BREAKING NEWS

২০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  বুধবার ৭ ডিসেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

দেবতার সঙ্গে মাতৃভাষায় কথা বলার আত্মবিশ্বাস ভক্তের থাকা উচিত, মত পবিত্র সরকারের

Published by: Sulaya Singha |    Posted: September 24, 2022 8:31 pm|    Updated: September 27, 2022 2:01 pm

Pushpanjali Chant Bangla: Pabitra Sarkar throws light on Bangla Mantra on Durga Puja | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সংস্কৃত ভাষা ছাড়া মন্ত্র যে আদৌ উচ্চারিত হতে পারে, এখনও বহু মানুষ তা ভেবেই উঠতে পারেন না। আমাদের পূজার্চনায় ব্যবহৃত সমস্ত মন্ত্রই সংস্কৃতে লিখিত। পৌরহিত্য যাঁরা করেন, তাঁরা তাই সংস্কৃতেই মন্ত্র উচ্চারণ করেন। তাঁদের সঙ্গে সঙ্গে পুষ্পাঞ্জলির সময় সাধারণ মানুষও সংস্কৃত ভাষাই উচ্চারণ করে থাকেন। যদিও উচ্চারিত সংস্কৃত শব্দের অর্থ যে সকলেই জানেন তা নয়। এমনকী বর্তমানে সংস্কৃত চর্চার ধারা ক্ষীণ হয়ে আসায় অধিকাংশ মানুষই সংস্কৃত ভাষা ঠিক করে উচ্চারণও করতে পারেন না। এই প্রেক্ষিত থেকেই সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটালের উদ্যোগ ‘পুষ্পাঞ্জলি #ChantBangla‘। যে উদ্যোগে শামিল হয়ে, অর্থ বুঝে ও সঠিক উচ্চারণে মাতৃভাষা বাংলাতেই বাঙালি দিতে পারবে অষ্টমীর অঞ্জলি। কিন্তু পুষ্পাঞ্জলির মন্ত্র কি আদৌ বাংলায় উচ্চারিত হতে পারে? এরই উত্তর দিলেন প্রখ্যাত ভাষাবিদ পবিত্র সরকার।

‘অঞ্জলির ভাষাটা অন্তত বাংলা ভাষায় রূপান্তরিত করে বাংলা ভাষায় অঞ্জলি দেওয়ার ব্যবস্থাকে আমি খুব প্রশংসনীয় উদ্যোগ বলেই মনে করি। আমার মনে হয়, যিনি যতই ভক্ত হন না কেন, তিনি বা তাঁরা এই উদ্যোগকে অভ্যর্থনা জানাবেন। কেননা, দেবতার সঙ্গে সত্যি সত্যিই তো আমাদের এক-এক সম্পর্ক। তুমি আমাদের প্রিয়, তুমি আমাদের দেবতা, তুমি আমাদের কথা শোনো; আমাদের মনের কথাগুলো আমরা আমাদের নিজেদের ভাষায় তোমাকে বলব। আমার মনে হয়, এটা একটা আন্দোলনের চেহারা নেওয়া উচিত।’, বললেন পবিত্র সরকার।

[আরও পড়ুন: মহালয়ায় কতক্ষণ থাকবে অমাবস্যা? কখন শুরু সন্ধিপুজো? জেনে নিন দুর্গাপুজোর নির্ঘণ্ট]

বাংলায় ভাষান্তরিত হলে কি মন্ত্রের হানি হয়? পবিত্রবাবুর জবাব, বরং ভুল উচ্চারণেই মন্ত্রের মাধুর্য নষ্ট হয়। তাঁর বক্তব্য, “বাঙালি পুরোহিতেরা অনেকেই সংস্কৃত জানেন। কিন্তু অনেকেই আবার তা ভাল জানেন না। আজকাল যখন মাইকে পুজোর মন্ত্র শুনি যে, ‘শরণ্যে ত্রম্‌ বকে গৌরী’, তখন মনে হয় যে, তাঁরা সংস্কৃত জানেন না। বই দেখে দেখে মুখস্থ বলছেন বা পড়ে যাচ্ছেন। সংস্কৃত উচ্চারণ তো বাঙালি পুরোহিতের অধিকাংশেরই আসে না। ফলে, মন্ত্রের যে মাধুর্য, সংস্কৃত উচ্চারণের যে নিজস্ব মাধুর্য তা-ও রক্ষিত হয় না। তবু যেটা বুঝি না, সেটার মহিমা অনেক বেশি এরকম একটা অন্ধবিশ্বাস আমাদের আছে। ফলে সংস্কৃত মন্ত্রের কোনও ম্যাজিক আছে, এরকম তাঁরা ভাবেন, যা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। মন্ত্র একটা আন্তরিক উচ্চারণ, তা নিজের ভাষায় হওয়াই ভালো।” তিনি তাই বলছেন, ‘আমি আমার দেবতার সঙ্গে নিজের ভাষায় কথা বলব, এই আত্মবিশ্বাস সকল ভক্তের মধ্যেই আসা উচিত। আমার অনুরোধ, দেবতাকে একবার নিজের ভাষায় সম্বোধন করে দেখুন, দেখবেন, আপনার মনটাও ভাল হয়ে যাবে। আপনার নিজের কথাগুলো আপনার নিজের ভাষায় বলুন, এই আমার অনুরোধ এবং প্রার্থনা।’

বিশ্ব জুড়ে তাই বাঙালি এবার পুজোয় অঞ্জলি দেবে বাংলাতেই। মন্ত্রের বঙ্গানুবাদ করেছেন নৃসিংহপ্রসাদ ভাদুড়ী, পবিত্র সরকার ও কালীপ্রসন্ন ভট্টাচার্য। এই উদ্যোগে শামিল হোন আপনিও। পাশে থাকুন এই উদ্যোগের। আপনার এলাকার পুজো কমিটিকে বাংলা মন্ত্রে পুষ্পাঞ্জলি আয়োজনে উৎসাহিত করুন। বাংলা মন্ত্র ডাউনলোড করতে এবং সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটালের উদ্যোগ ‘পুষ্পাঞ্জলি #ChantBangla’ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন: chantbangla.org

শুনে নিন পবিত্র সরকারের বক্তব্য:

[আরও পড়ুন: পুজোতেই দেশে শুরু ৫জি পরিষেবা, প্রধানমন্ত্রীর হাতেই সূচনা হবে টেলিকম শিল্পের নয়া অধ্যায়ের]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে