১১ মাঘ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ২৫ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

ব্রাজিলেই মন বাঙালির, নেইমার-ট্যাটুতে মজেছেন তরুণ-তরুণীরা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 6, 2018 12:37 pm|    Updated: July 6, 2018 1:53 pm

Neymar fever grips Kolkata, tattoo huge hit

শৌনক চক্রবর্তী:  ট্যাটুর আমি, ট্যাটুর তুমি। ট্যাটু দিয়ে যায় চেনা… বিশ্বকাপে মরসুমের নতুন করে জেগে উঠেছে বাঙালির ফুটবলপ্রেম। শরীর জুড়েও এখন শুধুই ফুটবল। প্রিয় দল কিংবা পছন্দের ফুটবলারের ট্যাটুর প্রতি ঝোঁক বেড়েছে শহরের তরুণ-তরুণীদের।

[আজ দেশঁ বনাম তাবারেজ, সুয়ারেজ-এমবাপে দ্বৈরথের জন্য মুখিয়ে বিশ্ব]

টালিগঞ্জের বছর তিরিশের বাপ্পা বাইক। ডাই হার্ট ব্রাজিল ফ্যান। পিঠে নেইমারের মুখ। শহরের ট্যাটু শপ ‘থান্ডার ওয়ার্ল্ড ট্যাটুজ’ থেকে ট্যাটু করিয়েছেন বাপ্পা। তিনি বলেন, ‘এই ইচ্ছাপূরণটা হয়েছে। এবার ব্রাজিল বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হলেই ষোলোকলা পূর্ণ হবে।‘  রবীন্দ্র সরোবর  মেট্রো স্টেশন থেকে অটোতে মিনিট দশেক সময় লাগে। সাউথ সিটি মলের উলটো দিকের গলিতে ঢুকলেই চোখে পড়বে ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার বিশালাকায় দুটো ফ্ল্যাগ হাওয়ায় উড়ছে। সামান্য হাঁটলেই ট্যাটু শপ ‘থান্ডার ওয়ার্ল্ড ট্যাটুজ’। বাইরে থেকে দেখে বোঝার উপায় নেই। কিন্তু ভিতরে লুঝনিকি-র পরিবেশ। দোকানের ভিতরে টাঙানো ব্রাজিলের ফ্ল্যাগ, নেইমারে নাম লেখা জার্সি। টেবিলে বিশ্বকাপের আদলে তৈরি ট্রফি। ব্রাজিলের জার্সি পরে ট্যাটু আঁকছেন শিল্পী শান্তনু চট্টোপাধ্যায়। বিশ্বকাপের বাজারে যাঁরা ট্যাটু করাতে আসছেন, তাঁদের স্পেশাল অফার দিচ্ছেন তিনি। ব্রাজিলের ফ্যান হলে মিলবে বিশেষ ছাড়। সাত হাজার ট্যাটু করিয়ে নিতে পারেন অর্ধেকেরও কম দামে। ট্যাটু-শিল্পী শান্তনু চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘আঠানব্বই থেকে বিশ্বকাপ দেখছি। ব্রাজিলের ম্যাচ মানেই হলুদ জার্সি পরে টিভির সামনে বসে পড়ি। ব্রাজিল ফাইনালে উঠলে আরও স্পেশাল কিছু অফার দেব। আর চ্যাম্পিয়ন হলে কিছু ট্যাটু তো বিনা পয়সায় করে দেব ঠিক করে রেখেছি।‘  তাঁর আক্ষেপ, ‘আর্জেন্টিনা, পর্তুগাল ছিটকে গেল। দু’জন বলেছিল আসবে। ফেভারিট টিম হারায় অ্যাপয়েন্টমেন্ট বাতিল করে দিল।‘

কলকাতার অন্যতম জনপ্রিয় ট্যাটু সেন্টার ট্যাটু ক্রিড। তাদের মালিক বলছিলেন, ‘বিশ্বকাপের বাজারে ট্যাটুর চাহিদা ভাল। অনেকে বুকে ব্রাজিল, আর্জেন্টিনার ফ্ল্যাগ আঁকিয়েছেন। অনেকে হাতে মেসি-রোনাল্ডো-নেইমার নাম লিখিয়েছেন।” শ্যামবাজারের ‘রন’স ইনক’-এর ছবিও এক। বিশ্বকাপ শুরুর আগে নেইমার-মেসি-রোনাল্ডোর উল্কি আঁকার চাহিদা ছিল। এখন শুধু নেইমারে এসে ঠেকেছে। শিল্পী রন বলছিলেন,  ‘এখন সবাই নেইমারের মুখ আঁকাচ্ছে।‘  বিশ্বকাপে বাঙালির ফুটবল আবেগ সপ্তমে চড়েছে। যা স্মরণীয় করে রাখতে ট্যাটু-ই ব্রহ্মাস্ত্র শহরের!

দেখুন ভিডিও:

[কার দখলে যাবে বিশ্বকাপের সোনার বল, মেসি-রোনাল্ডোর পর কে এগিয়ে দৌড়ে?]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে