BREAKING NEWS

১২ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৬ মে ২০২০ 

Advertisement

‘বিদেশিনীকে বিয়ে করে নোবেল আনুন’, রাহুল সিনহাকে কটাক্ষ অভিজিতের মায়ের

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: October 22, 2019 4:36 pm|    Updated: October 22, 2019 4:36 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিদেশিনী বিয়ে করেই তাহলে একটা নোবেল আনুন। বিজেপি নেতা রাহুল সিনহার মন্তব্যের প্রেক্ষিতে একথাই বললেন অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়ের মা নির্মলাদেবী। এস্থারের মতো ভাল মেয়ে না পেলেও অন্য বিদেশিনী ঠিকই পাওয়া যাবে বলে বিদ্রূপ করেন তিনি।

[আরও পড়ুন: মাছের কালিয়া থেকে রসগোল্লার পায়েস, অভিজিতের বাড়ির হেঁশেলে ব্যস্ততা এখন তুঙ্গে]

অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার পাওয়ার পরেই অযথা অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সমালোচনা করতে শুরু করেন কিছু মানুষ। সেই তালিকায় রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল থেকে কেন্দ্রীয় সম্পাদক রাহুল সিনহা, সবাই ছিলেন। রেলমন্ত্রী অভিজিৎবাবুর কাজ নিয়ে সমালোচনা করলেও রাহুল সিনহা তাঁর বিদেশিনী স্ত্রীকে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেন। বলেন, ‘দ্বিতীয় স্ত্রী বিদেশি হলেই নোবেল পাওয়া যাচ্ছে।’ এরপরই রাজ্য তথা দেশজুড়ে বিতর্ক শুরু হয়।

সোমবার এই প্রসঙ্গ উল্লেখ করে কটাক্ষ করেন নির্মলাদেবী। হাসিুমখে বলেন, ‘ওনারা যদি এই কাজ করে আরও নোবেল পান তাহলে দেশ এবং বাংলার গৌরব বাড়বে। এস্থারের মতো ভাল মেয়ে না পেলেও বিদেশিনীর তো অভাব পড়েনি। তাই যাকে পাবে তাকেই তাড়াতাড়ি বিয়ে করে নিন। এতে ওনারাও যেমন নোবেল পাবেন তেমনি দেশের ঝুলিতেও একটা নোবেল আসবে। এর ফলে সম্মান বাড়বে। আমরাও খুশি হব।’

[আরও পড়ুন:‘বাঙালি ভিখারির বাচ্চা’, কালীঘাট মেট্রোয় যুবককে মার আরপিএফের]

গত শুক্রবার অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় সম্পর্কে মন্তব্য করতে গিয়ে রাহুল সিনহা বলেন, ‘যাদের দ্বিতীয় স্ত্রী বিদেশি, মূলত তাঁরাই নোবেল পাচ্ছেন। নোবেল পাওয়ার ক্ষেত্রে এটা কোনও ডিগ্রি কিনা জানি না।’ এরপরই রাজ্য তথা দেশজুড়ে তাঁর সমালোচনায় মুখর হন বিশিষ্ট মানুষরা। বঙ্গ বিজেপির অন্দরেও সমালোচনা শুরু হয়। অনেকেই ঘনিষ্ঠ মহলে রাহুল সিনহা ঠিক মন্তব্য করেননি বলেও মন্তব্য করেন। মঙ্গলবার অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠকের পর তাঁর প্রশংসা করে টুইট করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও। আর এরপরই বঙ্গ বিজেপির এক নেতা সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট করেন, প্ৰধানমন্ত্ৰীর কাছ থেকে অনেক কিছুই শেখার আছে আমাদের। আজ অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে সাক্ষাতের পর প্ৰধানমন্ত্ৰী একটি টুইট করেছেন। তাতেই তিনি বুঝিয়ে দিয়েছেন, একজন প্রকৃত সুভদ্র এবং সৌজন্যশীল মানুষ কেমন হতে পারে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement