১১ মাঘ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ২৫ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

অমর্ত্য সেন ইস্যুতে মিলে গেল বাম-তৃণমূল

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: February 13, 2017 5:33 am|    Updated: February 13, 2017 5:43 am

 Left, Tmc Continues their protest in Amartya sen issue

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ‘আমাদের একজন নোবেল পেয়েছেন, বাঙালি। কী করেছেন, বাংলার কেউ বোঝে না। উনি নিজেও বোঝেন কি না, সন্দেহ আছে। কী দিয়েছেন দেশকে? কী করেছেন তিনি?’- এরকমই নজিরবিহীনভাবে অমর্ত্য সেনের প্রতি আক্রমণ শানিয়েছিলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ৷ আর তার প্রতিবাদে এক হয়ে গেল বাম-তৃণমূল৷ পার্থ চট্টোপাধ্যায় থেকে সূর্যকান্ত মিশ্র- একযোগে প্রতিবাদ করলেন এই মন্তব্যের৷

দিলীপের কদর্য মন্তব্যকে গুরুত্বই দিলেন না নোবেলজয়ী অমর্ত্য সেন

প্রধানমন্ত্রীর নোট বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়ে একাধিকবার সরব হতে দেখা গিয়েছে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেনকে৷ দেশের অর্থনীতিতে যে এটা বড় ধাক্কা, এমনটাই মনে করেন তিনি৷ কিছুদিন আগে এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছিলেন, শুধু জিডিপির নিরিখে এই ক্ষয়ক্ষতি বিচার করা যাবে না৷ যেভাবে দেশের কৃষি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিকরা বিপদে পড়েছেন, বিশেষত মহিলা শ্রমিকরা কাজ হারিয়েছেন- তার প্রভাব পড়বে দেশের ভবিষ্যতে৷ বরাবরই এ নিয়ে তিনি স্পষ্টবাক৷ জানান, নোট বাতিল ভুল সিদ্ধান্ত এ নিয়ে বলার কিছু নেই৷ কতবড় ভুল সিদ্ধান্ত তা নিয়ে আলোচনা হতে পারে৷ বস্তুত ভারতে নোট বাতিলের কোনও যৌক্তিকতাই খুঁজে পাননি৷ অর্থনীতিবিদের এই মন্তব্যকে সামনে রেখে নোট বাতিলের বিরোধিতায় শামিল হয়েছিল রাজ্যের শাসকদলও৷ তার জেরেই এরকম আক্রমণ বলে মত অনেকের৷

ভারতে নকল ২০০০ টাকার নোট পাচার করছে পাকিস্তান

তবে এই মন্তব্যের বিরোধিতায় এককাট্টা বাম ও তৃণমূল৷ তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়ে তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, “অত্যন্ত লজ্জাজনক মন্তব্য, সবার মাথা হেঁট হয়ে গিয়েছে৷ অমর্ত্য সেন শুধু বাঙালি সমাজে নয়, ভারত ও ভারতের বাইরেও তাঁর কৃতিত্বে সম্মানের জায়গায় আসীন৷” সেখানে এই ধরনের মন্তব্য অনভিপ্রেত৷ অবিলম্বে এই মন্তব্য প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন তিনি৷ একই সুর সিপিএমের পলিটব্যুরো সদস্য সূর্যকান্ত মিশ্রর কথাতেও৷ অমর্ত্য সেনের মতো মানুষ সম্পর্কে কে কী মন্তব্য করলেন তাতে তিনি পাত্তা দিতেই নারাজ৷ বললেন, ” অমর্ত্য সেনকে নিয়ে খুচরো কে কী বলল তার কানাকড়ি দাম নেই আমার কাছে৷ পাড়ার মস্তান গোছের কিছু বলল তাতে অমর্ত্য সেন বদলে যাবেন না৷ আমাদের কাছে তিনি গর্বের৷”  প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী বললেন, ” দিলীপ ঘোষ যে মন্তব্য করেছেন তাতে বোঝা যায় না তিনি অমর্ত্য সেনকে বোঝেন, না নোবেল৷ হম্বিতম্বি করে রাজনীতি হয় না৷ এটা আরএসএসের কালচার৷ “

‘পাকিস্তানে ৩১ দিনে ফেব্রুয়ারি! তারপরও কাশ্মীর চায়?’

এই প্রথমবার নয়, এর আগেও আক্রমণের মুখে পড়তে হয়েছিল নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদকে৷ তিনি দেশের নাগরিক কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছিল৷ এবারের মতো সেবারও কোনও বিরুদ্ধ সমালোচনাকে অস্বীকার করেননি তিনি৷ বরং জানিয়েছিলেন, তাঁরও যেমন সমালোচনার অধিকার আছে, তেমনই তাঁকে সমালোচনার অধিকারও সকলের আছে৷ দিলীপ ঘোষের মন্তব্যের পর অনেকেই বলছেন, অটলবিহারী বাজপেয়ীর আমলেই অমর্ত্য সেনকে নোবেল দেওয়া হয়েছিল৷ তা কি বর্তমান নেতারা ভুলে গিয়েছেন? বস্তুত শুধু রাজনৈতিক স্তরে নয়, নোবেলজয়ীর প্রতি এ ধরনের মন্তব্যে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়া-সহ সমাজের সর্বত্রই৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে