১৯ আষাঢ়  ১৪২৭  সোমবার ৬ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশকারীদের হাতে আধার-প্যান, ফাঁস বিস্ফোরক তথ্য 

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 20, 2018 5:32 am|    Updated: January 20, 2018 5:37 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ক্রমশ আরও জটিল আকার নিয়েছে রোহিঙ্গা ইস্যু। ওই শরণার্থীদের একাংশের জঙ্গি-যোগ সামনে আসায় প্রশ্নের মুখে অভ্যন্তরীণ সুরক্ষা। এই সমস্যায় সব থেকে বেশি প্রভাবিত বাংলাদেশ। তবে এবার বিপদ সঙ্কেত দিল্লির দরবারেও। জানা গিয়েছে, জাল আধার কার্ড, প্যান কার্ড বানিয়ে দিব্ব্যি  ভারতের বিভিন্ন অঞ্চলে ঘাঁটি গেড়েছে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশকারীরা। ফলে জাতীয় নিরাপত্তায় ফাটল ধরতে পারে বলে আশঙ্কা তৈরি হচ্ছে।

[রোহিঙ্গাদের হাত ধরে রাজ্যে ঢুকছে ‘হিটলার’ জমানার ভয়ংকর ট্যাবলেট]

কয়েকদন আগেই রাজ্যসভায় এই ভয়ঙ্কর তথ্য পেশ করে কেন্দ্র। সংসদে রাষ্ট্রমন্ত্রী কিরেন রিজিজু জানান, রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশকারীরা আধার কার্ড ও প্যান কার্ড বানিয়ে ফেলার বেশ কয়েকটি অভিযোগ রয়েছে। তবে তাদের জায়গা দেওয়া নিয়ে কোনও তথ্য নেই। তিনি আরও জানান যে অভিযোগগুলি নিয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে এবং উচিত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে অভিযোগ কেন্দ্র এমনটা দাবি অর্লে পরিস্থিতি সম্পূর্ণ ভিন্ন। এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, প্রশাসনের নাকের ডগাতেই কলকাতা থেকে মাত্র ৪৫ কিলোমিটার দূরত্বে বারুইপুরে ঘাঁটি গেড়েছে ২৯জন রোহিঙ্গা শরণার্থী। তাদের দাবি তাদের কাছে রাষ্ট্রসংঘের দেওয়া ‘রিফিউজি কার্ড’ রয়েছে। তবে ওই পরিচয় পত্রের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে।

উল্লেখ্য, রোহিঙ্গাদের অনুপ্রবেশকারী দেশ থেকে বিতাড়িত করার সিদ্ধান্তে তীব্র আপত্তি রয়েছে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। এই মুহূর্তে ভারতে প্রায় ৪০ হাজার রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশকারী রয়েছে। তাদের দেশ থেকে বিতাড়িত করার সিদ্ধান্ত নেই কেন্দ্র সরকার। তবে মানবতার দুহাই দিলেও রোহিঙ্গারা ক্রমেই জাতীয় নিরাপত্তার ক্ষেত্রে চ্যালেঞ্জ হয়ে উঠছে বলে অভিযোগ। এই বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকে একাধিক রিপোর্ট দিয়েছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থাগুলি। উদ্বেগজনকভাবে, সেখানে বলা হয়েছে জেহাদি সংগঠনগুলির সঙ্গে যোগ রয়েছে একাংশ রোহিঙ্গার। তাদের দিয়ে ভারতে নাশকতা চালাতে চায় পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই। সব মিলিয়ে শুধু বাংলাদেশ নয় ক্রমেই ভারতের জন্য মাথাব্যথার কারণ হয়ে উঠছে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশকারীরা।

[রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশে ধ্বংস হাজার কোটি টাকার বনসম্পদ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement