BREAKING NEWS

২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৭ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

কোভিডযুদ্ধে হার, প্রয়াত INS-অরিহন্তের স্থপতি, পদ্মশ্রীপ্রাপ্ত পরমাণু বিজ্ঞানী শেখর বসু

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: September 24, 2020 2:38 pm|    Updated: September 24, 2020 2:43 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনার সঙ্গে লড়াইয়ে শেষমেশ হার মানলেন প্রখ্যাত পরমাণু বিজ্ঞানী শেখর বসু (Sekhar Basu)। দেশের প্রথম পারমাণবিক শক্তিচালিত যুদ্ধজাহাজ INS-অরিহন্তের ( India’s first nuclear-powered submarine INS Arihant) মূল স্থপতি হিসেবে শেখর বসুর নাম দেশের কীর্তিমানদের তালিকায় উল্লেখযোগ্য। পরমাণু গবেষক হিসেবে তিনিই INS-অরিহন্তের জটিল রিঅ্যাক্টরগুলি তৈরি করেছিলেন। বৃহস্পতিবার ভোরে কলকাতার এক বেসরকারি হাসপাতালে মৃত্যু হয় ৬৮ বছরের এই বিজ্ঞানীর। তাঁর প্রয়াণের খবরে শোকের ছায়া দেশের বিজ্ঞানীমহলে।

বালিগঞ্জ গভর্নমেন্ট স্কুলে ছাত্রজীবন শেষ করার পর মুম্বইতে ইঞ্জিনিয়ারিং পড়তে চলে যান এই বঙ্গসন্তান। পাশ করার পর ভাবা অ্যাটমিক রিসার্চ সেন্টারে (BARC) গবেষণার কাজে যোগ দেন। পরবর্তী সময়ে BARC’এর অধিকর্তার পদে বসেছিলেন। পরমাণু শক্তি কমিশনের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পেয়ে সেই পদ ছেড়ে দেন। স্বাভাবিকভাবেই, তাঁর কীর্তির তালিকা সুদূরপ্রসারী। আজীবন পরমাণু শক্তি নিয়ে গবেষণার পাশাপাশি একসময়ে দেশের পরমাণু শক্তিমন্ত্রকের সচিব পদে বসে দায়িত্ব পালন করেছেন ড. শেখর বসু। দেশের প্রথম সাবমেরিন INS-অরিহন্ত তাঁরই মস্তিষ্কপ্রসূত। পাশাপাশি পরমাণু বর্জ্য নিষ্কাশন এবং চুল্লি তৈরি ছিল তাঁর বিশেষ আগ্রহের বিষয়। জীবনব্যাপী গবেষণাকাজের স্বীকৃতি স্বরূপ ২০১৪ সালে তাঁকে ‘পদ্মশ্রী’ সম্মানে ভূষিত করেন তৎকালীন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়।

[আরও পড়ুন: শ্বাসনালীতে দুধ ঢুকে মৃত্যু শিশুর, হাসপাতালকে ২ লক্ষ টাকা জরিমানা স্বাস্থ্য কমিশনের]

দিন কয়েক আগে কোভিড পজিটিভ হন শেখর বসু। ভরতি হয়েছিলেন কলকাতার এক বেসরকারি হাসপাতালে। ৬৮ বছরের বিজ্ঞানীকে করোনামুক্ত করতে কম চেষ্টা করেননি চিকিৎসকরা। কিন্তু ক্রমশই তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটছিল। আজ ভোর ৫টা নাগাদ ওই হাসপাতালেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন স্বনামধন্য পরমাণু বিজ্ঞানী, বঙ্গসন্তান শেখর বসু। তাঁর মৃত্যুতে সহকর্মী থেকে প্রাক্তন ছাত্র, অগণিত অনুরাগী – শোকপ্রকাশ করেছেন সকলেই। শেখর বসুর প্রয়াণ দেশের পরমাণু গবেষণার গতিতে বড়সড় ধাক্কা বলে মনে করছে বিজ্ঞানীদের একাংশ।

[আরও পড়ুন: করোনা পরিস্থিতিতে ক্ষতি সামলাতে উদ্যোগ, ব্যয় সংকোচের সময়সীমা বাড়াল নবান্ন]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement