২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

চোখের নিমেষে সাদা কাগজ থেকে তৈরি হচ্ছিল নোট! প্রতারণা চক্রের পর্দাফাঁস করল পুলিশ

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: October 1, 2020 5:37 pm|    Updated: October 1, 2020 8:58 pm

An Images

কলহার মুখোপাধ্যায়: চোখের নিমেষে সাদা কাগজ হয়ে যেত নোট! যা দিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই অনেকের সঙ্গে প্রতারণা করছিল ২ যুবক। কিন্তু শেষ রক্ষা হল না। নিউটাউন (Newtown) থেকে ২ অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করল পুলিশ।

ধৃতদের নাম দেবাশিস মণ্ডল ও সৌরভ মণ্ডল। দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসন্তীর বাসিন্দা তারা। বৃহস্পতিবার সকালে নিউটাউনের তারুলিয়া এলাকায় ইতস্ততভাবে ঘোরাঘুরি করছিল ওই ২ জন। তাতেই সন্দেহ হয় পুলিশের। এরপরই জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করা হয়। সেই সময় তাঁদের কাছ থেকে মেলে একটি ছোট স্পিরিটের বোতল, বেশ কয়েকটি রঙয়ের বোতল, কালার জেরক্স করা ১০০ ডলারের তিনটি নোট, ১০০০ টাকার নোটের মাপের কাগজ দুই বান্ডিল। এগুলি হাতে পেয়েই দেবাশিস ও সৌরভকে চেপে ধরে পুলিশ। পুলিশের দাবি, সেই সময়ই সমস্ত তথ্য ফাঁস করে অভিযুক্তরা। তাঁরা জানায়, সাদা কাগজে রং করে তার ওপর আর একটি সাদা কাগজে মুড়ে হাতের তালুতে রেখে ঘোরালেই নাকি হয়ে যায় টাকা। কিন্তু ওই রং কিনতে দিতে হত লাখ টাকা! এসব বলেই দিনের পর দিন লোকের থেকে টাকা আদায় করত তাঁরা।

[আরও পড়ুন: NRS-এর প্রাক্তন ডেপুটি সুপারের গাড়িতে লাগানো অবসরপ্রাপ্ত সেনা অফিসারের ফলক ছিঁড়ল দুষ্কৃতীরা]

কিন্তু ঠিক কীভাবে মানুষকে ফাঁদে ফেলত ধৃতরা? জানা গিয়েছে, অভিযুক্তরা সবাইকে বোঝাতো রং দিয়েই টাকা তৈরি করা সম্ভব। প্রয়োজনে কারসাজি করে টাকা তৈরি করে অনেককে দেখাতো ওই যুবকেরা। এরপরই তাঁদের বলত রং কিনতে লাগবে লাখ টাকা। সরল বিশ্বাস আর লোভে পড়ে অনেকেই টাকা দিত তাদের। কখনও আবার ডলার এক্সচেঞ্জের নাম ভুয়ো নোট দিয়ে আসল টাকা নিয়ে চম্পট দিত তারা। কিন্তু কেন এই ব্যবসা? এর সঙ্গে আর কে বা কারা জড়িত? এহেন একাধিক প্রশ্নের উত্তরের সন্ধান করছে পুলিশ।

[আরও পড়ুন: খাস কলকাতায় বাসস্ট্যান্ডে দাঁড়িয়েই তরুণীকে যৌনতার প্রস্তাব! পুলিশের জালে অভিযুক্ত]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement