১৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  বুধবার ৩০ নভেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

‘অভিমান ছেড়ে রাজনীতিতে ফের’, শোভনকে অনুরোধ পার্থর

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: July 24, 2019 7:03 pm|    Updated: July 25, 2019 1:59 pm

Partha Chatterjee meets Sovan Chatterjee and Baishakhi Banerjee

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: তাঁর বিজেপিতে যোগ দেওয়া নিয়ে বাংলার রাজনৈতিক মহলে বহুদিন ধরেই জল্পনা চলছে। তাঁর দিল্লি যাত্রা নিয়েও সেই কানাঘুষো হয়। এবার কলকাতার প্রাক্তন মেয়র তথা বিধায়ক শোভন চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে দেখা করতে গেলেন তৃণমূলের মহাসচিব তথা রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। মঙ্গলবার গভীর রাত পর্যন্ত শোভনবাবুর ফ্ল্যাটে চলল বৈঠক। সেই বৈঠকে ছিলেন শোভনবাবুর বন্ধু বৈশাখি বন্দ্যোপাধ্যায়ও। জানা গিয়েছে, শোভনবাবুর মানভঞ্জনের জন্যই তাঁর বাড়িতে যান পার্থবাবু। মান-অভিমান ভুলে ফের রাজনীতিতে ফেরার অনুরোধ করেন তিনি। তবে শোভনবাবু ও বৈশাখিদেবীও তাঁর কাছে বিভিন্ন বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

মঙ্গলবার রাত ১০.১০ মিনিট নাগাদ সাদার্ন পার্কে প্রাক্তন মন্ত্রী শোভনবাবুর ফ্ল্যাটে পৌঁছন পার্থবাবু। সূত্রের খবর, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বার্তা নিয়েই হাজির হন পার্থবাবু। সেই বৈঠকে ছিলেন বৈশাখিদেবীও। গভীর রাত পর্যন্ত চলে সেই বৈঠক। রাত দেড়টা নাগাদ ফ্ল্যাট থেকে বেরোন পার্থবাবু। নিচে এসে তাঁকে বিদায়ও জানান শোভনবাবু ও বৈশাখিদেবী। সূত্রের খবর, শোভনবাবুর অভিমান ভাঙতেই শোভনবাবুর সাদার্ন পার্কের ফ্ল্যাটে যান পার্থ। দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বার্তা নিয়েই শোভনবাবুকে অনুরোধ করেন তৃণমূলের মহাসচিব। সূত্রের খবর, পার্থবাবু দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক সহযোদ্ধা শোভনবাবুকে মনে করিয়ে দেন পুরনো দিনের স্মৃতি। একসঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে রাজ্যে সংগঠনবৃদ্ধি কাজ করেছেন। সহকর্মীকে মনে করিয়ে দেন পার্থবাবু। আর তারপরেই অভিমান ভুলে ফের সক্রিয় রাজনীতিতে ফিরতে বলেন তিনি। তখন শোভনবাবুও নিজের ব্যক্তিগত ক্ষোভ উগরে দেন তাঁর কাছে। বিভিন্ন সময়ে দলের মধ্যে তাঁকে যেভাবে অপদস্থ করা হয়েছে এবং তাঁর নীতির লড়াইয়ে যেভাবে দল তাঁর পাশে দাঁড়ায়নি সেকথাও জানাতে ভোলেননি শোভনবাবু। বৈশাখিদেবীও পার্থবাবুর কাছে নিজের ক্ষোভ উগরে দেন। জানান, যেভাবে কর্মক্ষেত্রে এবং সামাজিক ক্ষেত্রে তাঁকে অসম্মান করা হয়েছে, শোভনবাবুর বন্ধু হওয়ার সুবাদে তাঁকে যেভাবে অপদস্থ করা হয়েছে তা তাঁকে ব্যথিত করেছে। শোভনবাবু পার্থবাবুকে জানান, বৈশাখিদেবী তাঁর বন্ধু হিসাবে যেভাবে পাশে থেকেছেন তারপরও তাঁকে অপদস্থ করা হয়েছে তা তিনি ভাবতেও পারেন না।

উল্লেখ্য, তৃণমূলের সঙ্গে দূরত্ব তৈরি হওয়ার পর থেকে শোভনবাবু ও বৈশাখিদেবীর বিজেপিতে যোগ দেওয়ার জল্পনা তৈরি হয়। এমনকী সম্প্রতি তাঁদের একসঙ্গে দিল্লিযাত্রা নিয়েও গেরুয়া শিবিরে যোগ দেওয়ার পরিকল্পনার কথা রটে। গেরুয়া শিবিরের তরফ থেকেও এমন জল্পনার কথা অস্বীকার করা হয়নি। তাই আগামী বছর পুরভোটের আগে দক্ষ সংগঠক শোভনবাবুকে ফের দলে ফিরে পেতে মমতার বার্তা নিয়ে তাঁর কাছে যান পার্থবাবু। যদিও পার্থবাবু শোভনবাবুর কাছে যাওয়ার কথা অস্বীকার করেছেন। বলেছেন, ‘আমার অত রাত পর্যন্ত জেগে থাকার অভ্যেস নেই। তাই অত রাতে ওঁর বাড়িতে যাওয়ার কোনও প্রশ্নই নেই। তবে শোভন এখনও দলের একজন কাউন্সিলর ও বিধায়ক। দলের সঙ্গে ওঁর সম্পর্ক ছেদ হয়নি। এখনও ওঁ যদি সক্রিয় রাজনীতিতে ফিরতে চায় তাহলে আমাদের কোনও আপত্তি নেই।’ পক্ষান্তরে একথা বলে শোভনবাুর দলে ফেরার দরজা খোলা রয়েছে বলে জানিয়ে রাখলেন পার্থবাবু।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে