BREAKING NEWS

২৪  মাঘ  ১৪২৯  বুধবার ৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ 

READ IN APP

Advertisement

অষ্টমী-নবমীতেও বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির জেরে ভুগবে পুজোর কলকাতা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: October 9, 2016 9:12 am|    Updated: October 9, 2016 9:12 am

Rain In Kolkata To Hinder Durga Puja Celebrations

অনির্বাণ বিশ্বাস: বৃষ্টি চলবে আজ, অষ্টমীতেও৷ যদিও হাওয়া অফিসের এই পূর্বাভাসকে থোড়াই কেয়ার উৎসবপ্রিয় বাঙালির৷ সপ্তমীতে ছাতা মাথাতেই দিনে প্যান্ডেল হপিং চলছে শহরজুড়ে৷ ধোঁয়া উড়িয়ে খিচুড়ি উঠেছে পাতে৷ মাঝে দু’-এক পশলা বৃষ্টি হলেও সন্ধ্যা নামতেই শহরের মণ্ডপগুলিতে তিল ধারণের জায়গা ছিল না৷ সন্ধ্যাতেই জনতার সুর সপ্তমে৷ রোখে কার সাধ্যি৷
সপ্তমীর সকালটা শুরু হয়েছিল মনখারাপের মেঘলা আকাশে৷ নবপত্রিকা স্নান, দেবী ঘটে প্রাণপ্রতিষ্ঠা সবটাই আনুষ্ঠানিক আচার৷ মা দুর্গাকে আবাহনে এ শহরের পুজোর প্রাণপ্রতিষ্ঠা পেয়েছে দ্বিতীয়া-তৃতীয়াতেই৷ তিলোত্তমা কলকাতা যেন মহাসপ্তমীর সন্ধ্যায় সত্যিকারের কল্লোলিনীর রূপ পেয়েছে৷ বৃষ্টিভেজা শহরে ভ্যাপসা গরমে ভিজেছে জামা৷ তাতেও উৎসব থামেনি৷
রাতের আলোকোজ্জ্বল কলকাতাকে আরও মায়াবী ও আকর্ষণীয় মনে হয়েছে৷ আলোকোজ্জ্বল কলকাতায় স্নাত হতে চেয়েছেন প্রত্যেকে৷ ষষ্ঠী অবধি শহরের বাছাই করা পুজোমণ্ডপে ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো৷ কিন্তু সপ্তমীতে ছবিটা কিছু বদলে ভিড় নজরে এল শহরের সর্বত্র৷ হয়তো এর পিছনে বৃষ্টি-অসুরের তাড়া খাওয়া আশঙ্কা কাজ করেছে৷ যত বেশি ঠাকুর দেখে নেওয়া যায়৷ দুপুর থেকেই যানজটে প্রায় অবরুদ্ধ হয় গুরুত্বপূর্ণ রাস্তাগুলি৷ মানুষ অবশ্য হেঁটেই ঘুরেছে প্যান্ডেলে-প্যান্ডেলে৷
সকালেই কলকাতার কিছু জায়গায় বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হয়েছে৷ সেই বিক্ষিপ্ত বৃষ্টিকে উপেক্ষা করেই মানুষ রাস্তায় বেরিয়েছিল৷ কিন্তু বৃষ্টির অসুরের এই উপেক্ষা সহ্য হয়নি৷ তাই দুপুরের প্রথমেই শহরকে ভারী বৃষ্টিতে ভরিয়ে দেয়৷ যজিও সেটা সর্বত্র হয়নি৷ হাওয়া অফিস জানিয়েছে, যেখানে মেঘ দাঁড়াচ্ছে সেখানেই বৃষ্টি হচ্ছে৷ আর এই পরিস্থিতি চলবে নবমী পর্যন্ত৷ উদ্যোক্তারাও চিন্তায় রয়েছেন বৃষ্টি তাঁদের শিল্পকর্মকে ছাড় দেবে তো? মহাসপ্তমীর বিকেলে আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, শহরে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা তেমন নেই৷ উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে যে ঘূর্ণাবর্তটি অবস্থান করছে তার জেরে কলকাতার আকাশে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হবে৷ শুক্রবার থেকে ঘূর্ণাবর্তটি দক্ষিণ-পশ্চিম দিকে ঝুঁকে রয়েছে৷ ফলে এ রাজ্যে ব্যাপক প্রভাব পড়বে না৷ গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে ও উপকূলবর্তী জেলাগুলিতে বৃষ্টি হবে বিক্ষিপ্তভাবে৷ তবে এই রোদ-মেঘের খেলা চলবে নবমী অবধি৷
সুরুচি, চেতলা অগ্রণী, ত্রিধারা, নাকতলা উদয়ন থেকে শ্রীভূমি, বাগবাজার, কুমোরটুলি পার্ক তো রয়েছে৷ শহরতলির মানুষ বেলা থাকতে থাকতেই ট্রেনে চেপে কলকাতা পাড়ি দিয়েছেন৷ শিয়ালদহে নেমে সেই ভিড় কলেজ স্কোয়ার, মহম্মদ আলি পার্ক ঘুরে কিছুটা অংশ উত্তরে গিয়েছে৷ তবে বেশিরভাগই কিন্তু মেট্রোর জন্য দমদমে নেমে পড়ছেন৷ তাই মেট্রো রেলের টিকিট কাউন্টারে ব্যাপক ভিড়৷ মেট্রোয় ওঠাই দায়৷ দরজা বন্ধ হতে চাইছে না৷ এদিন যানজটে টেক্কা দেওয়ার চেষ্টা করেছে উত্তর-দক্ষিণ একে অপরকে৷ এতদিন পর্যন্ত উত্তরের তুলনায় দক্ষিণে যানজট হলেও সপ্তমীকে কড়া চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছে উত্তর৷ মা ফ্লাইওভার, সাদার্ন অ্যাভিনিউ, বালিগঞ্জ সার্কুলার রোড ও লেকগার্ডেন্স ফ্লাইওভার থেকে উত্তরে বিবেকানন্দ রোড, শ্যামবাজার পাঁচমাথা মোড়, বিজন স্ট্রিট, মানিকতলা মেন রোড- সর্বত্র হোঁচট খেতে হয়েছে গাড়িকে৷
এতকিছুর মধ্যেও মানুষের উন্মাদনায় এতটুকু চিড় ধরাতে পারেনি বৃষ্টি৷ আট থেকে আশি সবার একটাই কথা, পুজো বছরে একবারই৷ তাই সোশ্যাল মিডিয়ায় স্ট্যাটাস ভেসে উঠল ‘কান্ট কম্প্রেমাইজ..৷’

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে