২৮ আশ্বিন  ১৪২৬  বুধবার ১৬ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়কে উদ্ধারে গিয়ে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে বামপন্থী ছাত্রদের নজিরবিহীন বিক্ষোভের মুখে পড়লেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়৷ তাঁর গাড়ির সামনে বসে পড়লেন পড়ুয়াদের একাংশ৷ অন্যদিকে লাঠি, বাঁশ নিয়ে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে ভাঙচুর শুরু করেছে এবিভিপি ও দুর্গা বাহিনী৷

[ আরও পড়ুন: বাবুল সুপ্রিয়কে হেনস্তার কাণ্ডে ক্ষুব্ধ, যাদবপুর ক্যাম্পাসে যাচ্ছেন স্বয়ং রাজ্যপাল ]

জানা গিয়েছে, কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে উদ্ধার করতেই সন্ধ্যায় যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে আসেন স্বয়ং আচার্য তথা রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়৷ ক্যাম্পাসে তাঁর গাড়ি ঢুকতেই বামপন্থী ছাত্রদের দ্বারা বাধাপ্রাপ্ত হন তিনি৷ আটকে দেওয়া হয় রাজ্যপালের গাড়ি৷ এরপর কোনওক্রমে বাবুল সুপ্রিয়র কাছে পৌঁছন জগদীপ ধনকড়৷ এবং কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে উদ্ধার করে নিজের গাড়িতে নিয়ে যান৷ এরপর পরিস্থিতি আরও উত্তপ্ত হয়ে ওঠে৷ রাজ্যপালের গাড়ির সামনে ধরনায় বসে পড়েন পড়ুয়ারা৷ ক্ষমা না চাইলে কোনও ভাবেই বাবুল সুপ্রিয়কে ক্যাম্পাস ছাড়তে দেবেন না বলে, জানান তাঁরা৷ পড়ুয়াদের বোঝানোর চেষ্টা করেন রাজ্য পুলিশের শীর্ষ কর্তারা৷ কিন্তু তাতেও কোনও লাভ হয়নি বলেই সূত্রের খবর৷

[ আরও পড়ুন: প্রধানমন্ত্রীকে দেউচা-পাঁচামি কয়লাখনি উদ্বোধনে না আসার আবেদন, চিঠি বিজেপি সাংসদের ]

একদিকে যখন এই ঘটনা ঘটছে, অন্যদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের চার নম্বর গেটের সামনে কার্যত তাণ্ডব শুরু করে গেরুয়াপন্থী ছাত্র সংগঠন আখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদ (এবিভিপি) ও দুর্গা বাহিনী৷ অভিযোগ, এসএফআই-এর যে ইউনিয়ন রুম রয়েছে তাতে ব্যাপক ভাঙচুর চালানো হয়েছে৷ ছাত্র সংসদের ঘরের সমস্ত সরঞ্জাম ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে৷ বর্তমানে চার নম্বর গেটের দখল নিয়েছে এবিভিপি৷ রাস্তায় নেমেও বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন গেরুয়াপন্থী ছাত্র সংগঠনের সদস্যরা৷ রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন তাঁরা৷ রণক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে গোটা যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় চত্বর৷ মোতায়েন রয়েছে প্রচুর পুলিশ বাহিনী৷

গেরুয়াপন্থী ছাত্র সংগঠন আখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদ (এবিভিপি)-র নবীনবরণ অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়৷ এই অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে বৃহস্পতিবার দুপুরে যাদবপুরে আসেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়৷ অভিযোগ, বিশ্ববিদ্যালয়ের গেটের সামনেই তাঁর পথ আটকায় বামপন্থী ছাত্র সংগঠনের সদস্যরা৷ বাবুল সুপ্রিয়কে হেনস্তা করা হয়৷ ধস্তাধস্তিতে ছিঁড়ে যায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর জামা৷ সূত্রের খবর, এদিনের ‘নবীনবরণ’ অনুষ্ঠানে কোনও রাজনৈতিক কর্মসূচিতে নয়, আমন্ত্রিত অতিথি হিসাবে এসেছিলেন বাবুল সুপ্রিয়৷ যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়কে সেন্ট্রাল ইউনিভার্সিটি ঘোষণার দাবিতে শিক্ষক সংগঠন জুটার তরফে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর কাছে একটি আবেদন পত্র জমা দেওয়ারও পরিকল্পনা ছিল৷ কিন্তু অভিযোগ, তাঁকে অনুষ্ঠান মঞ্চ পর্যন্ত যেতে বাধা দেয় বামপন্থী ছাত্র সংগঠনের সদস্যরা৷ পরে অনুষ্ঠান থেকে বের হলেও হেনস্তা করা হয় কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং