৮ ফাল্গুন  ১৪২৬  শুক্রবার ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাজ্য সরকারের প্রতিনিধিদের অনুপস্থিতিতেই যাত্রা শুরু হল ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর। বৃহস্পতিবার সল্টলেকের সেক্টর ফাইভে ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর প্রথম পর্যায়ের উদ্বোধন করলেন রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল (Piyush Goyal)। উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়ও। কিন্তু, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আমন্ত্রণ না জানানোর অভিযোগ তুলে, রাজ্য সরকারের কোনও প্রতিনিধি এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন না। যা নিয়ে আফশোসও করতে শোনা যায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়কে।

Metro
ফাইল ফটো

ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর দৌলতে ৩৬ বছর পর নতুন মেট্রো পেল শহর কলকাতা। আপাতত সল্টলেক সেক্টর ফাইভ থেকে যুবভারতীয় ক্রীড়াঙ্গন পর্যন্ত চলবে ট্রেন। আগামিকাল অর্থাৎ শুক্রবার প্রেমদিবস থেকে চলবে ৩৬ জোড়া মেট্রো। প্রতিটি মেট্রোর মধ্যে ব্যবধান থাকবে ২০ মিনিট। সকাল ৮টা থেকে শুরু হবে পরিষেবা। মিলবে রাত ৮ টা পর্যন্ত। প্রথম পর্যায়ে করুণাময়ী-সহ ৬ টি স্টেশনে দাঁড়াবে মেট্রো। কয়েকমাসের মধ্যেই ফুলবাগান পর্যন্ত পরিষেবা চালু হবে। শীঘ্রই স্মার্টকার্ড ও টোকেন তৈরির কাজও শুরু হবে। আপাতত ভাড়া ৫ এবং ১০ টাকা। যা পৃথিবীর সবচেয়ে সস্তা মেট্রো প্রকল্প বলে দাবি কর্তৃপক্ষের।

[আরও পড়ুন: ‘নিয়ম মেনে আমন্ত্রণ করা হয়েছে মুখ্যমন্ত্রীকে’, রাজ্য সরকারের দাবি খারিজ মেট্রো কর্তৃপক্ষের]

এদিন উদ্বোধনী বক্তৃতায় রেলমন্ত্রী নবনির্মিত মেট্রো প্রকল্পকে স্বাধীনতা সংগ্রামী সরোজিনী নায়ডুর (Sarojini Naidu) উদ্দেশ্যে উৎসর্গ করেন। তিনি বলেন, “আমি সরোজিনি নায়ডুকেও শ্রদ্ধাঞ্জলী দিতে চাই। ভারতের প্রথম মহিলা রাজ্যপাল ছিলেন সরোজিনী। স্বাধীনতার লড়াইয়ে প্রথম মহিলা সেনানী। সরোজিনী নায়ডুকে উৎসর্গ করা হল ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর প্রথম ভাগ।” একই সঙ্গে তাঁর ঘোষণা, আগামী দু’বছরের মধ্যে এই প্রকল্পটি পুরোপুরি শেষ করার লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছে রেলমন্ত্রক। সেজন্য রাজ্য সরকারের সাথে যাবতীয় সমন্বয় সাধনের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বাবুল সুপ্রিয়কে (Babul Supriyo)।রেলমন্ত্রীর আক্ষেপ, “জমি জটে কিছু কাজ আটকে আছে। আশা করি আলোচনার মাধ্যমে মিটে যাবে।”

[আরও পড়ুন: দিল্লির ভরাডুবি নিয়ে স্বপনের টুইট খোঁচা, পালটা দিলেন দিলীপ]

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাবুল বলেন, “রাজ্য সরকারের প্রতিনিধিরা এলে ভাল হতো। প্রত্যেকেরই এই কাজে নিজেদের মতো ভূমিকা আছে। জানিনা কোনও কারণে, ওঁরা আসেননি। আমি ওদেরও ধন্যবাদ জানাব। একই সঙ্গে ধন্যবাদ জানাব, যাঁদের অক্লান্ত পরিশ্রমে আজকের এই প্রকল্প বাস্তবায়িত হয়েছে, সেই ইয়েলো ব্রিগেডকে।” নব নির্মিত এই মেট্রো প্রকল্প কলকাতা শহরের হাজার হাজার মানুষের জীবনযাত্রা বদলে দেবে বলেও দাবি করেছেন তিনি।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং