BREAKING NEWS

২  ভাদ্র  ১৪২৯  বুধবার ১৭ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

বিধানসভাতেও আর মুখ্যমন্ত্রীর পাশে ঠাঁই হবে না পার্থর, বদলাচ্ছে আসন

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: August 6, 2022 5:06 pm|    Updated: August 6, 2022 5:39 pm

Partha Chatterjee's seat in assembly next to CM Mamata Banerjee moved | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মন্ত্রিত্ব গিয়েছে। গিয়েছে দলের পদ। আপাতত পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের (Partha Chatterjee) পরিচয়, তিনি তৃণমূলের একজন সাধারণ বিধায়ক। দলের পদ এবং মন্ত্রিত্ব যাওয়ার পর এবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশে বসার অধিকারও হারাচ্ছেন রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী। সূত্রের খবর, বিধানসভায় মমতার পাশে আর জায়গা হবে না পার্থর। বদলে অন্য তৃণমূল (TMC) বিধায়কদের মতো পিছনের দিকে বসতে হবে তাঁকে। অবশ্য যদি জেল থেকে ছাড়া পাওয়া পর্যন্ত তিনি বিধায়ক থাকেন তবেই সে প্রশ্ন উঠছে।

রাজ্য মন্ত্রিসভায় রদবদলের পর বিধানসভার (West Bengal Assembly) আসন বিন্যাসে রদবদল করা হচ্ছে বলে সূত্রের খবর। পার্থর শুধু নয়, আসন বদলাচ্ছে আরও একাধিক মন্ত্রীর। শোনা যাচ্ছে, রদবদলের পর যেসব মন্ত্রী গুরুত্বপূর্ণ দপ্তর পেয়েছেন তাঁদের আসন মুখ্যমন্ত্রীর কাছাকাছি আনা হচ্ছে। যেসব মন্ত্রীর গুরুত্ব কমছে, তাঁদের আসন দেওয়া হবে অন্য ব্লকে। পার্থর আসনও বদলে দেওয়া হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: স্ত্রীদের জিজ্ঞেস করুন কীভাবে সংসার চলছে, মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে BJP বিধায়কদের তোপ বদরুদ্দিনের]

২০১১ সালে রাজ্যে তৃণমূল (TMC) ক্ষমতায় আসার পর থেকেই মমতার পাশের আসনটিতে পার্থ বসতেন। দীর্ঘ ১১ বছর তিনি ওই আসনে বসেছেন। এবার সেই স্থান থেকে তাঁকে সরানো হচ্ছে। আসলে পার্থ শুরু থেকেই রাজ্যের একাধিক গুরুত্বপূর্ণ দপ্তরের মন্ত্রী থেকেছেন। ছিলেন পরিষদীয় মন্ত্রীও। তাই কাজের সুবিধার জন্যই মমতার (Mamata Banerjee) পাশে বসার ব্যবস্থা করা হয়েছিল তাঁর। কিন্তু এখন তিনি আর মন্ত্রী নন, সাধারণ বিধায়ক। তাই ওই জায়গায় আর বসতে দেওয়া হবে না তাঁকে। বিধানসভার ট্রেজারি বেঞ্চ থেকেও সরানো হচ্ছে পার্থর আসন। আপাতত সাধারণ বিধায়কদের মতোই তিনি বসবেন পিছনের দিকে।

[আরও পড়ুন: বাসে উঠলে দিতে হবে না ভাড়া, রাখি উপলক্ষে উত্তরপ্রদেশের মহিলাদের ‘উপহার’ যোগীর]

এদিকে প্রেসিডেন্সি জেলে ঢোকা ইস্তক পার্থর মুখে শোনা যাচ্ছে আক্ষেপের সুর। সূত্রের খবর, জেলকর্মীদের কাছে নাকি তিনি আক্ষেপ করেছেন, “কর্পোরেট সংস্থার চাকরি ছেড়ে রাজনীতিতে আসায় ভুল হয়েছিল। নাহলে এই দিন দেখতে হত না।” আবার আরেক কর্মীকে নাকি তিনি বলেছেন, তাঁর জীবনে আর কিছুই নেই।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে