১২ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

যাদবপুর হস্টেলে ব়্যাগিং আতঙ্ক, পড়ুয়াদের নগ্ন করে নাচানোর অভিযোগ

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: April 22, 2017 9:18 am|    Updated: October 7, 2019 6:44 pm

Ragging menace haunts Jadavpur University

শ্রীষিতা ঘোষ: শ্লীলতাহানির পর এবার নগ্ন করে ব়্যাগিংয়ের অভিযোগ উঠল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের হস্টেলে৷ নগ্ন করিয়ে নাচ দেখাতে বাধ্য করার পাশাপাশি ব্যাপক মারধরও করা হয়েছে বলে সিনিয়র ছাত্রদের বিরুদ্ধে প্রথমবর্ষের পড়ুয়ারা অভিযোগ করেছেন৷

অভিযোগ, মেইন হস্টেলে কুৎসিত ব়্যাগিংয়ের শিকার ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের জুনিয়র ছাত্ররা৷ শুক্রবার রাতে জামাকাপড় খুলে তাঁদের নাচতে বাধ্য করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়ররা৷ চালিয়ে দেওয়া হয় চটুল হিন্দি গান৷ দূর দূরান্ত থেকে পড়তে আসা পড়ুয়ারা হস্টেলের মাঠে খোলা আকাশের নিচে দাঁড়িয়ে অন্তর্বাস পরেই নাচতে বাধ্য হন৷ হাতে পায়ে ধরেও রেহাই পাননি তাঁরা৷ বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে৷ কিন্তু আশ্চর্যজনকভাবে অভিযুক্ত সিনিয়র ছাত্রদের পাশে দাঁড়িয়েছেন ডিন অফ স্টুডেণ্টস রজত রায়৷ কার্যত উদাসী গলায় তাঁর জবাব, “কারও আপত্তি নেই, কেউ অভিযোগও জানায় না৷ তাই এসব বন্ধ করার জন্য কোনও পদক্ষেপও নেওয়া হয়নি৷ আর যখন নিগৃহীতরাই কোনও অভিযোগ করেননি তখন সংবাদমাধ্যম কেন এ নিয়ে বাড়াবাড়ি করছে?”

[চকোলেটের লোভ দেখিয়ে নাবালিকাকে ধর্ষণ, গ্রেপ্তার ট্যাক্সিচালক]

এমনকী, ঘটনার পর অনেকে অসুস্থ হয়ে পড়লেও বিন্দুমাত্র দয়া দেখায়নি সিনিয়ররা৷ নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ছাত্র বলেছেন, “পড়াশোনা করতে এসেছিলাম এখানে৷ কিন্তু হস্টেলে সিনিয়ররা বিবস্ত্র হয়ে নাচতে বলবে এমনটা ধারণা ছিল না৷ আগে জানলে এখানে আসতাম না৷” বিশ্ববিদ্যালয়ে অ্যাণ্টি ব়্যাগিং কমিটি রয়েছে৷ সেখানে কেন অভিযোগ জানানো হল না? বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রের খবর, পাছে এই ঘটনা কেউ বাইরে বলে দেয়, তাই জুনিয়রদের শাসিয়েছিল সিনিয়র দাদারা৷ “বাইরে কাউকে কিছু বললে হস্টেল থেকে পাততাড়ি গোটাতে হবে৷,” দাদাদের হুমকির ভয়েই মুখে কুলুপ এঁটেছেন তারা৷

তবে কলা বিভাগের ছাত্র জাহাঙ্গির হোসেনই এই ঘটনা দেখতে পেয়ে তুলে দেন সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে৷ জাহাঙ্গিরের কথায়, “শুক্রবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ে ফেস্ট দেখে হস্টেলে ফিরে ঘটনা দেখে আমি চমকে যাই৷ জুনিয়র ছাত্রদের গায়ে একটুকরো কাপড় নেই৷ তাঁরা মাঠে দাঁড়িয়ে আছেন৷ কিছু সিনিয়র ছেলে তাদের নিয়ে হাসাহাসি করছে৷” বিশ্ববিদ্যালয়ে ব়্যাগিং বিরোধী প্ল্যাটফর্মের সদস্য জাহাঙ্গির তৎক্ষণাৎ ফোন করেন ডিন অফ স্টুডেণ্টসকে৷ উনি সুপারের সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলেন৷ হস্টেলের যে ব্লকে এই ঘটনা ঘটছে সেখানকার সুপার আইপিএল-এর খেলা দেখতে গিয়েছিলেন৷ বাধ্য হয়েই ফোন করা হয় পাশের ব্লকের সুপারকে৷ কিন্তু আসব বলেও ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছননি তিনি৷ উল্টে কিছুক্ষণ বাদে ফোন করে জাহাঙ্গিরকে জানানো হয়, “এগুলো আমি আটকাতে পারব না৷”

[কন্যাসন্তানের জন্ম দেওয়ায় তিন তালাক, মোদির দ্বারস্থ মহিলা]

ভিনরাজ্য থেকে যাদবপুরে পড়তে আসেন ছাত্র-ছাত্রীরা৷ হস্টেলের সিনিয়রদের ভয়ে তাঁরা কোনও কিছু বলে না৷ জাহাঙ্গিরের কথায়, “এদের জন্যই তৈরি করা হয়েছিল অ্যাণ্টি ব়্যাগিং কমিটি৷ সিনিয়রদের ভয়ে কেউ অভিযোগ করেন না৷” যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিকে বারবার বিষয়টি নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানতে ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি বলে অভিযোগ৷

[এবার দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কারে সম্মানিত ঐশ্বর্য]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে