BREAKING NEWS

১৩ মাঘ  ১৪২৮  বৃহস্পতিবার ২৭ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

কোভিডবিধিতে সামান্য ছাড়, শর্তসাপেক্ষে সালোঁ ও বিউটি পার্লার খোলার অনুমতি দিল রাজ্য

Published by: Sulaya Singha |    Posted: January 8, 2022 12:04 pm|    Updated: January 8, 2022 12:54 pm

Salons and beauty parlors may operate with 50% of seating capacity in West Bengal | Sangbad Pratidin

মলয় কুণ্ডু: ৫০ শতাংশের উপস্থিতিতে রেস্তরাঁ, পাব, সিনেমা হলগুলি খুলে রাখার অনুমতি দিয়েছে রাজ্য সরকার। তাই একই ভাবে সালোঁ কিংবা বিউটি পার্লারগুলি খোলারও ছাড়পত্র দিল প্রশাসন। নবান্নর কাছে এমন আরজিই জানানো হয়েছিল। অবশেষে তাতেই মিলল সাড়া। ৫০ শতাংশ আসন নিয়ে সেলুন ও বিউটি পার্লার খোলায় সবুজ সংকেত দিল রাজ্য সরকার। স্বাভাবিক ভাবেই এই ছাড়ে স্বস্তিতে সালোঁ ব্যবসায়ীরা।

নতুন বছরের গোড়া থেকেই রাজ্যে হু হু করে বাড়ছে করোনা (Coronavirus) সংক্রমণ। প্রতিদিনই লাফিয়ে বৃদ্ধি পাচ্ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। এমন পরিস্থিতিতে গত ৩ জানুয়ারি থেকে কড়া বিধিনিষেধের পথে হেঁটেছে রাজ্য। লোকাল ট্রেন চলাচলে রাশ টানা থেকে স্কুল-কলেজ বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এমনকী রাজ্যের পার্কগুলি, সুইমিং পুল ইত্যাদি বন্ধ থাকবে বলে জানিয়ে দেওয়া হয়। সরকারি ও বেসরকারি অফিসগুলি ৫০ শতাংশ কর্মী নিয়ে চলবে বলেও জারি হয় নির্দেশিকা। সেই সঙ্গে ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত সালোঁ এবং বিউটি পার্লার বন্ধ থাকবে বলেই নির্দেশিকায় উল্লেখ করা হয়েছিল। যে সিদ্ধান্তে বেশ চাপে পড়ে যান এই ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তি এবং পার্লারের কর্মচারীরা। অতিমারী কালে ফের রোজগার বন্ধ হয়ে যাওয়ার মুখে পড়তে হয় তাঁদের।

[আরও পড়ুন: Covid-19: রাজ্য মন্ত্রিসভায় আবারও করোনার থাবা, দ্বিতীয়বার আক্রান্ত দমকল মন্ত্রী সুজিত বসু]

সেই দুশ্চিন্তা থেকেই পশ্চিমবঙ্গ সালোঁ অ্যান্ড স্পা অ্যাসোসিয়েশনের তরফে নবান্নকে লিখিত অভিযোগ জানানো হয়েছিল। গণপরিবহণ কিংবা সিনেমা হলের মতো যদি ৫০ শতাংশ গ্রাহকের শর্তে বিউটি পার্লারও খোলা থাকে, তবে কর্মচারীরা উপকৃত হবেন। পাশাপাশি প্রয়োজনে পরিষেবা পাবেন সাধারণ মানুষও। তাঁদের সেই অনুরোধের পরই শনিবার রাজ্য প্রশাসনের তরফে বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানানো হল, কোভিডবিধিতে সামান্য ছাড় দেওয়া হল। এবার থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত ৫০ শতাংশ গ্রাহকের উপস্থিতিতে খোলা রাখা যাবে সালোঁ ও বিউটি পার্লার। পাশাপাশি এও স্পষ্ট করে দেওয়া হয়, কর্মী এবং খদ্দের- উভয়েরই টিকার দুটি ডোজ থাকতে হবে। পাশাপাশি মানতে হবে সমস্ত কোভিডবিধি। সালোঁ ও পার্লারে নিয়মিত স্যানিটাইজেশন করাতে হবে।

আপাতত ১৫ তারিখ পর্যন্ত কার্যকর থাকবে এই নিয়ম। এরপর করোনা পরিস্থিতি বুঝে নয়া নির্দেশিকা জারি করবে রাজ্য সরকার। 

[আরও পড়ুন: Coronavirus: করোনার বাড়বাড়ন্ত, বন্ধ শতাব্দী প্রাচীন বীরভূমের জয়দেবের মেলা]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে