BREAKING NEWS

৪ আষাঢ়  ১৪২৮  শনিবার ১৯ জুন ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

অন্য বেঞ্চে হবে না নারদ মামলার শুনানি, মদন মিত্রর আইনজীবীর আরজি খারিজ হাই কোর্টে

Published by: Paramita Paul |    Posted: May 20, 2021 4:49 pm|    Updated: May 20, 2021 5:48 pm

Narada Case: No relief for Firhad Hakim, Subrata Mukherjee, Madan Mitra and Sovon Chatterjee by Calcutta High Court| Sangbad Pratidin

শুভঙ্কর বসু: আজ জেলেই থাকছেন নারদ মামলায় (Narada Case) ধৃত চার হেভিওয়েট নেতা। বৃহস্পতিবার যাতে অন্য বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চে শুনানি হয় তার জন্য আবেদন করেছিলেন মদন মিত্রের আইনজীবী। কিন্তু বেলা গড়াতেই সেই আবেদন খারিজ হয়ে গেল। জানিয়ে দেওয়া হল শুক্রবারই এই মামলার শুনানি হবে।

বৃহস্পতিবার সকালেই কলকাতা হাই কোর্টের ওয়েবসাইটে দেড় লাইনের একটি নোটিস দেওয়া হয়। জানানো হয়, অনিবার্য কারণবশত এদিন নারদ মামলার শুনানি হবে না। এর পরই ধৃত তৃণমূল নেতা তথা বিধায়ক মদন মিত্রের আইনজীবী কলকাতা হাই কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেলের কাছে আবেদন জানান। বলেন, “আজ হাই কোর্টে অন্য ডিভিশন বেঞ্চ তো বসছে। সেখানেই এই মামলার শুনানি হোক।” উল্লেখ্য, রেজিস্ট্রার জেনারেল হলেন প্রধান বিচারপতির বার্তাবাহক। তিনি কলকাতা হাই কোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দালকে জানান।

[আরও পড়ুন: ব্যাংক ও কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের দ্রুত টিকার ব্যবস্থা করুন, মোদিকে ফের চিঠি মমতার]

সূত্রের খবর, প্রধান বিচারপতি জানিয়েছেন, আগামিকালই তাঁর নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ বসবে। এই বেঞ্চে নারদ মামলার শুনানি অনেকটা এগিয়ে গিয়েছে। তাই অন্য বেঞ্চে শুনানি শুরু করে লাভ নেই। তাই এদিন অভিযুক্ত মদন মিত্রের আইনজীবীর আরজি খারিজ হয়ে গেল। উল্লেখ্য, বুধবার প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চে প্রায় আড়াই ঘণ্টা নারদ মামলার শুনানি হয়।

কলকাতা হাই কোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দল ও  বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চে বুধবার নারদ মামলার দ্বিতীয় শুনানি হয়। মূলত, সিবিআইয়ের হাতে ধৃত ২ মন্ত্রী-সহ রাজ্যের ৪ হেভিওয়েট নেতার জামিনে যে স্থগিতাদেশ জারি করেছিল উচ্চ আদালত, তা খারিজের আবেদন নিয়ে দায়ের হওয়া মামলার শুনানি ছিল। পাশাপাশি, মামলার গুরুত্ব এবং নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে তা অন্যত্র সরানো নিয়েও সিবিআইয়ের আবেদনটিও শোনার কথা ছিল বিচারপতিদের। তবে বুধবার দ্বিতীয় ইস্যু নিয়েই প্রায় আড়াই ঘণ্টা সওয়াল-জবাব চলে। ফলে জামিন মামলার শুনানি কার্যত হয়নি। বৃহস্পতিবার দুপুরের পর তা হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু শেষ মুহূর্তে তা বাতিল হল। যার জেরে মামলার ভবিষ্যৎ এই মুহূর্তে বেশ অনিশ্চয়তার মুখে। বন্দিদশাও বেড়ে চলেছে ফিরহাদ হাকিম, সুব্রত মুখোপাধ্য়ায়, মদন মিত্র, শোভন চট্টোপাধ্যায়ের। 

[আরও পড়ুন: বাতিল হচ্ছে না মাধ্যমিক-উচ্চমাধ্যমিক, পরীক্ষার ভবিষ্যৎ নিয়ে মুখ খুললেন শিক্ষামন্ত্রী]

 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement