BREAKING NEWS

১৮ জ্যৈষ্ঠ  ১৪৩০  শুক্রবার ২ জুন ২০২৩ 

READ IN APP

Advertisement

শহরে একাধিক রাজনৈতিক কর্মসূচি: ‘দয়ার সাগররা সংবিধান নিয়ে জ্ঞান দিচ্ছে!’, বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ মমতার

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: March 29, 2023 10:13 am|    Updated: March 30, 2023 8:27 am

Mamata Banerjee attacks BJP on democracy and constitution at dhrana stage | Sangbad Pratidin

আম্বেদকর মূর্তির সামনে ধরনায় মুখ্যমন্ত্রী  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিকে শহিদ মিনারে সভা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের। ঠিক তার উলটো দিকে চলছে ডিএ আন্দোলেনকারীদের ধরনা। একই দিনে তিলোত্তমার রাজপথে নামছে বাম-কংগ্রেস। রাজ্যের দুর্নীতির প্রতিবাদে শ্যামবাজারে কর্মসূচি বিজেপির। কেন্দ্রের নীতির বিরুদ্ধে দিল্লিতে ধরনায় তৃণমূল সাংসদরা। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে ফের শুরু ধরনা। জানালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সন্ধে ৬.৪১: ডিএ আন্দোলনকারীদের নিশানা মুখ্যমন্ত্রীর। তাঁর অভিযোগ, ”চিরকুটে যারা চাকরি পেয়েছিল, তারাই ডিএ চেয়ে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে। চোর, ডাকাতরা বসে আছে।”

সন্ধে ৬.৩০: ‘সারা ভারতের মানুষ আমায় ভালবাসেন। আমাদের ধরনা দেখানো নিয়ে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। বিজেপিকে বলছি, এসব করে লাভ নেই। আমার এতটাই হিম্মত আছে যে প্রধানমন্ত্রীর বাড়ির পাশে গিয়ে ধরনায় বসব। মনে রাখবেন, জয়ললিতা মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন, উনিও ধরনায় বসেছিলেন।’ বললেন মুখ্যমন্ত্রী।

সন্ধে ৬.২৫: ‘নতুন করে দয়ার সাগরের জন্ম হয়েছে, যাঁরা জ্ঞান দিচ্ছেন গণতন্ত্র নিয়ে, সংবিধান নিয়ে। যাঁরা মা-বোনেদের সম্মান দিতে জানে না, তাঁরাও আবার কী এত বড় বড় কথা।’ বিজেপি বিরোধী সুর চড়ালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।   

সন্ধে ৬.০৪: ‘ভারতে আজও সততার প্রতীক যদি কেউ থাকেন, তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়’, বললেন তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক। 

সন্ধে ৬: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ধরনামঞ্চে বক্তব্য রাখছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। ”ইডি, সিবিআই লেলিয়ে দেওয়া হচ্ছে”, অভিযোগ অভিষেক। অভিযোগ, ”বাংলাকে ভাতে মারার চেষ্টা চলছে। মানুষের কাছে যাবেন বুক ঠুকে, মাথা উঁচু করে রাজনীতি করবেন। বিজেপির থেকে দুর্নীতি নিয়ে, সততার কথা, গণতন্ত্রের কথা কিছু শুনব না। ”

বিকেল ৫.৫১: শহিদ মিনারে ডিএ আন্দোলনকারীদের মঞ্চে হামলার অভিযোগ। আক্রান্ত হুগলির এক শিক্ষক। অভিযোগের তির তৃণমূলের দিকে। 

বিকেল ৫.১০: রেড রোডে মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের ধরনা মঞ্চে অভিষেক বন্দ্য়োপাধ্যায়। অন্যান্য মন্ত্রীদের সঙ্গে বসলেন ধরনায়।

বিকেল ৪.২৮: তৃণমূল কোনও দল নয়, প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানি। মুখ্যমন্ত্রী কোনও নিয়মই মানেন না। শ্যামবাজার থেকে তৃণমূল ও দলনেত্রীকে তোপ শুভেন্দুর। কটাক্ষ করে বললেন, “সিপিএম যা, মমতাও তাই।”

বিকেল ৪.১৭: তৃণমূল বারবার বলেছে, ‘বিজেপি ওয়াশিং মেশিন’। দুর্নীতিগ্রস্তরা তদন্তের হাত থেকে বাঁচতে বিজেপিতে যোগ দেন বলেই দাবি তাঁদের। বুধবার তৃণমূল নেত্রীর ধরনামঞ্চে দেখা গেল ওয়াশিং মেশিনের কাটআউট। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একহাতে তাতে দিলেন কালো কাপড়। বের করলেন সাদা কাপড়! অর্থাৎ এদিন ফের বোঝাতে চাইলেন, দুর্নীতি করেও রেহাই পাওয়ার একটাই অস্ত্র ‘ওয়াশিং মেশিন’ বিজেপি। সেই সঙ্গে বিজেপিকে বিঁধে গান শোনা গেল ধরনামঞ্চে। 

দুপুরে ৩.৪৯: পূর্বসূচি অনুযায়ী মিছিলে হাঁটলে বাম-কংগ্রেস। মিছিলের নেতৃত্বে বিমান বসু, মহম্মদ সেলিমরা।

 

দুপুর ৩.৪১: তৃণমূল একমাত্র দল যারা দলের লোকের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ পাওয়া মাত্রই পদক্ষেপ করেছে, বললেন অভিষেক।

দুপুর ৩.৩৪: ‘কর্মীদের গায়ে আচড় পড়লে ছেড়ে কথা বলব না’, হুঁশিয়ারি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের। সুর চড়ালেন রাহুল গান্ধীর সাংসদ পদ খারিজের বিরোধিতায়। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ‘দিদি ও দিদি’ বলে কটাক্ষ করায় মোদির প্রধানমন্ত্রী পদ খারিজের আরজি জানালেন তিনি। 

দুপুর ৩.২৩: ‘দিল্লির দানবদের কাছে নয়, বারবার দরকারে বাংলার জনতা-জনার্দনের কাছে মাথা নত করব।’ চ্যালেঞ্জ তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদকের। 

দুপুর ৩.১৮: ”এটা তো ট্রেলার, দরকার হলে আন্দোলন ক্রমশ বৃহত্তর হবে। দিল্লির বুক থেকে সমস্ত অধিকার ছিনিয়ে আনব। ভবিষ্যতে দিল্লিতেও সভা হবে।” বললেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। শোনালেন শহিদ মিনারের পূর্ব ইতিহাস।

দুপুর ৩.১২: শহিদ মিনারে ছাত্র ও যুব তৃণমূলের সমাবেশে তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। কেন্দ্রীয় বঞ্চনা, এজেন্সির অতিসক্রিয়তা-সহ একাধিক ইস্যুতে কেন্দ্রবিরোধী সুর চড়ালেন। বললেন, বিজেপি কেন্দ্রের ক্ষমতায় এসে বাংলাকে সবরকমভাবে বঞ্চিত করেছে।

দুপুর ২.৩৭: ধরনা শুরুর আড়াই ঘণ্টা পর প্রথম মুখ খুললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জানালেন, মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে নয়, তৃণমূল সুপ্রিমো হিসেবে দলের তরফে এদিন ধরনায় বসেছেন তিনি। অর্থাৎ আজকের ধরনার খরচ দলের সরকারে নয়। যদিও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ধরনা ঘোষণার দিন স্পষ্টভাবে জানিয়েছিলেন যে, মুখ্যমন্ত্রী হিসেবেই ধরনায় বসবেন তিনি। 

দুপুর ২.৩০: হাওড়ায় ডিওয়াইএফআইয়ের মিছিলের নেতৃত্বে মীনাক্ষী মুখোপাধ্যায়। 

দুপুর ২.১৭: ধর্মতলায় ডিএ আন্দোলনকারীদের আন্দোলনস্থলে কংগ্রেস নেতা তথা আইনজীবী কৌস্তুভ বাগচী। 

দুপুর ২.১৫: “একশো দিনের কাজের হিসেব দেননি। টাকা চুরি করেছেন, তাহলে এই ধরনা কীসের?”, মুখ্যমন্ত্রীকে বেনজির আক্রমণ অগ্নিমিত্রা পালের।

দুপুর ২.০০: শুরু অভিষেকের সভা। বক্তব্য রাখছেন সুব্রত বক্সি। শ্যামবাজারে বিজেপির অবস্থান মঞ্চে বক্তৃতা রাখছেন শংকর ঘোষ।

দুপুর ১.৩৫: বিজেপির কর্মসূচিতে অভিনেতা রুদ্রনীল ঘোষ। আক্রমণ করলেন তৃণমূলকে। 

দুপুর ১.৩০: ছাঁটাইয়ের প্রতিবাদ। ভাতের থালা হাতে রাস্তায় ভোকেশনাল শিক্ষক ও ল্যাব অ্যাটেন্ডেটরা। 

দুপুর ১.১০: শ্যামবাজারে ধরনা শুরু বিজেপির।

বেলা ১২.৫৪: ধরনামঞ্চে মুখ্যমন্ত্রীর পাশে ‘ভারতের সংবিধান’ বইটি। তাতে মালা পরিয়ে দিলেন মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস। 

বেলা ১২.৪১: ধরনা মঞ্চে রয়েছে গ্যাসের কাটআউট। মঞ্চে বাজানো হচ্ছে মুখ্যমন্ত্রীর লেখা, ইন্দ্রনীল সেনের গাওয়া গান।  

 

বেলা ১২.৩৫: শিয়ালদহ থেকে শহিদ মিনারের পথে তৃণমূলের কর্মী-সমর্থকরা। রাস্তায় কার্যত জনপ্লাবন। 

বেলা ১২.০৮:  ধরনায় বসলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সঙ্গে রয়েছেন ফিরহাদ হাকিম, বীরবাহা হাঁসদা, ইন্দ্রনীল সেন, জ্যোৎস্না মান্ডি, চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য, শশী পাঁজা, সুজাতা মণ্ডল, অরূপ রায়-সহ অন্যান্যরা। 

বেলা ১২.০৫: ধরনা মঞ্চে পৌঁছলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করলেন আম্বেদকরের মূর্তিতে। 

বেলা ১১.৫০: ধরনামঞ্চের উদ্দেশে রওনা হলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)।

বেলা ১১.৪৫: রেড রোডে মুখ্যমন্ত্রীর ধরনা মঞ্চের পাশেই খোলা হয়েছে অস্থায়ী অফিস। সেখান থেকেই প্রশাসনিক কাজ করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 

বেলা ১১.২০: ‘যারা দুর্নীতিতে যুক্ত, তাঁদের বিরুদ্ধে ইডি-সিবিআই ব্যবস্থা নিলে তার প্রতিবাদে পথে নামবেন?’, ফের দিলীপ ঘোষের নিশানায় তৃণমূল। 

বেলা ১১.১২: “সংসদীয় গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাকে হত্যা করা হচ্ছে। তার প্রতিবাদে আজ আমরা বিক্ষোভে সামিল হয়েছি,” দিল্লিতে আম্বেদকর মূর্তির পাদদেশে বিক্ষোভ চলাকালীন বললেন সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়।

 

বেলা ১১.১০: শিয়ালদহে জমায়েত তৃণমূল কর্মী-সমর্থকদের। রয়েছেন রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী। মঞ্চের সামনে রাখা গ্যাস। মূলত কেন্দ্রের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতেই এই ব্যবস্থা। 

সকাল ১০.৩০: অভিষেকের সভায় যোগ দিতে নদী পথে কলকাতার উদ্দেশে রওনা দিলেন সুন্দরবনের কর্মীরা।

সকাল ১০.১৫: কেন্দ্রের নীতির বিরোধিতায় দিল্লিতে আম্বেদকর মূর্তির পাদদেশে বিক্ষোভে তৃণমূল সাংসদরা। রয়েছেন মহুয়া মৈত্র, শতাব্দী রায়, ডেরেক ও ব্রায়েন-সহ সকলেই। তাঁদের হাতের প্ল্যাকার্ডে লেখা, “সেভ কনস্টিটিউশান।”

 

সকাল ১০.০০: সভাস্থল থেকে কি ডিএ আন্দোলনকারীদের জন্য বার্তা দেবেন অভিষেক? সেদিকেই নজর আন্দোলনকারীদের একাংশের।  এদিকে হাই কোর্টের নির্দেশে ডিএ আন্দোলনকারীদের অবস্থানস্থল মুড়ে ফেলা হয়েছে পুলিশে।

সকাল ৯.৫৫: অভিষেকের সভায় যোগ দিতে ইতিমধ্যেই জেলার তৃণমূল কর্মী-সমর্থকরা হাজির হয়েছেন কলকাতায়। ভিড় শিয়ালদহ-হাওড়ায়। একাধিক কর্মসূচির কারণে শহর কলকাতায় প্রবল যানজটের আশঙ্কা। 

সকাল ৯.৪০: শহিদ মিনার চত্বরে চলছে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভার শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি। আদালতের নির্দেশ মেনে কড়া নিরাপত্তায় মুড়ে ফেলা হয়েছে সভাস্থল। বেলা ২ টোয় বক্তব্য রাখবেন অভিষেক। 

সকাল ৯.৩০: বেলা ১২ টায় আম্বেদকরের মূর্তির সামনে ধরনায় বসবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার আগেই সেজে উঠেছে রেড রোড। গোটা রাস্তা মুড়ে ফেলা হয়েছে শাসকদলের পতাকায়। 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে