BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

আত্মঘাতী প্রেমিক, বহুতল থেকে মরণঝাঁপ প্রেমিকারও

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 14, 2016 2:24 pm|    Updated: July 14, 2016 2:24 pm

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: প্রেমে বাধা পেয়ে নৃশংসভাবে হাতের শিরা কাটার পর গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করল তরুণ প্রেমিক৷ প্রেমিকের আত্মহত্যার এক ঘণ্টার মধ্যেই বহুতলের ১১ তলা থেকে লাফ দিয়ে আত্মহত্যা করল তার কিশোরী প্রেমিকা৷

বুধবার দুপুরে শহরের বুকে ঘটল এই ঘটনা৷ দক্ষিণ কলকাতার হেস্টিংস থানা এলাকার জুবিলি লাইন সার্ভেন্টস কোয়ার্টারে থাকতেন শেখ জাহাঙ্গির (২০)৷ তিনি এক সেনা আধিকারিকের বাড়িতে পরিচারকের কাজ করতেন৷ অন্য এক সেনা আধিকারিকের বাড়িতে কাজ করত পরিচারিকা রুমকি দাস (১৭)৷ সে-ও থাকত ওই একই আবাসনে৷ প্রত্যেকদিন দেখা হতে হতেই দু’জন দু’জনকে ভালবেসে ফেলে৷ বিয়ে করার পরিকল্পনা করে ওই তরুণ ও কিশোরী৷ কিন্তু বাধা হয়ে দাঁড়ায় পরিবার৷ কিশোরীকে বলে দেওয়া হয়, সে যেন তার প্রেমিকের সঙ্গে না মেশে৷ গত কয়েক মাস ধরে কাজও করছিল না কিশোরী৷ পরিবারের পক্ষ থেকে বকাবকি করা হয় ওই তরুণকেও৷ এদিন প্রথমে জাহাঙ্গির তাঁর বাঁ-হাতের শিরা একটি ব্লেড দিয়ে কাটেন৷ প্রচণ্ড যন্ত্রণার মধ্যে গলায় দড়ি দিয়ে ঝুলে পড়েন তিনি৷ অনেকক্ষণ ধরে ঘরের দরজা ভিতর থেকে বন্ধ থাকায় তরুণের পরিজনদের সন্দেহ হয়৷ দুপুর সোয়া বারোটা নাগাদ তাঁরা দরজা খুলে তরুণকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখেন৷ একইসঙ্গে ঘরের মেঝে ও বিছানায় রক্তের ছাপ৷ এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন৷

ওই তরুণের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়ে পরিচারকদের আবাসনে৷ ওই সময় রিভার ভিউ-র একটি আবাসনে ছিল কিশোরী রুমকি৷ প্রেমিকের আত্মহত্যার খবর পায় সে৷ তারপর দুপুর সোয়া একটা নাগাদ ১২ তলা আবাসনের ১১ তলার উপর থেকে ঝাঁপ দেয় কিশোরী৷ আবাসনের রক্ষীরা রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে ওই কিশোরীকে৷ সঙ্গেই সঙ্গে হেস্টিংস থানায় খবর দেওয়া হয়৷ পুলিশ কিশোরীর রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার করে এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে যায়৷ সেখানেই তাকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়৷ দু’জনের আত্মহত্যার তদন্ত করছে পুলিশ৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement