BREAKING NEWS

১৪ ফাল্গুন  ১৪২৭  শনিবার ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

খাস কলকাতায় বাড়ির ভিতরই দেহব্যবসা, নাবালিকাকে যৌনপেশায় নামিয়ে গ্রেপ্তার মা-বাবা

Published by: Sulaya Singha |    Posted: February 10, 2021 8:49 am|    Updated: February 10, 2021 8:49 am

An Images

অর্ণব আইচ: সমাজের যে কোনওরকম কুপ্রভাব থেকে সন্তানকে সর্বদা আগলে রাখারই চেষ্টা করেন বাবা-মা। কিন্তু জীবনের সবচেয়ে নিরাপদ আশ্রয়ই যখন বিপদসঙ্কুল হয়ে ওঠে, তখন? ঠিক তেমনই ভয়ংকর পরিস্থিতির শিকার হল এক নাবালিকা। খাস কলকাতায় কিশোরীকে যৌনপেশায় নামায় তারই মা ও বাবা। ঘটনায় এখনও পর্যন্ত মোট ৬জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গোপন সূত্রে দক্ষিণ কলকাতার (South Kolkata) হরিদেবপুরে মধুচক্রের সন্ধান পায় পুলিশ। তল্লাশি চালিয়ে অভিযুক্ত মা ও বাবাকে গ্রেপ্তার করেন লালবাজারের গোয়েন্দারা। তাদের পাশাপাশি আরও চারজন পুলিশের জালে ধরা পড়ে। দীর্ঘদিন ধরে দেহব্যবসার কবলে পড়া তিন নাবালিকা ও এক তরুণীকেও উদ্ধার করা হয়।

[আরও পড়ুন: বিধানসভা নির্বাচনের আগে ব্যাপক প্রশাসনিক রদবদল রাজ্যে, বদলি রাজ্যপালের অতিরিক্ত সচিবও]

পুলিশ জানিয়েছে, দক্ষিণ শহরতলির হরিদেবপুর থানা (Haridevpur PS) এলাকার সন্তোষ রায় রোডে চলছিল এই মধুচক্র। গোপন সূত্রে আসে খবর। লালবাজারের গোয়েন্দারা জানতে পারেন, এখানে একটি বাড়ির মধ্যেই মধুচক্র চালানো হচ্ছে। দালালদের মাধ্যমে ওই বাড়িতে নিয়ে আসা হচ্ছে খদ্দেরদের। সেই খবর পেয়েই গোয়েন্দারা বাড়িটিতে হানা দেন। তিন নাবালিকাকে উদ্ধার করার সময় জানতে পারেন যে, দুই নাবালিকাকে কাজের লোভ দেখিয়ে অন্য জেলা থেকে নিয়ে আসা হয়। আর এক নাবালিকাকে আবার যৌনপেশায় নামাতে বাধ্য করে খোদ তার মা ও বাবা। অভিভাবকদের চাপেই পড়াশোনা ছেড়ে ওই কিশোরী মধুচক্রে নামতে বাধ্য হয়। কারণ তার মা ও বাবাই এই মধুচক্রের সঙ্গে যুক্ত। ওই দম্পতিকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে।

এছাড়াও অমল মণ্ডল, কোনলাল মণ্ডল, দেবযানী সামন্ত ও তনুশ্রী বন্দ্যোপাধ্যায় নামে চারজনকে গ্রেপ্তার করতে পেরেছেন গোয়েন্দারা। ধৃতদের জেরা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। মধুচক্রের শিকড় কতদূর বিস্তৃত, তা জানারই চেষ্টা চলছে।

[আরও পড়ুন: প্রায় দেড় কোটি টাকার আর্থিক তছরুপ, দোষী সাব্যস্ত মেডিক্যাল কলেজের ডেপুটি সুপার]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement