১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বৃহস্পতিবার ২ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

মমতার সভায় মায়াবতীর দূত, সন্ধ্যায় ব্রিগেড পরিদর্শনে মুখ্যমন্ত্রী

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: January 17, 2019 3:59 pm|    Updated: January 17, 2019 3:59 pm

Maya envoy in Mamata meet

ধ্রুবজ্যোতি বন্দ্যোপাধ্যায়: বৃহত্তম ব্রিগেডের পটভূমি তৈরি। জাতীয় রাজনীতির এ যাবৎকালের সব থেকে বড় কর্মসূচি। বিজেপি-বিরোধী মঞ্চ গড়ে ব্রিগেড থেকে বিজেপিকে ক্ষমতা থেকে সরানোর যে ডাক মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দিতে চাইছেন ১৯-এ তার বাস্তব রূপ দেখতে পাবে গোটা দেশ। ইতিমধ্যে তৃণমূলের ব্রিগেডে আসার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে কংগ্রেস, সপা, বিএসপি, আপের মতো দেশের সমস্ত বিরোধী দল। এই পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবারই তৃণমূলের তরফে জানিয়ে একাধিক ভাষায় টুইট করে জানিয়ে দেওয়া হল, ব্রিগেডেই বাজবে বিজেপির বিদায়ঘণ্টা। আজই সন্ধ্যায় ব্রিগেডের প্রস্তুতি খতিয়ে দেখতে যাচ্ছেন তৃণমূলনেত্রী। নবান্ন থেকেই তাঁর ব্রিগেডের ময়দানে যাওয়ার কথা। ফলে সব মিলিয়ে ব্রিগেড নিয়ে কলকাতা সরগরম।

সমাবেশের সময় যত এগিয়ে আসছে, মঞ্চে তত দীর্ঘ হতে চলেছে বিজেপি বিরোধী মুখের তালিকা। যে তালিকায় এখনও পর্যন্ত সর্বশেষ সংযোজন বিএসপি নেতা সতীশ মিশ্র। সমাজবাদী পার্টির অখিলেশ আসার কথা জানালেও বিএসপির তরফে বুধবার রাত পর্যন্ত কোনও নাম নিশ্চিত ছিল না। বৃহস্পতিবার সকালেই তাদের তরফে জানানো হয় আসছেন সতীশ মিশ্র। গতকালই জানানো হয় ব্রিগেডের মঞ্চে থাকবেন গেগং আপাং। বিজেপি থেকে পদত্যাগ করার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বুধবার অরুণাচলের এই প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জানিয়ে দিয়েছিলেন তিনি ১৯ জানুয়ারি মমতার ব্রিগেড সভায় আসছেন। এছাড়াও আসছেন মিজোরামের বিরোধী দলনেতা পু লালদুহওয়ামা। নবান্ন থেকে বেরনোর সময়ই বুধবার এই সংবাদ দিয়ে যান মমতা। এককথায় বললে, বিজেপি ও বামফ্রন্ট বাদে দেশের বাকি রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিরাই হাজির হচ্ছেন ব্রিগেডে।

[লক্ষ্য মতুয়া ভোট, ঠাকুরনগরে মোদিকে দিয়ে সভার ভাবনা বিজেপির]

ব্রিগেডকে ঘিরে সাধারণ মানুষের আগ্রহও বাড়ছে। হাজিরার তালিকা দেখলেই বোঝা যাবে ১৯ জানুয়ারির ব্রিগেড সর্বভারতীয় রাজনীতির উত্তাপ কোন পর্যায়ে পৌঁছেছে। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী দেবগৌড়া, অন্ধ্রপ্রদেশের বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নায়ডু, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল, কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামী, এনসিপি-র শারদ পাওয়ার, জম্মু-কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ন্যাশনাল কনফারেন্সের নেতা ফারুক আবদুল্লা এবং তাঁর ছেলে ওমর আবদুল্লা, উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী সমাজবাদী পার্টির অখিলেশ যাদব, লালুপ্রসাদ যাদবের পুত্র আরজেডি-র তেজস্বী যাদব, ডিএমকে প্রধান এম কে স্ট্যালিন, ইন্ডিয়ান ইউনিয়ন মুসলিম লিগের বদরুজ্জামান আজমল, ঝাড়খণ্ড বিকাশ মোর্চার বাবুলাল মারান্ডি, আরএলডি-র অজিত সিং ও তঁার ছেলে আসছেন ব্রিগেডের সভায়। জাতীয় রাজনীতিতে অতি পরিচিত তরুণ নেতা জিগনেশ ও হার্দিক প্যাটেল ব্রিগেডের সমাবেশে আসবেন বলে জানিয়েছেন। এছাড়াও বিজেপি বিক্ষুব্ধ নেতা শত্রুঘ্ন সিনহা, প্রাক্তন মন্ত্রী যশবন্ত সিনহা, অরুণ শৌরি, শিবসেনার সঞ্জয় রাউথ, প্রাক্তন বিজেপি নেতা রাম জেটমালানি ব্রিগেডের সভায় আসছেন। লোকসভার বিরোধী দলনেতা মল্লিকার্জুন খাড়গেকে ইতিমধ্যে কংগ্রেসের প্রতিনিধি হিসাবে ব্রিগেডে পাঠাচ্ছেন সোনিয়া গান্ধী। এছাড়াও থাকবেন বাংলা থেকে নির্বাচিত রাজ্যসভার কংগ্রেস সাংসদ অভিষেক মনু সিংভি।

অন্যদিকে, ব্রিগেডে তৃণমূলের প্রস্তুতি ঘিরে রীতিমতো সাজসাজ রব। সব মিলিয়ে পাঁচটি মঞ্চ তৈরি হয়েছে। মূল মঞ্চই সবচেয়ে বড়। সেখানেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বসবেন দেশের বিরোধী সব দলের নেতারা। অন্য চার মঞ্চের দু’টিতে থাকবেন তৃণমূলের নেতা-মন্ত্রীরা। বাকি দু’টিতে থাকবেন সংস্কৃতি জগতের মানুষ। এই পরিস্থিতিতে শহরে এসে পৌঁছে গিয়েছেন অসংখ্য মানুষ। বিভিন্ন জেলা থেকে শুধু নয়, একাধিক রাজ্য থেকে আসছেন মানুষ। ইতিমধ্যে মানুষের ভিড় জমতে শুরু করেছে কলকাতায়। কিছু মানুষ আগামিকাল এসে পৌঁছবেন ট্রেনে। ফলে সব ব্যবস্থা একপ্রকার পাকা। শহর এখন ব্রিগেডময়। তারই প্রস্তুতিই চূড়ান্ত করতে আজ সন্ধ্যায় ব্রিগেডে আসবেন তৃণমূলনেত্রী।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে