৫ মাঘ  ১৪২৫  রবিবার ২০ জানুয়ারি ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফিরে দেখা ২০১৮ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সৌমিত্র খাঁ-র পর অনুপম হাজরা। লোকসভা ভোটের মুখে দুই জন সাংসদকে বহিষ্কার করল তৃণমূল কংগ্রেস। একইদিনে দল থেকে সরানো হল বিষ্ণুপুর ও বোলপুরের সাংসদকে। তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, সৌমিত্র খাঁয়ের মতোই নানা সময়ে বিতর্কে জড়িয়েছেন সাংসদ অনুপম হাজরাও। তাঁর কাজের জন্য দলের ভাবমূর্তি নষ্ট হয়েছে। দলবিরোধী কাজের অভিযোগেই বোলপুরের সাংসদকে তৃণমূল কংগ্রেস থেকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

[ তৃণমূলে গুরুত্ব হারিয়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন সাংসদ সৌমিত্র খাঁ]

বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়াতেন। রাজনৈতিক মহলে তেমন কোনও পরিচিতিই ছিল না। ২০১৪ সালে বোলপুর লোকসভা কেন্দ্রে যখন অনুপম হাজরাকে প্রার্থী করে শাসকদল, তখন অবাকই হয়েছিলেন অনেকেই। শেষপর্যন্ত সিপিএমের হেভিওয়েট প্রার্থী রামচন্দ্র ডোমকে ভোটে হারিয়েও দেন অনুপম। কিন্তু, নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে বিভিন্ন বিষয়ে ফেসবুকে বিতর্কিত পোস্ট করে দলকে বিড়ম্বনায় ফেলেন এই তরুণ সাংসদ। শাসকদল সম্পর্কে তো বটেই, সোশ্যাল মিডিয়ার মহাত্মা গান্ধীকেও কদর্য ভাষায় আক্রমণ করেছেন বোলপুরের সাংসদ অনুপম। শাসকদলের অন্দরের খবর, অনুপম হাজরার কার্যকলাপে রীতিমতো ক্ষুদ্ধ ছিল শাসকদলের শীর্ষ নেতৃত্ব। দলের সংগঠনের সঙ্গেও তেমন যোগাযোগ রাখতেন না অনুপম।তাঁকে বহুবার দলের তরফে সতর্কও করা হয়েছিল। এমনকী, শোকজও করা হয়েছিল বোলপুরের সাংসদ অনুপম হাজরাকে। কিন্তু নিজেকে বদলাননি তিনি। শেষপর্যন্ত লোকসভা ভোটের মুখে বিতর্কিত এই সাংসদকে বহিষ্কার করল তৃণমূল কংগ্রেস। শোনা যাচ্ছে, বিজেপিতে যোগ দিতে পারেন সাংসদ অনুপম হাজরা।

এর আগে অস্ত্র মামলায় আপ্ত সহায়ক গ্রেপ্তার হতেই বিজেপিতে যোগ দেন বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুরের তৃণমূল সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। তবে গত কয়েক মাস ধরে তলে তলে তিনি গেরুয়াশিবিরের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছিলেন বলে খবর। বুধবার  দিল্লিতে আনুষ্ঠানিকভাবে বিজেপিতে যোগ দিলেন সৌমিত্র। এরপরই তাঁকে দল থেকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত ঘোষণা করে এ রাজ্যের শাসকদল।  

[ উপনির্বাচনে দ্বিগুণেরও বেশি ভোটে জয়ী মেয়র ফিরহাদ, দ্বিতীয় বিজেপি]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং