৫ ফাল্গুন  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

নব্যেন্দু হাজরা: বহু টালবাহানার পর বৃহস্পতিবার যাত্রা শুরু হচ্ছে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর। কিন্তু উদ্বোধনের আগেই সংঘাতে জড়াল কেন্দ্র-রাজ্য। রাজ্যকে অন্ধকারে রেখেই উদ্বোধনের সূচি ঘোষণার জেরে অনুষ্ঠান বয়কট করতে চলেছেন আমন্ত্রিতরা। আমন্ত্রণপত্রে নাম নেই মুখ্যমন্ত্রীর অথচ এই প্রকল্প মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্বপ্নের প্রকল্প। যার জেরে উদ্বোধন অনুষ্ঠান ঘিরে জট।

ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো প্রকল্প মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের প্রকল্প। কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রী থাকাকালীন প্রথম এই প্রকল্পের সূচনা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তারপর অনেক জট কাটিয়ে, দীর্ঘ পথ পেরিয়ে ১৩ ফেব্রুয়ারি লক্ষ্মীবারে সূচনা হতে চলেছে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর। প্রাথমিকভাবে সল্টলেকের সেক্টর ফাইভ থেকে যুবভারতী স্টেডিয়াম পর্যন্ত চলবে মেট্রো। প্রথম পর্যায়ে করুণাময়ী-সহ ৬টি স্টেশনে দাঁড়াবে মেট্রো। কয়েক মাসের মধ্যে ফুলবাগান পর্যন্ত তা চালু করা হবে। বৃহস্পতিবার এর সূচনা করবেন কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে স্থানীয় বিধায়ক তথা রাজ্যের মন্ত্রী সুজিত বসু, বারাসতের সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার এবং বিধাননগরের মেয়র কৃষ্ণা চক্রবর্তীকে। আর এতেই বেঁধেছে গোল।

[আরও পড়ুন: আধুনিক সাজে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর স্টেশনগুলির অন্দর, দেখুন গ্যালারি]

অনুষ্ঠানে ব্রাত্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এমনকী এই প্রকল্পের জমি নিয়ে যে জটিলতা তৈরি হয়েছিল তা সমাধান করেছিল রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়ন দপ্তর। সেই দপ্তরের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমকেও আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। রাজ্য প্রশাসনকে অন্ধকারে রেখেই উদ্বোধনের দিন ঘোষণা করা হয়েছে বলে সরব হয়েছে তৃণমূল। আমন্ত্রিতরা অনুষ্ঠানে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে সূত্রের খবর। তবে সরকারিভাবে অনুষ্ঠান বয়কটের কথা ঘোষণা করা হয়নি তৃণমূলের তরফে। যা খবর, তাতে রাজ্যের প্রতিনিধিদের ছাড়াই উদ্বোধন হতে চলেছে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো প্রকল্পের।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং