৯ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

প্রধানমন্ত্রী-রাষ্ট্রপতির ছবি নিয়ে রাম নবমীর মিছিল, বিতর্কে রাহুল সিনহা

Published by: Tanujit Das |    Posted: April 13, 2019 4:22 pm|    Updated: April 23, 2019 6:08 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাম নবমীর ট্যাবলোতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের ছবি৷ সেই ট্যাবলো নিয়ে মিছিলে পা মেলালেন উত্তর কলকাতা লোকসভা কেন্দ্র থেকে বিজেপির প্রার্থী রাহুল সিনহা৷ যাকে কেন্দ্র করে তুঙ্গে রাজনৈতিক তরজা৷ রাম নবমীর মতো একটি ধর্মীর অনুষ্ঠানের মিছিলে কেন প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতির ছবি ব্যবহার করা হল, সেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে৷ আদৌ এমনটা করা যায় কিনা, সেই প্রশ্নও করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ৷ লোকসভা নির্বাচনে একজন প্রার্থী হতে রাহুল সিনহা কীভাবে একাজ করলেন সেই প্রশ্ন তুলে, বিষয়টি নির্বাচন কমিশনের নজরে আনার হুঁশিয়ারিও দিয়েছে বিজেপির প্রতিপক্ষরা৷

[ আরও পড়ুন:  বহুতল থেকে উদ্ধার বৃদ্ধার অর্ধদগ্ধ দেহ, রহস্য উদ্ঘাটনে ছেলেকে জেরা  ]

জানা গিয়েছে, শনিবার সকালে উত্তর কলকাতায় রাম নবমীর একাধিক মিছিল বের হয়৷ তেমনই একটিতে উপস্থিত ছিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সম্পাদক রাহুল সিনহা৷ তাঁর উপস্থিতিতেই ওই বিতর্কিত ট্যাবলো নিয়ে রাম নবমীর মিছিল চলে৷ যেখানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের নামে হোর্ডিং লাগানো হয়। এবং যাতে লেখা ছিল, ‘আমাদের প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতি রামভক্ত। আমরা গর্বিত।’ হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের ডাকে হওয়া মিছিলের এই ট্যাবলো নিয়েই এখন তুঙ্গে রাজনৈতিক তরজা৷ প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতির ছবি ব্যবহার করে কীভাবে এমন ধর্মীয় শোভাযাত্রা হতে পারে, সেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে৷ পাশাপাশি, রাহুল সিনহা একজন প্রার্থী হয়ে কীভাবে এই মিছিলে অংশ নিলেন তাও অনেকের প্রশ্ন৷

[ আরও পড়ুন: ‘তুকতাকে মেয়ের মৃত্যু’, বদলা নিতে সুপারি কিলার দিয়ে ভাইপোকে খুন কাকার ]

যদিও বিষয়টিকে গুরুত্ব দিতে নারাজ উত্তর কলকাতার বিজেপি প্রার্থী রাহুল সিনহা। তিনি বলেন, “ভারতের সংস্কৃতি মানেই রাম। ১৩০ কোটি ভারতবাসী সকলের মনেই রাম বসবাস করছেন। রামের যাঁরা বিরোধিতা করবেন তাঁরা হিন্দুত্বের বিরোধিতা করবেন৷ আর ভারতে আগে থেকেই ধর্ম ও রাজনীতি পাশাপাশই অবস্থান করছে। এটাই সংস্কৃতি৷ একটা ছাড়া অন্যটা পূর্ণ হয় না।” যদিও এই ঘটনার তীব্র সমালোচনা করেছেন সিপিএম বিধায়ক তথা বিধানসভায় বামেদের পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী৷ তিনি বলেন, ‘‘এটা চূড়ান্ত অন্যায়৷ বাংলার সংস্কৃতিতে কোনও দিনই রাম নবমী ছিল না৷ বাংলায় দুর্গাপুজো, লক্ষ্মীপুজো ছিল কিন্তু রাম নবমী ছিল না৷ এটা বিজেপির আমদানি৷ আরএসএস একটা বিশ্বাসঘাতকের দল৷ দেশের সঙ্গে ওরা বিশ্বাসঘাতকতা করেছে৷’’ বিষয়টি নির্বাচন কমিশনের নজরে এনে রাহুল সিনহার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণেরও দাবি করেছেন অনেকে৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement