণ সমীক্ষা বলছে এবারে নাকি আগের সব রেকর্ড ভেঙে দৈনিক ২ লক্ষ দর্শক সমাগম হবে। তাই মেলা নিয়ে প্রস্তুতিও তুঙ্গে। বিধাননগরের ডেপুটি কমিশনার অফ পুলিশ (সদর) অমিত জাভালগি জানিয়েছেন, ‘নাবালকদের জন্য একটি পরিচয়পত্র তৈরি করা হবে। মেলায় প্রবেশের আগে তাতে অভিভাবকদের নাম ফোন নম্বর ইত্যাদি পূরণ করে শিশুদের গলায় ঝুলিয়ে দেওয়া হবে।’ তিনি আরও জানিয়েছেন, ‘অতিরিক্ত ভিড়ের সম্ভাবনা মাথায় রেখে কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। প্রতিটি গেটে ঢোকার সময় ডিএফএমডি দিয়ে চেক হবে।তারপর  দেহ তল্লাশি করে তবেই মিলবে ভিতরে ঢোকার ছাড়পত্র। তবে মেলায় ধূমপান নিষিদ্ধ নয়। কিন্তু  নির্দিষ্ট এলাকায় গিয়ে ধূমপান করতে হবে।’

[দ্রতই বদলাতে পারে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ ও সেন্ট্রাল মেট্রো স্টেশনের নাম]

মেলায় ৯টি গেট থাকছে। চারটি জোনে ভাগ করা হয়েছে মেলাপ্রাঙ্গনকে। প্রতিটি জোনে থাকবে মে আই হেল্প ডেস্ক থেকে শুরু করে অগ্নিনির্বাপক টিম। ডিসি (ডিডি) শবরী রাজকুমার জানিয়েছেন, ‘মেলার সামনের রাস্তায় কোনও গাড়ি দড়াতে পারবেনা। বেশ কয়েকটি এলাকা নো পার্কিং জোন হিসাবে চিহ্নিত থাকবে। ময়ূখের সামনে পুরনিগমের সুইমিং পুলের সামনে, মিউনিসিপ্যাল স্কুল আইল্যান্ডে, ৯ নম্বর ট্যাঙ্কের কাছে ও আনন্দলোক হাসপাতালের সামনে মূল পার্কিংয়ের ব্যবস্থা থাকছে।’ পুরনিগমের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে আইকেবিএফ-বিএমসি কার পার্ক নামের অ্যাপটি গুগল থেকে ডাউনলোড করা যাবে। পুরনিগমের মেয়র ইন কাউন্সিল দেবাশিস জানা জানিয়েছেন, মেলায় পানীয় জলের ট্যাঙ্ক রাখা থাকবে ১০টি। এছাড়া পুলিশের পক্ষ থেকে জলের পাউচ বিতরণের ব্যবস্থা থাকবে আগের মতো। পার্কিং প্লেসেও আগের মতই গাড়ি চালকদের জন্য বায়ো টয়লেটের ব্যবস্থা রাখা হচ্ছে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement