১৪  আশ্বিন  ১৪২৯  সোমবার ৩ অক্টোবর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

ছাত্র বিক্ষোভের জেরে নজিরবিহীন সিদ্ধান্ত প্রেসিডেন্সির, ক্যাম্পাসে হচ্ছে না সমাবর্তন

Published by: Tanumoy Ghosal |    Posted: September 10, 2018 7:47 pm|    Updated: September 10, 2018 7:47 pm

No convocation in Presidency University campus due to protest

ছবি: পিন্টু প্রধান

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নজিরবিহীন ঘটনা৷ ছাত্র বিক্ষোভে প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন অনুষ্ঠানের স্থান বদল৷ কলেজ স্ট্রিট ক্যাম্পাসে নয়, রাজভবনে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সমাবর্তন অনুষ্ঠান চাইছে বলে জানা গিয়েছে৷ উপাচার্য অনুরাধা লোহিয়া জানিয়েছেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে ঢুকতে দিচ্ছে না ছাত্ররা৷ তাই ক্যাম্পাসে সমাবর্তন অনুষ্ঠান করা যাবে না৷ শেষ খবর অনুযায়ী, রাজ্যপাল তথা আচার্য কেশরীনাথ ত্রিপাঠী যোগাযোগ করেছেন প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য৷ শোনা যাচ্ছে,  শেষপর্যন্ত যদি রাজভবনে সমাবর্তন অনুষ্ঠান হয়, সেক্ষেত্রে শুধুমাত্র সাম্মানিক ডিলিট উপাধি দেওয়া হবে৷ স্নাতক ও স্নাতকোত্তরের পড়ুয়ারা সার্টিফিকেট পাবেন না৷ কিন্তু, রাজভবনের তরফ থেকে এখনও সবুজ সংকেত মেলেনি। ঝামেলার জেরে আচার্য তথা রাজ্যপাল সমাবর্তনে অনুপস্থিত থাকতে পারেন বলেও জানা গিয়েছে।

[ হিন্দু হস্টেলের দাবিতে প্রেসিডেন্সির গেটে তালা, ঢুকতেই পারলেন না উপাচার্য]

বার্ষিক সমাবর্তন অনুষ্ঠান বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্যাম্পাসেই অনুষ্ঠিত হয়৷ এটাই রীতি৷ তাহলে সেই রীতি ভেঙে কেন ক্যাম্পাসের বাইরে সমাবর্তন অনুষ্ঠান করতে চাইছে প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ? সমাবর্তন অনুষ্ঠানেকাটছাঁটই বা করা হচ্ছে কেন? হিন্দু হস্টেল চালুর দাবিতে আন্দোলনে নেমেছেন প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা৷ গত কয়েক মাসে দফায় দফায় ছাত্র বিক্ষোভে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে বিশ্ববিদ্যালয় চত্বর৷ গত মাসেই রাজারহাটে হস্টেল কার্যত খালি করে কলেজ স্ট্রিটে ক্যাম্পাসে অবস্থান বিক্ষোভে বসেছিলেন প্রেসিডেন্সির পড়ুয়ারা৷ বিক্ষোভের মুখে পড়েছিলেন খোদ উপাচার্য অনুরাধা লোহিয়া৷ তাঁর অফিসের সামনে জামাকাপড় ঝুলিয়ে দিয়েছিলেন আন্দোলনকারীরা৷ এমনকী, বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রদর্শনী উদ্বোধন করতে এসে পড়ুয়াদের বিক্ষোভের সাক্ষী হয়েছিলেন রাজ্যপাল তথা আচার্য কেশরীনাথ ত্রিপাঠী৷ কিন্তু, প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের হস্টেল সমস্যার সমাধান হয়নি৷

সোমবার সকালে প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ে ঢুকে গেটে তালা ঝুলিয়ে দেন পড়ুয়ারা৷ ঢুকতে দেওয়া হয়নি উপাচার্য অনুরাধা লোহিয়া-সহ অন্য অধ্যাপক ও গর্ভনিং বডির সদস্যদেরা৷ এমনকী, প্রেসিডেন্সিতে ঢুকতে পারেননি অশিক্ষক কর্মীরাও৷ মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাবর্তন অনুষ্ঠান৷ সোমবার প্রেসিডেন্সিতে গর্ভনিং বডির বৈঠক হওয়ার কথা ছিল৷ ছাত্র বিক্ষোভের কারণে বৈঠক ভেস্তে যায়৷ পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে ক্যাম্পাসে সমাবর্তন অনুষ্ঠান না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ৷ সূত্রের খবর, রাজভবনে সমাবর্তন অনুষ্ঠান করতে চেয়ে রাজ্যপাল তথা আচার্য কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন প্রেসিডেন্সির বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য অনুরাধা লোহিয়া৷ কিন্তু সেখান থেকেও মেলেনি সবুজ সংকেত। তাই আপাতত বিশ বাঁও জলে সমাবর্তন অনুষ্ঠান। 

[বাঙালির নতুন হুজুগ, মূর্তি বিক্রিতে বিশ্বকর্মাকে টক্কর গণেশের]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে