৭ শ্রাবণ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২৩ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

দীপঙ্কর মণ্ডল: বিজেপির সদস্য হলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী! আঁতকে উঠছেন? বিষয়টা মানতে পারছেন না? বিশ্বাস হচ্ছে না? কিন্তু ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে মমতা ও রাহুলের বিজেপির সদস্য কার্ডের ছবি৷ যে ছবিকে ঘিরে নেটিজেনদের মধ্যে তৈরি হয়েছে জল্পনা৷

[ আরও পড়ুন: সব্যসাচীর বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাবে সই ৩৫ কাউন্সিলরের, শুরু ভোটাভুটির প্রস্তুতি]

কি রয়েছে সেই ছবিতে? যাতে দেখা যাচ্ছে বিজেপির সদস্য সংগ্রহ অভিযানে অংশগ্রহণ করেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি রাহুল গান্ধী৷ মোদি বিরোধী এই দুই নেতা-নেত্রীই যোগ দিয়েছেন বিজেপিতে৷ তাঁদের ছবি দেওয়া ই-কার্ডের ছবি ছড়িয়ে পড়েছে৷ ভাইরাল কার্ডের একটিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি ও নাম রয়েছে৷ অপরটিতে মুখ্যমন্ত্রীর নামের জায়গায় লেখা ‘চৌকিদার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়’৷ আরও একটি কার্ডে রয়েছে রাহুল গান্ধীর নাম ও ছবি৷ আর এই কার্ডগুলির ছবিকে ঘিরেই সোশ্যাল মিডিয়া তৈরি হয়েছে বিতর্ক৷ কে বা কারা একাজ করেছে, সেই উৎসের সন্ধান এখনও পাওয়া যায়নি৷ তবে এই কাজের সঙ্গে বিজেপি যোগের অভিযোগে সরব হয়েছে তৃণমূল ও কংগ্রেস শিবির৷ ঘটনার নিন্দা করে উভয় পক্ষেরই দাবি, এ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ও কংগ্রেস নেতার ভাবমূর্তি খারাপ করতেই এই ফেক বা ভুয়ো ছবি ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে৷

তৃণমূল মহা সচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, “এটা ভুয়ো। দল এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে। বিজেপি ইন্টারনেট ব্যবহার করে ভুটো খবর ছড়াচ্ছে। কতটা নীচ হলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে এই ধরণের রটনা করা যায়!”

[ আরও পড়ুন: বিজেপিতে গুটখার গন্ধ! তৃণমূলে ফিরলেন হালিশহরের চেয়ারম্যান-সহ ৮ কাউন্সিলর ]

প্রসঙ্গত, জনসংঘের প্রতিষ্ঠাতা শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের জন্মদিনে সমগ্র দেশজুড়ে শুরু হয়েছে বিজেপির সদস্যতা অভিযান৷ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির হাত দিয়ে শুভসূচনা হওয়ার পর, অভিযানে অংশগ্রহণ করছেন অসংখ্য মানুষ৷ অনলাইনে গেরুয়া শিবিরের সদস্য হচ্ছেন তাঁরা৷ সেজন্য নির্দিষ্ট একটি ওয়েবসাইটে গিয়ে একটি ফর্ম পূরণ করতে হচ্ছে আগ্রহীদের৷ যেখানে লিখতে হচ্ছে আগ্রহীদের নাম, ঠিকানা, ফোন নম্বর৷ উল্লেখ করতে হচ্ছে লোকসভা কেন্দ্র ও বিধানসভা কেন্দ্রের নাম৷ আপলোড করতে হচ্ছে নিজের ছবি৷ এই সমস্ত কিছু করে আপডেট মারলেই বিজেপির সদস্য হিসাবে একটি ই-কার্ড চলে আসছে৷ এবং সেখানে লেখা থাকছে, ওই আগ্রহী ব্যক্তি বিজেপির সদস্য হয়েছেন৷ দেওয়া থাকছে, ব্যক্তির মেম্বারশিপ নম্বর৷

 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং