BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনা নিয়ে গুজব ছড়ানোর জের, লালবাজারে ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ ১২ জনকে

Published by: Bishakha Pal |    Posted: March 19, 2020 11:47 am|    Updated: March 19, 2020 11:47 am

An Images

অর্ণব আইচ: করোনা নিয়ে গুজব সোশ্যাল মিডিয়ায়। গুজব রোধে পথে নামল পুলিশ। লালবাজারে ডেকে জেরা করা হল প্রায় ১২ জনকে। ফোন করেও বহু মানুষকে সতর্ক করেছেন লালবাজারের গোয়েন্দা আধিকারিকরা। বুধবারও সোশ্যাল মিডিয়ায় গুজব ছড়ানো নিয়ে শহরবাসীকে সতর্ক করেন পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা। মঙ্গলবারও তিনি এই বিষয়ে সতর্ক করেছিলেন। কিন্তু তারপরও ছড়ানো হয় গুজব। এদিনও পুলিশ কমিশনার সোশ্যাল মিডিয়ায় বার্তা দিয়ে স্পষ্ট জানিয়ে দেন যে, গুজব ছড়ালে আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি বলেন, “অনুরোধ, সত্যতা যাচাই না করে অযথা করোনা সংক্রান্ত মেসেজ ফরওয়ার্ড করবেন না। সোশ্যাল মিডিয়ায় আমরা এই ধরনের পোস্টের উপর নজর রাখছি। যাঁরা মিথ্যা খবর বা গুজব ছড়াবেন, তাঁদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

[ আরও পড়ুন: শিক্ষামন্ত্রীর বেনজির আক্রমণ, চোখের জলে বিকাশ ভবন ছাড়লেন বৈশাখী ]

লালবাজার সূত্রে জানা গিয়েছে, করোনা নিয়ে বহু গুজব ছড়াচ্ছে শহরময়। বিশেষ করে ফেসবুক বা হোয়াটস অ্যাপে ছড়াচ্ছে বেশি গুজব। কখনও বলা হচ্ছে, এই রাজ্যে করোনা ভাইরাস এতটাই ছড়িয়েছে যে, তা সাংঘাতিক অবস্থায় এসে পড়েছে। আবার কোনও বৈদ্যুতিন মিডিয়ার চ্যানেল চালিয়ে টিভি থেকে স্ক্রিন শট নিয়ে তার উপর ‘মরফিং’ করা হচ্ছে। ‘মরফিং’ করে করোনা আক্রান্ত সম্পর্কে ভুল তথ্য দেওয়া হচ্ছে। এই ধরনের একের পর এক গুজব ছড়ানো হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। তাই মঙ্গলবার থেকেই সতর্ক করছিলেন পুলিশ কমিশনার। এদিন এই গুজব রোধ করার জন্য লালবাজারের সাইবার থানার আধিকারিকরা ফেসবুক ও হোয়াটস অ্যাপের পোস্টগুলি খতিয়ে দেখেন। এর পরই তাঁরা অন্তত ১২ জনকে লালবাজারে ডেকে পাঠান। তাঁদের এই পোস্ট মুছে ফেলতে বলা হয়। যাঁদের ডেকে পাঠানো হয়েছে, তাঁরা সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষ। কেন তাঁরা এই গুজব ছড়াচ্ছিলেন, সেই সম্পর্কেও তাঁদের প্রশ্ন করা হয়। তাঁদের সতর্ক করে জানিয়ে দেওয়া হয় যে, যদি কেউ ফের এই কাজ করে, তবে তাঁদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৫০৪, ৫০৫ ধারায় পুলিশ মামলা করবে। তার ভিত্তিতে তখন আইনি ব্যবস্থাও নেওয়া হতে পারে।

[ আরও পড়ুন: ছেলের স্বাস্থ্যপরীক্ষা না করিয়ে শপিং মলে! নেটিজেনদের রোষের মুখে নবান্নের আমলা ]

এদিকে, পুলিশের সূত্র জানিয়েছে, এদিন লেকের যোধপুর পার্ক ও যাদবপুরের কাটজুনগরের দুই বাসিন্দা বিদেশ থেকে আসার পরও মেডিক্যাল পরীক্ষা করাননি। তাই এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে কিছুটা আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পুলিশ দু’জনকেই আলাদা করে বেলেঘাটা আইডিতে পরীক্ষার জন্য নিয়ে যায়। এদিন উড স্ট্রিটে ১৯ টাকার মাস্ক বিক্রি হচ্ছিল ৫০ টাকায়। খবর পেয়েই পুলিশ ওই মাস্ক বিক্রেতাকে আটক করে রোধ করার চেষ্টা করে কালোবাজারি।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement